Scores

৮ উইকেট নিয়ে রেকর্ড গড়লেন সিলেটের রুয়েল

জাতীয় লিগে দ্বিতীয় স্তরে সিলেট-চট্টগ্রাম ম্যাচে রুয়েল আহমেদের দুর্দান্ত বোলিংয়ের সুবাদে চালকের আসনে রয়েছে সিলেট। অন্য ম্যাচে ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে বরিশাল বিভাগকে  শক্ত অবস্থানে নিয়ে গিয়েছে ফজলে মাহমুদের শতক।

৮ উইকেট নিয়ে রেকর্ড গড়লেন সিলেটের রুয়েল

সিলেট বিভাগ বনাম চট্টগ্রাম বিভাগ

Also Read - উন্মোচিত হল বঙ্গবন্ধু বিপিএলের লোগো


বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে বল হাতে আগুন ঝড়া বোলিং করেছেন সিলেটের ১৮ বছর বয়সী পেসার রুয়েল আহমেদ। তরুণ এ পেসারের বোলিং তোপে পড়ে ১০৬ রানে অলআউট হয়েছে চট্টগ্রাম। প্রথম দিনশেষে ৮০ রানের লিড পেয়েছে সিলেট বিভাগ।

চট্টগ্রাম প্রথম ওভারেই হারায় ওপেনার সাদিকুর রহমানের উইকেট। এলবিডব্লিউ হন ইমরান আলির বলে। এরপর শুরু হয় রুয়েল মিয়ার বোলিং প্রদর্শনী। ১৩ রানের মাথায় পিনাক ঘোষ ফিরেন উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে। খাতা খুলেন রুয়েল। নিজের পরের ওভারে বোল্ড করেন আলভি হককে। ১৪ রানে চট্টগ্রাম হারায় ৩ উইকেট।

ইরফান শুক্কুর আর তাসামুল হকের ৪১ রানের জুটিও ভাঙেন রেজাউর রহমান। ২১ রান করে বিদায় নেন ইরফান। আবার নামে ধস, ৫১ রানে শেষ ৭ উইকেট হারায় চট্টগ্রাম। ২১ রান করে তাসামুল হন রুয়েলের তৃতীয় শিকার হন। ১৪ রান করে সাজ্জাদুল হক পড়েন লেগ বিফোরের ফাঁদে। ঐ ওভারে মাসুম খানকে ফিরিয়ে দিয়ে ৫ উইকেট পূর্ণ করেন রুয়েল। পরের ওভারে এসে টানা দুই বলে বোল্ড করেন ইরফান হোসেন আর রনি চৌধুরীকে। এরপর ১১ রান করা শাখাওয়াত হোসেনকে বোল্ড করে রেকর্ড গড়েন রুয়েল। ২৬ রানে ৮ উইকেট নিয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে প্রথম শ্রেণির ম্যাচে পেসারদের মধ্যে  সেরা বোলিং ফিগারের রেকর্ড এখন তার।

সিলেটের ইমতিয়াজ হোসেন ও শানাজ আহমেদের ওপেনিং জুটি থামে ২৭ রানে। উইকেট নেন ইরফান হোসেন। এরপর বোল্ড করেন তৌফিক খানকে। অমিত হাসান ও শানাজ যোগ করেন ৩৮ রান। ২১ রান করে ইরফানের বলে পিনাকের গ্লাভসে ধরা পড়েন শানাজ। অমিত আর অলোক কাপালির ৬৩ রানের জুটিতে লিড পায় সিলেট। এ জুটি ভাঙেন ইরফান হোসেন।  দলীয় ১৩৬ রানের মাথায় অমিত বোল্ড হন। ৫৫ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। শেষ সময়ে কাপালির উইকেট তুলে নেয় সাজ্জাদুল হক। আসাদুল্লাহ গালিব এবং রাহাতুল ফেরদৌস দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করবেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর : চট্টগ্রাম ১০৬/১০, ৩৫.১ ওভার
ইরফান ২১, তাসামুল ২১, সাজ্জাদুল ১৪
রুয়েল ৮/২৬, ইমরান ১/২০, রেজাউর ১/৪২

সিলেট ১৮৬/৫, ৪৮  ওভার
অমিত ৫৫, কাপালি ৪১, গালিব ২৮*
ইরফান ৪/৭৬, সাজ্জাদুল ১/১৩

বরিশাল বিভাগ বনাম ঢাকা মেট্রো

প্রথম দিনে ঢাকা মেট্রোর বোলারদের ওপর ছড়ি ঘুরিয়েছেন বরিশাল বিভাগের ব্যাটসম্যানরা। ১৬৮ বলে ১৪১ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন ফজলে মাহমুদ।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার শাহরিয়ার নাফীস আর আবু সায়েম গড়ে দেন ৪০ রানের ভিত। ১২ রান করে আরাফাত সানির শিকার হন সায়েম। দলীয় ৮৩ রানের মাথায় শাহরিয়ার নাফীসকে ফেরান তাসকিন আহমেদ। ৪৪ রান করেন তিনি। ১ রান করে আসিফ হাসানের বলে স্টাম্পিং হন শামসুল ইসলাম। নুরুজ্জামানকেও (৪) দ্রুত ফেরান আসিফ। ১ উইকেটে ৮৩ থেকে ১০১ রানে পৌঁছাতে আরও ৩ উইকেট হারায় বরিশাল।

সেখান থেকে সোহাগ গাজীকে নিয়ে ৫৪ আর সালমান হোসেনকে সাথে নিয়ে ১২৮ রানের জুটি গড়ে দলকে ম্যাচে ফেরান ফজলে মাহমুদ। দুর্দান্ত এক শতক হাঁকান তিনি। ২৩ রান করে তাসকিনের বলে ফেরত যান গাজী। এরপর ঢাকা মেট্রোর বোলারদের হতাশায় ডোবান ফজলে মাহমুদ। বাউন্ডারির পসরা সাজান তিনি। ১০ চার আর ৮ ছক্কায় গড়েন ১৬৮ বলে ১৪১ রানের অসাধারণ ইনিংস। আল-আমিনের বলে আউট হন তিনি। এরপর মইন  খানকে সাথে নিয়ে অবিচ্ছিন্ন ৫৫ রানের জুটি গড়েছেন সালমান। সালমান ৬৯ এবং মইন ৩৮ রানে অপরাজিত আছেন।  দিনশেষে বরিশালের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৩৩৮।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বরিশাল বিভাগ ৩৩৮/৬ , ৯০ ওভার
ফজলে ১৪১, সালমান ৬৯*, নাফীস ৪৪
তাসকিন ২/৪০, আসিফ ২/৭৪, আল-আমিন ১/২৩

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
Tweet 20
fb-share-icon20

Related Articles

বিপিএলে চট্টগ্রামের বোলিং কোচ হচ্ছেন সাবেক ইংলিশ পেসার

ঘরের মাঠে ইনিংস ব্যবধানে হারল চট্টগ্রাম

ইনিংস হারের শঙ্কায় চট্টগ্রাম; কক্সবাজারে বরিশাল

মাঠে ফিরেই তাসকিনের নজরকাড়া পারফরম্যান্স

আশরাফুলের বলে আউট মুমিনুল