২০২৩ পর্যন্ত পেছাল বাংলাদেশে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপ

মহামারী না এলে গত জানুয়ারিতেই বাংলাদেশে মাঠে গড়াত অনূর্ধ্ব-১৯ প্রমীলা বিশ্বকাপ, যা হত প্রমীলা ক্রিকেটের প্রথম বয়সভিত্তিক বিশ্বকাপ। তবে করোনার কারণে ক্রিকেট দুনিয়া স্থবির হয়ে গেলে আসরটি স্থগিত করে আইসিসি। স্থগিত হওয়া আসর আরেক দফা পিছিয়েছে।

২০২৩ পর্যন্ত পেছাল বাংলাদেশে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপ
স্বাগতিক হিসেবে এতে অংশ নেবে বাংলাদেশ। ফাইল ছবি

এক দফা স্থগিত হওয়ার পর প্রথম অনূর্ধ্ব-১৯ প্রমীলা বিশ্বকাপ আগামী ডিসেম্বরে সম্পন্নের কথা ছিল। এবার তা ২০২৩ সালে আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে যথারীতি প্রথম বয়সভিত্তিক প্রমীলা বিশ্বকাপের আয়োজক থাকছে বাংলাদেশ।

Advertisment

২০২৩ সালের জানুয়ারিতে মাঠে গড়াবে বিশ্বকাপের আসরটি। ২০১৬ সালের পর এটাই হবে বাংলাদেশের আয়োজন করা কোনো বৈশ্বিক আসর। ২০১৬ সালে পুরুষদের অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের আয়োজক ছিল বাংলাদেশ।

প্রমীলাদের বয়সভিত্তিক বিশ্বকাপ দ্বিতীয় দফা পেছানোর কারণও করোনা। নতুন করে পুরো বিশ্বে বাড়ছে ছোঁয়াচে ভাইরাসটির সংক্রমণ। এছাড়া দীর্ঘদিন খেলা বন্ধ থাকায় আইসিসির সামনে ঠাসা সূচি। সবকিছু মিলিয়ে তরুণীদের আসর পেছাতে বাধ্য হয়েছে আইসিসি।

আইসিসির সর্বশেষ বোর্ড সভা শেষে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়, ‘এ বছর বাংলাদেশে হতে যাওয়া আসরটি পেছানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে গভর্নিং বোর্ড। অনেক দেশে অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ের ক্রিকেটীয় কার্যক্রমে বেশ প্রভাব ফেলেছে করোনা। এতে এ বছর অনূর্ধ্ব-১৯ প্রমীলা বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুতি নেওয়া অনেক ক্ষেত্রে কঠিন হয়ে উঠবে। তাই আসরটি ২০২৩ সালের জানুয়ারিতে মাঠে গড়াবে।’

এ বছর বিশ্বকাপ মাঠে গড়ালে দল প্রস্তুত করতে সমস্যা হত স্বাগতিক বাংলাদেশেরও। প্রথম অনূর্ধ্ব-১৯ প্রমীলা বিশ্বকাপকে সামনে রেখে স্বাগতিক হিসেবে ২৫ জন তরুণী ক্রিকেটারকে নিয়ে বাংলাদেশ প্রস্তুতি শুরু করে গত বছরের জানুয়ারিতে। যদিও মহামারীর কারণে সেই প্রস্তুতিও মাঝপথে থেমে যায়। নতুন করে দল গঠন শেষে তাদের গড়ে তোলার জন্য আবারো কাজ শুরু করে বোর্ড। যদিও ২০২৩ বিশ্বকাপ আসতে আসতে অনেকেরই বয়স পেরিয়ে যেতে পারে।