SCORE

সর্বশেষ

অথচ এখনও এনসিএলের পারিশ্রমিকই পাননি ক্রিকেটাররা!

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোটামুটি চমক জাগানিয়া সাফল্য পেলেই দলকে মোটা অঙ্কের বোনাস দেওয়া যখন এখন রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। সর্বশেষ নিদাহাস ট্রফিতে শ্রীলঙ্কাকে দুইবার হারানোর পর ফাইনাল নিশ্চিত করলে জাতীয় দলকে এক কোটি টাকা বোনাস দেওয়ার ঘোষণা দেয় বিসিবি।

এনসিএলের ১৯তম আসরে সর্বাধিক রান সংগ্রাহক বিজয়।

দেশের জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা যখন বোনাস পাচ্ছেন একটু ভালো খেলেই, সেখানে ঠিক উল্টো চিত্র দেশের ক্রিকেটের মেরুদণ্ড খ্যাত জাতীয় ক্রিকেট লিগ- এনসিএলে। বোনাস দূরে থাক, সর্বশেষ এনসিএলের বেতনটাও এখন পর্যন্ত ক্রিকেটারদের হাতে আসেনি। এমনই তথ্য উঠে এসেছে দেশের শীর্ষস্থানীয় জাতীয় দৈনিক প্রথম আলোর একটি প্রতিবেদনে।

Also Read - বিসিবির চিন্তায় অধারাবাহিক তরুণরা

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে শুরু হয়ে মাঝখানে বিপিএলের জন্য কয়েকদিন স্থগিত ছিল খেলা। এরপর এনসিএলের এবারের মৌসুম শেষ হয় ডিসেম্বরে। নতুন বছরের তিনটি মাস অতিবাহিত হতে চলল, এখনও ঐ আসরের বকেয়া বেতন পাননি ক্রিকেটাররা।

টাকার অঙ্কে বেতনটাও নগণ্যই। ম্যাচ প্রতি ৩৫ হাজার টাকা করে পান দেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলা একেকজন ক্রিকেটার, যা কিনা পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের রঞ্জি ট্রফির পারিশ্রমিকের চেয়েও কম! তাও এর মধ্যে ১০ হাজার টাকা বেতন বেড়েছে গত আসরে। এর আগে খেলোয়াড়রা পেতেন ২৫ হাজার টাকা করে।

বিপিএল বা ডিপিএলের মতো এনসিএলের বেতন একসাথে পরিশোধ করার রীতি নেই। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টুর্নামেন্ট বলে ঐ দুই আসরে ত্বরিত গতিতে পারিশ্রমিক পেয়ে যান ক্রিকেটাররা। তবে এনসিএলের ক্ষেত্রে সেটি বিসিবি পরিশোধ করে থাকে একেবারে আসর শেষে। তিন মাস পরও পারিশ্রমিক পাননি জানিয়ে এনসিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন খুলনা বিভাগের এক ক্রিকেটার ঐ প্রতিবেদনে বলেন, ‘জাতীয় লিগের ম্যাচ ফি পেতে প্রতিবারই প্রায় পাঁচ-ছয় মাস লেগে যায়। অনেক সময় টাকা পেতে পেতে পরের জাতীয় লিগের সময় হয়ে আসে। অথচ বিপিএল-বিসিএলে এ সমস্যাটা দেখা যায় না।’

জানা গেছে, এবারের এনসিএলের বকেয়া দ্রুত পরিশোধের আশ্বাস দিয়েছিল বিসিবি। তবে সেটি কেন হয়নি, তা জানাতে গিয়ে বিসিবির এক কর্মকর্তার ব্যাখ্যা এমন- ‘লিগ শেষ হওয়ার দুই মাসের মধ্যে সাধারণত টাকাটা চলে যায়। এবার যে সমস্যাটা হয়েছে, আমরা সবার ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আগে দিতাম অ্যাকাউন্ট-পে চেক। এবার সব খেলোয়াড়ের অ্যাকাউন্ট নাম্বার জোগাড় করতেই একটু দেরি হয়েছে। অনেক খেলোয়াড়ের অ্যাকাউন্ট নাম্বারও ছিল না। আর বিসিবির যাঁরা চেক অনুমোদন করবেন তাদের বেশির ভাগই মাঝে শ্রীলঙ্কায় ছিলেন।’

আরও পড়ুনঃ এক বছরের মধ্যে তাসকিনের সিক্স প্যাক দেখতে চান লি!

1 of 1

Related Articles

বদলি হিসেবে এসে প্রথম দিনের নায়ক

তুষারের কাছে ‘এ’ দল ফিরে আসার মঞ্চ

ঘরোয়া ক্রিকেটে সুযোগ চান লেগ স্পিনাররা

দ্বিগুণেরও বেশি বাড়ল রাজ্জাকদের বেতন

শল্যবিদের ছুরির নিচে নাসির