২০২৬ সালে টেস্ট খেলবে মাত্র ৫ দেশ : পিটারসেন

0
14144

টেস্ট ক্রিকেটকে আরও আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ, গোলাপি বলে খেলার মতো পরিবর্তন আনা হয়েছে। তবুও কেভিন পিটারসেনের ধারণা আগামী ৫ বছরের ভেতর টেস্ট খেলেড়ু দেশের সংখ্যা কমে যাবে।

২০২৬ সালে টেস্ট খেলবে মাত্র ৫ দেশ পিটারসেন
কেভিন পিটারসেন

বলা হয়ে থাকে, বর্তমান যুগে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের প্রতি মানুষের আকর্ষণ বেশি। টেস্ট ম্যাচ ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচে গ্যালারিতে দর্শকের সংখ্যা দেখলে অবশ্য সেটি ভুল বললেও খুব দোষ নেই। তবে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড কিংবা ইংল্যান্ড ও ভারতের মধ্যকার টেস্ট ম্যাচগুলোও দর্শকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে। অ্যাশেজ কিংবা বর্তমানে চলমান ইংল্যান্ড-ভারত সিরিজের দিকে তাকালেই তার প্রমাণ পাওয়া যায়।

Advertisment

সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার পিটারসেনের মতে, টেস্ট ক্রিকেটে শেষ পর্যন্ত ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও ভারতই টিকে থাকবে। আরও থাকতে পারে দক্ষিণ আফ্রিকা ও পাকিস্তান। পিটারসেন মনে করেন, আগামী পাঁচ বছরে অর্থাৎ ২০২৬ সাল থেকে হয়তো কেবল এই পাঁচ দেশই টেস্ট খেলবে।

বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, জিম্বাবুয়ে, আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ড তো বহুদূর, আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ডকেও বাতিলের খাতায় ফেলেছেন পিটারসেন। এই সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটারের মতে, এসব দেশের তরুণ ক্রিকেটারদের টেস্ট খেলার প্রতি আকর্ষণ নেই তাই দেশগুলোও টেস্ট ক্রিকেট থেকে হারিয়ে যাবে।

পিটারসেনের ভাষায়, “এই বার্তা দেওয়া দুঃখজনক তবে আমি করি পর্যায়ক্রমে এটিই ঘটবে যে, ২০২৬ খুব কম দেশই টেস্ট ম্যাচ খেলবে। ইংল্যান্ড, ভারত, অস্ট্রেলিয়া এবং খুব সম্ভবত দক্ষিণ আফ্রিকা ও পাকিস্তান।”

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।