Scores

২১ দিন পর ব্যাটিং করলেন রিয়াদ

বিশ্বকাপের আর বেশি দিন বাকি নেই। আগামী মাসের শেষ দিকেই মাঠে গড়াবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট আসর। আসরকে সামনে রেখে বাংলাদেশ দল মানসিকভাবে প্রস্তুত হচ্ছে। তবে এরই মধ্যে শুনতে হয়েছিল সিনিয়র ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের চোটের দুঃসংবাদ।

২১ দিন পর ব্যাটিং করলেন রিয়াদ 2

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে ফিল্ডিং করার সময় একাধিকবার মাঠে ডাইভ দিতে গিয়ে পাওয়া চোট দেশে ফেরার পরও সেরে না উঠায় রিয়াদ রয়েছেন খেলার বাইরে। এমনও শোনা গিয়েছিলো, চোটের অবস্থা ক্রমশ অবনতির দিকে গেলে লাগতে পারে অস্ত্রোপচারও। তবে সবাইকে অবাক করে দিয়ে শনিবার (৬ এপ্রিল) রিয়াদ হাজির বিসিবি একাডেমি মাঠে, ব্যাট হাতে!

Also Read - নিজেদের শক্তিশালী দাবি করেও সুজনের অসন্তোষ


শুধু হাজিরই হলেন না, বেশ কিছুক্ষণ ব্যাটিং অনুশীলনও করলেন। টানা কয়েকদিন ফিটনেস অনুশীলনের পর ২১ দিন পর হাতে নিলেন ব্যাট। মিলেছে সুখবরও। শঙ্কা অনুযায়ী ওতটা গুরুতর নয় বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যানের চোট। পেস বোলিং যেহেতু করেন না তাই এই চোট নিয়ে খেলা নাকি ঝুঁকিপূর্ণ কিছু নয় রিয়াদের জন্য।

যদিও অনুশীলনে বড় শট খেলা থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে রিয়াদকে। বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জানিয়েছেন, যেসব শট খেললে ব্যথা অনুভূত হয় না সেগুলো প্র্যাকটিসে খেলতে কোনো বাধা নেই।

তবে রিয়াদকে যে ১৫ দিনের বিশ্রাম দেওয়া হল? এ প্রসঙ্গে বিসিবির অভিজ্ঞ চিকিৎসক জানালেন, হালকা অনুশীলনও রিয়াদের পুনর্বাসনের অংশ। তার ভাষ্য, ‘বিশ্রাম বলতে ঠিক ওভাবে না। সে তার কাজগুলো করছে। হালকা ব্যায়াম করছে। আমরা দেখতে চেয়েছি ব্যাটিংয়ে কোনো অস্বস্তি বোধ করে কি না। কিছু কিছু শটে ব্যথা অনুভব করে। কিছু কিছু শটে ব্যথা হয় না। যে শটে ব্যথা হয় না, সেগুলো আমরা খেলতে বলেছি। এটা ওর পুনর্বাসনেরই অংশ।’

রিয়াদের চোটগ্রস্ত কাঁধের এমআরআই প্রতিবেদন বলছে, গ্রেড থ্রি মাত্রার চোটে ভুগছেন তিনি; যা থেকে সেরে উঠতে হলে সার্জারি অনেকটাই অনিবার্য। তবে অস্ত্রোপচার ছাড়াই সেরে উঠলে সেটি দেশের ক্রিকেটের জন্যই মঙ্গল!

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ফাইনাল নিশ্চিতের লড়াইয়ে আগে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

টেস্টে অধিনায়কত্ব নিয়ে কী ভাবছেন মোসাদ্দেক?

ফাহিমের পদত্যাগ: সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করতে বলছে বোর্ড

যে ম্যাচে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে দুই দলই ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া

‘আমাদের এই জায়গাটাতে ঘাটতি রয়েছে’