SCORE

সর্বশেষ

২৯৫ রানে থামলেন নাসির

জাতীয় ক্রিকেট লিগের শেষ রাউন্ডের খেলায় বরিশালের বিপক্ষে ৩০০ রানের মাইলফলক স্পর্শ করতে পারলেন না নাসির হোসেন। অনেক সম্ভাবনা তৈরী করেও ২৯৫ রানে আউট হয়ে গেলেন এই ক্রিকেটার।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তৃতীয় দিন শেষে ২৭০ রানে অপরাজিত ছিলেন নাসির। চতুর্থ দিনে দেখে শুনেই খেলছিলেন এই ক্রিকেটার। ৩০০ এর মাইলফলক থেকে ৫ রান দূরে থাকতেই সঞ্জয়ের বলে রাব্বির হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হোন নাসির। ৫১০ বলে ৩২ চার আর ২ ছক্কায় ২৯৫ রান করেন তিনি। ক্রিজে ছিলেন ৬০৩ মিনিট। এদিকে নাসিরের আউটের সাথে সাথে ইনিংস ঘোষণা করেছে রংপুর বিভাগ। ১৭৬.৩ ওভার ব্যাটিং করে ৭ উইকেটে ৬১৪ রান করেছে রংপুর। প্রথম ইনিংসে লিড পেয়েছে ২৭৯ রানের। উল্লেখ্য, বরিশাল বিভাগের প্রথম ইনিংস করেছিল ৩৩৫ রান।

Also Read - আধুনিক ক্রিকেটের দর্শন আত্মস্থ বুলবুলের!

এর পূর্বে বাংলাদেশের হয়ে একমাত্র ট্রিপল সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন রকিবুল হাসান। বরিশালের হয়ে সিলেটের বিপক্ষে ২০০৬-০৭ মৌসুমে ফতুল্লায় ৩১৩ রান করেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। রকিবুলের নামের পাশে দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে নাম লিখানোর অনেক কাছাকাছি গিয়েও পারলেন না নাসির।

এক নজরে প্রথম শ্রেণিতে বাংলাদেশের সেরা ৫ ইনিংসঃ  

১। রকিবুল হাসান ৩১৩, বরিশাল বিভাগ বনাম সিলেট বিভাগ, ফতুল্লা, ২০০৭।
২। নাসির হোসেন ২৯৫, রংপুর বিভাগ বনাম বরিশাল বিভাগ, চট্টগ্রাম ২০১৭
৩। মার্শাল আইয়ুব ২৮৯, সেন্ট্রাল জোন বনাম ইস্ট জোন, বগুড়া, ২০১৩
৪। মোসাদ্দেক হোসেন ২৮২, বরিশাল বিভাগ বনাম চট্টগ্রাম জোন, বিকেএসপি, ২০১৫
৫। শামসুর রহমান ২৬৭, সেন্ট্রাল জোন বনাম ইস্ট জোন, বিকেএসপি, ২০১৪

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় দিন শেষে ১৬৭ বলে ১২ চার ২ ছক্কায় ১০১ রানে অপরাজিত ছিলেন নাসির। তৃতীয় দিনের দ্বিতীয় সেশনে পেয়েছিলেন ডাবল সেঞ্চুরি। ৩৫১ বলে আসে নাসিরের এই দ্বি-শতক। তৃতীয় দিনের টি ব্রেক পর্যন্ত ৩৭৬ বলে ২৪ চার আর ২ ছক্কায় ২১৮ রানে অপরাজিত ছিলেন নাসির। তৃতীয় দিনশেষে ৪৬৭ বল খেলে ২৭০ রানে অপরাজিত ছিলেন এই ক্রিকেটার।

[আরো পড়ুনঃ রূপগঞ্জের কোচিং ডিরেক্টর বুলবুল]

1 of 1

Related Articles

ছুটি কমেছে টাইগারদের

ঘরোয়া লঙ্গার ভার্শনে মনোযোগ মাশরাফির

মাইলফলকের সামনে রাজ্জাক

অল্পের জন্য তামিমকে ছাড়িয়ে যেতে পারলেন না মিজানুর

নিজেকেও ছাড়িয়ে গেলেন মুমিনুল