SCORE

সর্বশেষ

মুশফিকের হাতেই থাকছে কিপিং গ্লাভস

পনের জানুয়ারি শুরু হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজকে সামনে রেখে মাশরাফি বিন মুর্তজাকে অধিনায়ক ও সাকিব আল হাসানকে সহ-অধিনায়ক করে এরই মধ্যে ১৬ জনের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট ( বিসিবি )। স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছেন তিনজন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। অটোচয়েজ মুশফিকুর রহিম এর সাথে এনামুল হক বিজয় মোহাম্মদ মিঠুন আছেন এই তালিকায়।

সংবাদমাধ্যম কর্মীদের এমন প্রশ্নের কারণও আছে। গেল বছরের সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে দ. আফ্রিকা সফরে দুই ম্যাচ সিরিজের টেস্ট ও প্রথম ওয়ানডেতে লাল-সবুজের উইকেট সামলেছেন লিটন দাস। পরে সেই দায়িত্ব মুশফিককে ফিরিয়ে দেয়া হয়। তাই বরাবরই এটা নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল যে একদিনের ম্যাচে স্টাম্পের পেছনে লাল সবুজ জার্সি গায়ে কে দাঁড়াবেন।

Also Read - বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষা দিলেন আল-আমিন

সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মুশফিককেই এগিয়ে রাখলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু, ‘নি:সন্দেহে প্রথম পছন্দ মুশফিকই। আর বিজয় তো বিপিএলেও দেখেছেন খুব বেশি ম্যাচ কিপিং করেনি, বাইরে ফিল্ডিং করেছে। যথেষ্ট ভাল ফিল্ডার সে। মিঠুনের বাইরে ভাল ফিল্ডিং করার সামর্থ্য আছে। সে হিসেবে ওদের ব্যাটিংটাই প্রথম পছন্দ।’

এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সেরা উইকেট কিপার ধরা হয় মুশফিকুর রহিমকেই। রাজশাহী কিংসের হয়ে গেল বিপিএলে উইকেট সামলেছেন তিনিই। অন্যদিকে রংপুর রাইডার্সের হয়ে উইকেটের পেছনে ছিলেন মিঠুন আর চিটাগাং ভাইকিংসের হয়ে লুক রনকির সাথে কিপিং গ্লাভস ভাগাভাগি করেছেন এনামুল হক বিজয়।

ওয়ানডেতে দেশের জার্সি গায়ে ১৪৩ ক্যাচ আর ৪০ স্টাম্পিং করেছেন মুশফিকুর রহিম। টেস্টে ৯৪ ক্যাচের পাশাপাশি ১৩ বার প্রতিপক্ষকে বোকা বানিয়েছেন স্টাম্পিং করে। সবচেয়ে ছোট সংস্করণে ২৩ ক্যাচের সাথে স্টাম্প ভেঙ্গেছেন একবার বেশি। ব্যাট হাতে সব ফরম্যাট মিলিয়ে আট হাজারের বেশি রান আছে পকেট ডায়নামো মুশফিকুর রহিমের।

অন্যদিকে বিজয় ধরেছেন ১০ ক্যাচ। ওয়ানডেতে কোন ক্যাচ বা স্টাম্পিং করতে পারেন নি মিঠুন। খেলেছেনই দুই ম্যাচ।

আরো পড়ুনঃ

হাথুরু’র বিদায়ে শেষ সৌম্য অধ্যায়ও!

1 of 1

Related Articles

কবে হবে রিভিউয়ের সঠিক ব্যবহার?

হোল্ডারের পাঁচ উইকেট, বড় লিড পেয়েছে উইন্ডিজ

তামিম ইকবাল ‘৩০০’ নট আউট

অন্যরকম মাইলফলকের অপেক্ষায় মুশফিক

‘আমরা বেশি মনোযোগী টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে ক্রিকেট নিয়ে’