SCORE

৩৫৪ করে থামল উইন্ডিজরা

দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনশেষে বেশ শক্ত অবস্থানে ছিল স্বাগতিক উইন্ডিজ। তবে দ্বিতীয় দিন সকালে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশের বোলাররা। শেষ ছয় উইকেট তুলে নিয়েছেন মাত্র ৫৯ রানে।

ছবিঃ এএফপি

 

মেহেদী হাসান মিরাজের ঘূর্ণি আর আবু জায়েদ চৌধুরী রাহীর সুইংয়ে নাকাল হয় উইন্ডিজরা। বাংলাদেশকে দ্বিতীয় দিন প্রথম সাফল্য এনে দেন আবু জায়েদ। আবু জায়েদের বাউন্স বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন শিমরন হেটমেয়ার। ৮৪ রান থেকে শুরু করা হেটমেয়ার বিদায় নেন ৮৬ রান করেই। তার ইনিংসে ছিল ৯ টি চার ও ১ টি ছক্কা।

Also Read - অলআউট উইন্ডিজ, মিরাজের ৫ উইকেট

রোস্টোন চেজকেও ফিরিয়ে দেন আবু জায়েদ। এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফিরেন চেজ। করেন ২০ রান। বল হাতে শুরু থেকেই দারুণ সুইং পাচ্ছিলেন আবু জায়েদ।

এরপর আঘাত হানেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। তাইজুলের বলে শেন ডাওরিচের ব্যাটের কানায় লেগে ক্যাচ উঠলে তালুবন্দী করেন মেহেদী হাসান মিরাজ। পরের ওভারে জোড়া আঘাত হানেন আরেক স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। মিরাজের ব্যাট-প্যাড হয়ে আসা ক্যাচ ধরে কিমো পলকে ফিরিয়ে দেন মুমিনুল হক। পরের বলে মিগুয়েল কামিন্সকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন মিরাজ।

দুই ওভারে তিন উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে যায় উইন্ডিজ। ৪ উইকেটে ২৯৫ থেকে ৯ উইকেট পড়ে যায় ৩১৯ রান করতেই। শেষ উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিলেন জেসন হোল্ডার আর শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। তাদের ৩৫ রানের জুটি ভাঙেন আবু জায়েদ। ইনসাইড এজ হয়ে বোল্ড হন গ্যাব্রিয়েল (১২)। ৩৩ রান করে অপরাজিত ছিলেন হোল্ডার।

৩৫৪ রান করে অলআউট হয় উইন্ডিজ। পাঁচ উইকেট শিকার করেন মিরাজ। টেস্ট ক্যারিয়ারে এ নিয়ে চারবারের মতো ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকারের স্বাদ পেয়েছেন এ অফ স্পিনার। বিদেশের মাটিতে এবারই প্রথম। তিন উইকেট নেন আবু জায়েদ।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথম সেশন নিরাপদে কাটিয়েছেন লিটন দাস ও তামিম ইকবাল। কোনো উইকেট না হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১০।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

উইন্ডিজ: ১ম ইনিংস ৩৫৪/১০
ব্র্যাথওয়েট ১১০, হেটমিয়ার ৮৬, হোল্ডার ৩৩*
মিরাজ ৫/৯৩, জায়েদ ৩/৩৮

বাংলাদেশ: ১ম ইনিংস  ১০/০
লিটন ৮*, তামিম ২*


আরো পড়ুনঃ দ্বিতীয় দিনে টাইগারদের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন মিরাজ


Related Articles

সিপিএলে ত্রিনবাগোর টানা দ্বিতীয় শিরোপা

বাদ পড়লেন স্মিথ-কামিন্স

বোলিংয়ের অনুমতি পেলেন বিটন

দুই ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরলো বাংলাদেশ

বাংলাদেশকে কৃতিত্ব দিতে কার্পণ্য নেই ব্র্যাথওয়েটের কণ্ঠে