Scores

৫৪ রানে অলআউট জিম্বাবুয়ে

ছবিঃ আইসিসি

আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে ১০৬ রানে হেরেছে জিম্বাবুয়ে। বৃষ্টিবিঘ্নিত এ ম্যাচে ৫৪ রানে অলআউট হয়েছে জিম্বাবুইয়ানরা। ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে ওভারের দিক দিয়ে এটিই সবচেয়ে ক্ষণস্থায়ী ইনিংস।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২৫৩ রান করে আফগানিস্তান। আফগানিস্তানের হয়ে অর্ধশতক হাঁকান রহমত শাহ। নবীর ব্যাট থেকে আসে ৪৮ রান। জিম্বাবুয়ের ক্রিসটোফার এমপফু তিন উইকেট শিকার করেন। ২ টি উইকেট পান রিচার্ড। এরপর আঘাত হানে বৃষ্টি।


            আরো পড়ুনঃ সাকিব, মুস্তাফিজ, মিরাজই দলের মূল শক্তিঃ মুশফিক 

Also Read - সানজামুলের পাঁচ, কায়েসের শতক



বৃষ্টির কারণে জিম্বাবুয়ের ইনিংস থেকে কেটে নেওয়া ২৮ ওভার। বৃষ্টি আইনে ২২ ওভারে জিম্বাবুয়ের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৬১ রান।

দ্বিতীয় ওভারেই দৌলত জাদরানের বলে ফিরে যান পিটার মুর। পরের ওভারে আমির হামজার শিকার হন সোলমন। দলীয় ১১ রানের মাথায় এরভাইনকে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন আমির। ঐ ওভারেই ফেরান শন উইলিয়ামসকে। মুসাকানদা ও রায়ান বার্ল পঞ্চম উইকেটে ১৬ রান যোগ করেন। এটিই ছিলো জিম্বাবুয়ের সর্বোচ্চ জুটি!

নবীর বলে সাজঘরে ফিরেন বার্ল। ১১ রান করেন তিনি। পরের ওভারে মুসাকানদাকে ফেরান গুলবাদিন নাইব। শেষদিকে গ্রায়েম ক্রেমার করেন ১৪ রান। এটিই জিম্বাবুয়ের দলীয় সর্বোচ্চ। টেলএন্ডাররাও অনুসরণ করেন প্রথম সারির ব্যাটসম্যানদের। মাত্র ৫৪ রান করেই গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে।

বল হাতে ১৪ রানে ৩ উইকেট শিকার করেন মোহাম্মদ নবী। আরেক স্পিনার আমির হামজা ২০ রানে নেন ৩ উইকেট। এছাড়া ২ উইকেট নেন রশিদ খান। ১ টি করে উইকেট পান দৌলত জাদরান ও গুলবাদিন নাইব।

ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে কম রানে অলআউট হওয়ার তিক্ত রেকর্ডটা জিম্বাবুয়ের দখলেই। ২০০৪ সালে হারারেতে ৩৫ রানে অলআউট হয়েছিলো জিম্বাবুয়ে। এবার সবচেয়ে কম ওভারে গুটিয়ে যাওয়ার পীড়াদায়ক রেকর্ডটাও নিজেদের করে নিলো তারা।

-আজমল তানজীম সাকির, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম ডট কম 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ছয় মাসের মধ্যেই টি-টোয়েন্টি দলে ভারসাম্য আসবে!

বয়স নিয়ে সমালোচনাকারীদের নিয়ে ভাবেনই না রশিদ!

মিসবাহর দলে ব্রাত্য মালিক-হাফিজ!

র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থান ধরে রাখলেন দুই অস্ট্রেলিয়ান

একাধিক রেকর্ড দিয়ে অ্যাশেজ শেষ করলেন স্মিথ