৮৭ বছরের ধারা ভেঙে স্থগিত রঞ্জি ট্রফি

৮৭ বছরের ধারা ভেঙে রঞ্জি ট্রফি স্থগিত করা হচ্ছে এবার। করোনার কারণে এলোমেলো হয়ে পড়া সূচিতে এবার রঞ্জি ট্রফিকে ঠাই দিতে পারছে না বিসিসিআই। তাই রঞ্জি ট্রফি ছাড়াও সাজানো হয়েছে ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটের মৌসুম।

৮৭ বছরের ধারা ভেঙে স্থগিত রঞ্জি ট্রফি

Advertisment

মুশতাক আলী ট্রফি দিয়ে ভারতে ফিরেছে ক্রিকেট। করোনার সংক্রমণ ঠেকিয়ে খেলা মাঠে রাখতে রীতিমত গলদঘর্ম হতে হচ্ছে ক্রিকেট কর্তাদের। এমন পরিস্থিতিতে রঞ্জি ট্রফির মত মর্যাদাপূর্ণ ও গুরুত্বপূর্ণ আসরের উপর পড়েছে কোপ। সৈয়দ মুশতাক আলী টি-টোয়েন্টির পর রঞ্জি ট্রফির বদলে শুরু হবে বিজয় হাজারে ট্রফি।

বিজয় হাজারে ট্রফির সাথে প্রমীলা একদিনের টুর্নামেন্টও মাঠে গড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে বিসিসিআই। অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ের একটি জাতীয় টুর্নামেন্টও নিশ্চিত করা হয়েছে, যদিও চূড়ান্ত হয়নি সূচি। মূলত সব পর্যায়ের ক্রিকেটারদের মাঠে ফেরানোই এখন ভারতীয় বোর্ডের মূল লক্ষ্য।

বিসিসিআই আয়োজিত মূল টুর্নামেন্ট ধরা হত রঞ্জি ট্রফিকে। বিসিসিআই রাজ্য ক্রিকেট সংস্থাগুলোকে রঞ্জি ট্রফি ছাড়া বাকি টুর্নামেন্টগুলোর জন্য প্রস্তুতি নিতে বলেছে। সংস্থার সচিব জয় শাহ জানিয়েছেন, ‘আমাদের কাছে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয় মহিলা ক্রিকেট আয়োজন করা এবং আপনাদের জানাতে পেরে আমি ভীষণ খুশি যে, বিজয় হাজারে ট্রফির পাশাপাশি মেয়েদের ওয়ানডে টুর্নামেন্টও আয়োজন করতে চলেছি আমরা। তার পরেই অনুষ্ঠিত হবে বিনু মানকড় অনূর্ধ্ব-১৯ টুর্নামেন্ট।’

রঞ্জি ট্রফি আয়োজন করতে হলে দুই পর্যায়ে দুটি বায়োবাবল তৈরি রাখতে হবে। দুই মাসব্যাপী এই টুর্নামেন্ট করোনাকালে অনেক কঠিন পরীক্ষা হয়ে উঠবে ক্রিকেটারদের জন্য, একইসাথে আয়োজকদের জন্যও।

জয় শাহ বলেন, ‘যেহেতু এখন ক্রিকেট খেলার জন্য বাড়তি সতর্কতা নেয়ারও প্রয়োজন রয়েছে, তাই ক্রিকেট সূচি প্রস্তুত করা খুবই কঠিন বিষয়। আমাদের জন্য এটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল যে, নারী ক্রিকেট যেন মাঠে গড়ায়। সেটি করতে পারছি আমরা।’