মাশরাফিদের বিপক্ষেও জয় তুলে নিলো সোহানরা

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) এর চলতি আসরের সুপার লিগ পর্বে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। আগের ম্যাচে চান্দের শতকে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জকে হারিয়েছিল নুরুল হাসান সোহানের শেখ জামাল। এই ম্যাচেও উন্মুখ চান্দের সেঞ্চুরিতে প্রিমিয়ার লিগের অন্যতম শক্তিশালী দল আবাহনী লিমিটেডকে হারিয়েছে শেখ জামাল।

এর আগে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন আবাহনী অধিনায়ক নাসির হোসেন। টস হারলেও শুরুটা দারুণ করেন শেখ জামালের দুই ওপেনার চান্দ ও সৈকত আলী। দু’জনে মিলে গড়েন ৯০ রানের জুটি। আবাহনীর হয়ে প্রথম আঘাত হানেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ফেরান ৫৬ করা সৈকতকে। দ্বিতীয় উইকেটটিও পান সৈকত। কোন রান করা রাকিনকে ফেরান মিরাজ।

Also Read - সুপার লিগে জয়ে ফিরল মুশফিকরা

তৃতীয় উইকেট জুটিতে আবার ঘুরে দাঁড়ায় শেখ জামাল। তানভির হায়দার ও চান্দের অসাধারণ ব্যাটিং দলকে বড় সংগ্রহের পথ দেখাচ্ছিল। ৩১ করা তানভির হায়দার শিকার হন রান আউটের। দলীয় ২০০ পেরোতেই নিজের টানা দ্বিতীয় শতক পেয়ে যান চান্দ। ১০১ করা চান্দকে ফেরান মাশরাফি মুর্তজা। শেষ পর্যন্ত ২৫৬ রান সংগ্রহ করে শেখ জামাল। আবাহনীর হয়ে ৩টি উইকেট পান মাশরাফি।

এইদিনে ওপেনিং জুটিতে চমক নিয়ে আসে আবাহনী টিম ম্যানেজমেন্ট। নিয়মিত ওপেনার এনামুল হক বিজয়ের সঙ্গে দেখা যায় মাশরাফিকে। অবশ্য তাতে বেশি একটা লাভ হয়নি আবাহনীর। মাত্র ৭ করে আবু জায়েদের বলে ফিরতে হয় তাকে। কোন রান না করেই রাহির বলে সাজঘরে ফিরেন নাজমুল শান্ত। আগের ম্যাচে সেঞ্চুরিয়ান ভিহারি ও এনামুল বিজয় মিলে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলে থেমে যায় একটু পরেই।

ব্যক্তিগত ৩৪ রানে নাজমুল ইসলামের বলে আউট হন এনামুল। দলপতি নাসির ও ভিহারি মিলে ৪৫ রানের জুটি গড়লে সেটি ভাঙেন রবিউল। ২৮ রান করে সাজঘরে ফিরেন নাসির। শেখ জামালের জয় ততক্ষণে নিশ্চিত। মোসাদ্দেক ও মিরাজ মিলে শুধু পরাজয়ের ব্যবধানটাই কমিয়েছেন। শেষদিকে অলরাউন্ড পারফর্ম দেখান তাসকিন। মিরাজের ৩৫, মোসাদ্দেকের ২৭, তাসকিনের ৩১ এ ২৩০ রানে অলআউট হয় আবাহনী।

শেখ জামালের হয়ে তিনটি করে উইকেট লাভ করেন আবু জায়েদ রাহি ও রবিউল হক। সেঞ্চুরির জন্য ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন চান্দ। হারের পরেও পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছে আবাহনী।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
শেখ জামালঃ ২৫৬/৮ (৫০ ওভার)
চান্দ ১০১, সৈকত আলী ৫৬,
মাশরাফি ৩/৪৬, মিরাজ ২/৩৭, তাসকিন ২/৫৯,

আবাহনী লিমিটেডঃ ২৩০/১০ (৪৭.২ ওভার)
মিরাজ ৩৫, বিজয় ৩৪,  তাসকিন ৩১
আবু জায়েদ ৩/৫১

আরও পড়ুনঃ ২০ বছরের জন্য ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ রাজন!

1 of 1