১০ চার ও ৪ ছক্কায় সাইফের সেঞ্চুরি

0
809

চট্টগ্রামে তৃতীয় ওয়ানডেতে আইরিশদের বিপক্ষে ম্যাচে সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন অধিনায়ক সাইফ হাসান। এই ম্যাচ জিততে বাংলাদেশের আরও প্রয়োজন ৮৩ রান।

সেঞ্চুরির দেখা পান সাইফ।

দ্বিতীয় ম্যাচের মতো তৃতীয় ওয়ানডেতেও উদ্বোধনী জুটিতে বাংলাদেশকে ভালো সূচনা এনে দিয়েছেন দলের দুই ওপেনার সাইফ হাসান ও তানজিদ হাসান তামিম। আইরিশদের দেওয়া লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই আগ্রাসী ব্যাটিং করেন দলের অধিনায়ক সাইফ। অন্যপাশে বেশ দেখেশুনেই খেলছিলেন তানজিদ হাসান।

Advertisment

তবে ভালো শুরু এনে দিয়েও উদ্বোধনী জুটি বড় হয়নি বাংলাদেশের। সাইফ-তানজিদের ৪৪ রানের জুটি ভাঙেন প্রিটোরিয়াস। দলীয় ৪৪ রানে প্রিটোরিয়াসের বলে এলবিডব্লুর শিকার হন তানজিদ তামিম। সাজঘরে ফেরার আগে ২৮ বলে ১৭ রানের ইনিংস খেলেন এ ওপেনার। তানজিদ আউট হলেও আগ্রাসী ব্যাটিংটাই করেন সাইফ।

অন্যপাশ থেকে সাইফকে বেশ ভালোভাবেই সঙ্গ দিচ্ছেন মাহমুদুল হাসান। তবে জয় ইনিংস শুরু করে ধীর গতিতেই। তবে সাইফ বেশ আগ্রাসীই ছিলেন। মাত্র ৪৩ বলে ফিফটি হাঁকান এ ব্যাটসম্যান। সাইফের ফিফটির পরই সাজঘরে ফিরেন ২৯ বলে ১৬ রান করা মাহমুদুল হাসান জয়। ডেলানির বলে এলবিডব্লুর শিকার হন তিনি।

৯৬ রানে দুই উইকেট পড়লে ইয়াসিরকে সঙ্গে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যান সাইফ। তবে এ দুই জনের জুটি বেশিক্ষণ টিকেনি। দলীয় স্কোরে ৩১ রান যোগ করতেই চেজের বলে বোল্ড হন ১৩ রান করা ইয়াসির। তবে ঠিকই সেঞ্চুরির পথে এগোতে থাকেন সাইফ। সেই সাথে ইয়াসিরের বিদায়ের পর তৌহিদকে সঙ্গে নিয়ে ধীরে ধীরে বলের সাথে রানের ব্যবধানও কমিয়ে আনতে থাকেন সাইফ।

কাঙ্খিত সেই সেঞ্চুরিটি আসে ৩৬তম ওভারে। ওই ওভারে গ্যারেথের প্রথম দুই বলে ১০ রান দিয়ে শতক পূর্ণ করেন সাইফ।