আরও মনোযোগী হওয়া উচিত ছিল, নাসিরের উপলব্ধি

ক্রিকেটে শুরুতে নাসির হোসেনের মাঝে অপার সম্ভাবনা খুঁজে পেয়েছিলেন অনেকেই। কিন্তু ধীরে ধীরে ফর্ম হারানো আর ইনজুরির কারণে দীর্ঘদিন জাতীয় দলের বাইরে নাসির। দল থেকে বাদ পড়ার দায় নিজের কাঁধেই নিয়েছেন এ অলরাউন্ডার। উপলব্ধি করেছেন আরো বাড়তি মনোযোগ দরকার ছিল। 

শুরুর দিকে নাসিরের দুর্দান্ত ব্যাটিং তাকে এনে দেয় মি. ফিনিশার উপাধি। ২০১২ সালের এশিয়া কাপেও ছিলেন চমৎকার ফর্মে। হয়ে উঠেছিলেন দলের অপরিহার্য খেলোয়াড়।

Advertisment






নাসির বলেন, “আমি যেটা অনুভব করি আমার একটা গাইডেন্স দরকার ছিল। যখন আমি খেলাধুলা করেছি আমার কাছে জাতীয় দলটা খুব সহজ মনে হয়েছিল। প্রথম দুই তিন বছর যেখানেই যে পরিস্থিতিতে খেলি না কেন আমি পারফর্ম করেছি।  আমার কাছে জাতীয় দলটা খুব  সহজ মনে হয়েছিল। কারণ তখন পারফর্ম করছিলাম তাই আমি বুঝিনি।” 

এখন নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন নাসির। আরো মনোযোগ দরকার ছিল বলে মনে করেন তিনি। নাসির বলেন, “সেই সময়টায় যদি সিরিয়াস বেশি হতাম, আরেকটু বেশি মনোযোগী হতাম খেলাধুলার প্রতি, আরেকটু ফোকাসড থাকতাম খেলাধুলার প্রতি, আরেকটু বেশি প্র্যাকটিস করতাম তাহলে আমার যখন খারাপ সময়য় এসেছে তখন রিকভারি করতে পারতাম। তখন সে জিনিসটা বুঝি নাই। এখন বুঝেছি। আমার হয়তোবা আরেকটু মনোযোগী হওয়া উচিত ছিল।” 






একজন ব্যক্তিগত কোচ রাখার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে তিনি বলেন,  “যেটা ভুল করেছি সেটা হলো আমার একটা ব্যক্তিগত কোচ রাখা উচিত ছিল যে আমাকে প্র্যাকটিস করাবে এবং পরামর্শ দিবে। একটা ট্রেনার বলেন, একটা ফিজিও বলেন- ব্যক্তিগত যদি থাকত…”

“আমি মনে করি প্রত্যেকের ব্যক্তিগত খেলোয়াড় থাকা উচিত। সে জিনিসটা আমার ছিল না। অনেক কচের সাথে কাজ করেছি। সেটা ক্ষণিকের কাজ করেছি।” 

দোষ নিজের কাঁধেই নিয়েছেন নাসির। তিনি বলেন, “এটা আমারও দোষ। আপনি  যদি গিয়ে কোনো কোচকে বলেন আপনার কাছে প্র্যাকটিস করব, কেউ না করবে না। হয়তোবা আমি করি নাই। এটা তো কোচদের দোষ না, দোষ হচ্ছে আমারই।”