SCORE

সর্বশেষ

অভিজ্ঞদের চাচ্ছেন সুজন

ঘরের মাঠে লঙ্কানদের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে নতুন ডাক পেয়েছিলেন ছয় জন। এক নাজমুল হোসেন অপু ছাড়া নিজেকে মেলে ধরতে পারেন নি কেউ, ভরাডুবি হয়েছে দুই ম্যাচেই।

উইকেটের পক্ষে সাফাই গাইলেন সুজনও

এদিকে শ্রীলঙ্কা, ভারত ও বাংলাদেশের অংশগ্রহনে ৬ মার্চ থেকে শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত হবে ত্রিদেশীয় নিদাহাস ট্রফি। যেখানে তরুণ ক্রিকেটারদের চাইতে টাইগারদের অভিজ্ঞ সদস্যদেরই বেশি প্রয়োজন হবে বলে মনে করছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাবেক অধিনায়ক ও সদ্য সমাপ্ত ত্রিদেশীয় ও শ্রীলঙ্কা সিরিজে বাংলাদেশ দলের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন।

Also Read - বোলিংয়ে কোয়েটা, খেলছেন মুস্তাফিজ

সুজন বলেন, ‘নিদাহাস কাপে যেহেতু ভারত- শ্রীলঙ্কা আছে। তাই একটু অভিজ্ঞ প্রয়োজন হবে বলে আমি মনে করি।’

নিদাহাস ট্রফিতেও বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব থাকবে এই সুজনের হাতেই। তাঁর নিশ্চয়ই দল নিয়ে কোনো পরিকল্পনা রয়েছে। কেননা প্রথমতো ফরম্যাটটি টি-টোয়েন্টির। দ্বিতীয়ত, বাংলাদেশের দুই প্রতিপক্ষ ভারত ও শ্রীলঙ্কা দু’দলই বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। এর ওপর খেলাটি শ্রীলঙ্কার ঘরের মাটিতে। এমন গুরুগম্ভীর দুই দলে সামনে বাংলাদেশ দল তারুণ্য নির্ভর হলে সাফল্য কতখানি আসবে সেটা খুব সহজেই অনুমেয়। তাই সুজন একথা বলেছেন।

তাছাড়া শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাটিতে সদ্য সমাপ্ত সিরিজে ছয় তরুণকে অভিষেক করানো হয়েছিলো যে লাভের আশায় সেই লাভের পরিমাণ খুব বেশি ছিল না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বড় মঞ্চে নিজদের মেলে ধরাটা এত সোজা নয়। তবে আগামীর কথা ভেবে তরুণদের একেবারেই অবজ্ঞা করতে চাইছেন না সুজন।

তাঁর মতে, ‘টি-টোয়েন্টিতে শুরু করতে হবে। একটা সময় খেলোয়াড়শূন্য হয়ে যাবে। সামনে যে লম্বা সূচি আসছে বাংলাদেশ টিমের সেখানে দেখা যাচ্ছে প্রায় ১৫৫দিন আমরা ট্যুরের মধ্যে থাকবো। এর মধ্যে বিশ্রাম নেই। এর মধ্যে ইনজুরি থাকতে পারে, অফফর্ম থাকতে পারে। ভবিষ্যতের কথা ভেবে প্লেয়ার তো তৈরি করতে।’

৬ মার্চ শুরু হয়ে তিন জাতির ‘নিদাহাস ট্রফি’ চলবে ১৮ই মার্চ পর্যন্ত।

আরো পড়ুনঃ

“হাতের অবস্থা দিন দিন ভালো হচ্ছে”

1 of 1

Related Articles

মতামত: কবে শিখবো টি-টোয়েন্টি?

“ক্রিকেটে এসব ঘটেই”

ওয়ালশও দেখভাল করছেন রিয়াদদের ব্যাটিং

ওয়ালশই থাকছেন হেড কোচ

“ফিটনেসের অবস্থা আগের চেয়ে ভালো”