SCORE

সর্বশেষ

কোহলি-রাহানের জুটিতে বিফলে ডু প্লেসিসের ১২০

ডারবানে ছয় ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকাকে ছয় উইকেটে হারিয়েছে ভারত। প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান ফাফ ডু প্লেসিস ১২০ রানের অসাধারণ এক ইনিংস খেললেও ২৭০ রানের বেশি করতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে ব্যাটিং করতে নেমে বিরাট কোহলি আর আজিঙ্কা রাহানের দুর্দান্ত জুটিতে ছয় উইকেটে ম্যাচ জিতে ভারত।

১১২ রানের ইনিংস খেলার পথে কোহলি। ছবি- বিসিসিআই
১১২ রানের ইনিংস খেলার পথে কোহলি। ছবি- বিসিসিআই

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দুই প্রোটিয়া ওপেনার কুইন্টন ডি কক এবং হাশিম আমলা খেলছিলেন দেখেশুনে। তাদের উদ্বোধনী জুটি বড় হতে দেয়নি জাসপ্রিত বুমরাহ। দলীয় ৩০ রানের মাথায় দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে হাশিম আমলাকে এলবিডব্লিউ করেন বুমরাহ। ভেতরে ঢুকতে থাকা বলটিতে পুরোপুরি পরাস্ত হন আমলা।

এরপর কককে সাথে নিয়ে ৫৩ রানের জুটি গড়েন ফাফ ডু প্লেসিস। ধীরে ধীরে হাত খুলতে থাকেন কুইন্টন ডি কক। তবে ভয়ঙ্কর হওয়ার আগেই ফিরে যান (৩০)। যুযবেন্দ্র চাহালের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে সাজঘরে ফিরেন তিনি। ডি ককের বিদায়ের পর দক্ষিণ আফ্রিকাকে চেপে ধরে ভারতীয় বোলাররা। দুই স্পিনার যুযবেন্দ্র চাহাল এবং কুলদীপ যাদব মিলে আটকে রাখেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের।

Also Read - চ্যাম্পিয়নশিপের লক্ষ্যেই মাঠে নামবে রূপগঞ্জ

মারক্রামকেও ফেরান চাহাল। ২১ বলে ৯ রান করেন তিনি। দারুণ এক ক্যাচ নেন হার্দিক পান্ডিয়া। থিতু হতে পারেননি জেপি ডুমিনিও। কুলদীপ যাদবের বলে বোল্ড হন তিনি। ১৮ বলে করেন ১২ রান। এক প্রান্ত আগলে রেখে খেলছিলেন ডু প্লেসিস।

অধিনায়ককে সঙ্গ দেন ক্রিস মরিস। প্রথমে কিছুটা মন্থর ব্যাটিং করলেও এরপর রানের গতি বাড়ান মরিস। ষষ্ঠ উইকেটে ৭৪ রানের জুটি গড়েন দুজন। ৪৩ বলে ৩৭ রান করে দলীয় ২০৮ রানের মাথায় কুলদীপ যাদবের ফ্লাইটে পরাস্ত হয়ে বোল্ড হন মরিস। তার ইনিংসে ছিল ৪ টি চার ও একটি ছয়।

১০১ বলে নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের নবম শতক তুলে নেন ডু প্লেসিস। ফেহলুকায়োকে নিয়ে ৫৬ রানের জুটি গড়েন ডু প্লেসিস। শেষ ওভারে ভুবনেশ্বরের শিকার হওয়ার আগে করেন ১২০ রান। ১১২ বলে ১২০ রানের ইনিংসে ছিল ১১ চার ও ২ ছয়। ৩৩ বলে ২৭ রান করে অপরাজিত ছিলেন ফেহলুকায়ো। তিন উইকেট শিকার করেন কুলদীপ। চাহাল পান দুই উইকেট।

২৭১ রানের টার্গেটে ব্যাটিং করতে নেমে ভারতকে ৩৩ রানের ভিত গড়ে দেন রোহিত শর্মা এবং শিখর ধাওয়ান। ২০ রান করে মরনে মরকেলের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে টাইমিংয়ে গড়বড় করেন রোহিত। বিদায় নেন ডি ককের তালুবন্দী হয়ে। ধাওয়ান ও বিরাট কোহলির জুটিও বড় হয়নি। দলীয় ৬৭ রানের মাথায় রান আউট হন ধাওয়ান (৩৫)।

