Scores

বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরের অধিনায়কেরা

আগামী ৩০ মে ইংল্যান্ডে শুরু হবে দ্বাদশ বিশ্বকাপ। এবারের আসরে অংশগ্রহণকারী ১০ দলের মধ্যে ৩ দলের অধিনায়কের বিশ্বকাপে নেতৃত্ব দেয়ার পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে। বাকি ৭ জন প্রথমবারের মতো এই স্বাদ নিতে যাচ্ছেন।

 

Also Read - কেমন হবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জার্সি?


ইংল্যান্ডের অধিনায়ক ইয়ন মরগান ২০১৫ সালের বিশ্বকাপেও নেতৃত্বে ছিলেন। সেইবার বাংলাদেশের কাছে হেরে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছিল। গত বিশ্বকাপের পর থেকে এ পর্যন্ত মরগানের নেতৃত্বে ৭৬টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছে ইংল্যান্ড। যার মধ্যে ৫০টিতে জয় পেয়েছে। উঠেছে আইসিসি ওডিআই র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে।

 

ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি এবারই প্রথম বিশ্বকাপে নেতৃত্ব দিতে যাচ্ছে। ভারতের ব্যাটিং লাইন আপেরর মেরুদণ্ড হলেও তার নেতৃত্বগুণ নিয়ে যথেষ্ট সমালোচনা হয়। কোহলির অধিনায়কত্বে ৬৮টি ওয়ানডে ম্যাচের ৪৯টি জয় পেয়েছে ভারত।

কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ২০১৫ বিশ্বকাপের পরে দায়িত্ব পেয়েছেন। গতবারের রানার্সআপদের বর্তমান অধিনায়কের শতকরা জয়ের হার ৫৩.৯৬। গত বিশ্বকাপের দলেও ছিলেন তিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকার দলপতি ফাফ ডু প্লেসিসের সাফল্যটা আকাশচুম্বী। তার নেতৃত্বে প্রোটিয়াদের শতকরা জয়ের হার ৮৩.৩৩। গত বছর নেতৃত্ব পাওয়া ডু প্লেসিস ৩০টি ওয়ানডে ম্যাচের ২৫টিতেই জয় পেয়েছেন।

গত বছর খারাপ সময় পার করে এসেছে অস্ট্রেলিয়া। তবে অ্যারন ফিঞ্চের অধিনায়কত্বে এই বছর দারুণ করেছে তারা। এই ওপেনারের অধিনায়কত্বে ১৮টি ম্যাচের ১০টিতে জয় পেয়েছে অজিরা। যার সবগুলোই ধরা দিয়েছে এই বছর।

 

৩৫টি ওয়ানডে ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে ২১টিতে দলকে জয় উপহার দিয়েছেন সরফরাজ আহমেদ। তার অধিনায়কত্বে পাকিস্তান ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতেছে। সরফরাজের শতকরা জয়ের হার ৬১.৭৬।

দ্বিতীয় বারের মতো দেশকে বিশ্বকাপে নেতৃত্ব দিতে যাচ্ছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তার অধিনায়কত্বে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভূতপূর্ব উন্নতি করে বাংলাদেশ। আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ এ কোয়ার্টার ফাইনাল ও ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল যেখানে সর্বোচ্চ সাফল্য। মাশরাফির অধিনায়কত্বে ৭৩টি ওয়ানডের ৪০টিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ।

 

মাশরাফি বিন মুর্তজা

গত বিশ্বকাপে সর্বশেষ ওডিআই ম্যাচ খেলেছিলেন দিমুথ করুণারত্নে। ওয়ানডে দলে ফিরলেন আরেক বিশ্বকাপ দিয়ে। চার বছর দলে না থাকা করুণারত্নেকেই অধিনায়কের দায়িত্ব দিয়েছে শ্রীলঙ্কা। এই বিশ্বকাপ দিয়েই তার ওডিআই অধিনায়কত্বের অভিষেক হবে।

উইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার গত বিশ্বকাপেও দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। এবারের বিশ্বকাপে বয়সের দিক থেকে সর্বকনিষ্ঠ অধিনায়ক তিনি। ২৭ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার অধিনায়ক হিসেবে খুব একটা সফলতা পাননি।

বিশ্বকাপ দিয়েই আরেকজনেরও অধিনায়কত্বের অভিষেক হবে। বিশ্বকাপের ঠিক আগেই দায়িত্ব পেয়েছেন আফগানিস্তানের গুলবাদিন নাইব। ৫২ ওডিআইতে ৮০৭ রান ও ৪০ উইকেট শিকার করেছেন তিনি।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

সাকিব আবারো শীর্ষ রান সংগ্রাহক

ফিঞ্চ-স্মিথের ব্যাটে অস্ট্রেলিয়ার বড় সংগ্রহ

মাইকেল ভনের চোখে চলতি বিশ্বকাপের সেরা অধিনায়ক

ওয়ার্নারের সেঞ্চুরির পর আমিরের পাঁচ উইকেট, অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৩০৭

জাম্পার পকেটে আসলে কী ছিল?