এরপর আজিঙ্কা রাহানেকে সাথে নিয়ে হাল ধরেন বিরাট কোহলি। দুজন মিলে গড়েন ১৮৯ রানের জুটি। এ বিশাল জুটিতে ম্যাচ চলে আসে ভারতের অনুকূলে। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৩৩ তম শতক তুলে নেন ভারতের অধিনায়ক ভিরাট কোহলি। আজিঙ্কা রাহানের ব্যাট থেকে আসে ৭৯ রান। চমৎকার সব শট খেলেন দুজন। দারুণ ব্যাটিং করে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ছিটকে দেন ম্যাচ থেকে।

ফেহলুকায়োর বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ইমরান তাহিরের হাতে ধরা পড়েন আজিঙ্কা রাহানে। তখন ভারতের রান ২৫৬। জয় থেকে মাত্র ১৫ রান দূরে। ৭৯ রান করে সাজঘরে ফিরে যান রাহানে। নিজের পরের ওভারে ফেহলুকায়ো ফিরিয়ে দেন বিরাট কোহলিকে। ১১২ রান করে ফেহলুকায়োর শর্ট ডেলিভারি হুক করে ধরা পরেন রাবাদার হাতে। এর আগেও শর্ট ডেলিভারি দিয়ে কোহলিয়ে উড়িয়ে মারতে প্রলুব্ধ করেছিলেন ফেহলুকায়ো। ১১২ রান করে আউট হন কোহলি। তার ইনিংসে ছিল ১০ চার। এ শতক দিয়ে এখন পর্যন্ত যত দেশে খেলেছেন সব দেশে শতক হাঁকানোর রেকর্ড করেন ভারতের অধিনায়ক। এরপর হার্দিক পান্ডিয়া ও মহেন্দ্র সিং ধোনি মিলে ভারতকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন।

৭৯ রানের ইনিংস খেলে শচীন টেন্ডুলকার এবং ভিরাট কোহলিকে স্পর্শ করেন আজিঙ্কা রাহানে। টানা পাঁচ ওয়ানডেতে পঞ্চাশোর্ধ্ব রানের ইনিংস খেললেন রাহানে। এর আগে টেন্ডুলকার ও কোহলি এ কীর্তি গড়েন।

এ পরাজয়ের মধ্য দিয়ে ঘরের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার জয়ের রথ থামল। এ ম্যাচের আগে ঘরের মাঠে টানা ১৭ টি ওয়ানডে জিতেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা।

৪ ফেব্রুয়ারি সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে ভারত।

সংক্ষিপ্ত স্কোর ঃ

দক্ষিণ আফ্রিকা ২৬৯/৮,  ৫০ ওভার
ফাফ ডু প্লেসিস ১২০, ক্রিস মরিস ৩৭, কুইন্টন ডি কক ৩৪
কুলদীপ যাদব ৩/৩৪, যুযবেন্দ্র চাহাল ২/৪৫

ভারত ২৭১/৪, ৪৫.৩ ওভার
বিরাট কোহলি ১১২, আজিঙ্কা রাহানে ৭৯, শিখর ধাওয়ান ৩৫
আন্দিলে ফেহলুকায়ো ২/৪২, মরনে মরকেল ১/৩৫


আরো পড়ুন ঃ টাইগারদের ব্যাটিং উপদেষ্টা হচ্ছেন বেভান 


 

1 of 1

Related Articles

রুট-মরগানের ব্যাটিংয়ে সিরিজ জিতল ইংল্যান্ড

অধিনায়ক কোহলির নতুন রেকর্ড

ক্যান্সার সারাতে অস্ত্রোপচার হচ্ছে স্যার রিচার্ড হ্যাডলির

দ্বিপাক্ষিক সিরিজে মরগানের অনাগ্রহ

সাকিব-ঝলকের পরও ব্যাটসম্যানদের দৈন্যতা