SCORE

সর্বশেষ

সাকিব ফেরায় পূর্ণতা পাচ্ছে টাইগার স্কোয়াড

তিনি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। ফলে জয়ের জন্য ধুঁকতে থাকা একটি দলের জন্য তার অভাববোধ অনেক। সেটা চলতি সিরিজে ভালভাবেই টের পাচ্ছে টাইগাররা। তাকে রেখেই নিদাহাস ট্রফির স্কোয়াড তৈরি হলেও পুরো সুস্থ না হতে পারায় খেলতে পারেন নি এখনো। তবে আশার কথা চলতি ত্রিদেশীয় সিরিজেই লঙ্কানদের বিপক্ষে অলিখিত সেমিফাইনালে সুস্থ সাকিব ফিরছেন। তার অভাব দীর্ঘদিন ভুগিয়েছে বাংলাদেশকে। এবার তার ফেরায় পূর্ণতা পাচ্ছে টাইগার স্কোয়াড।

Image result for bangladesh team with sakib

২৭ জানুয়ারি ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের ফাইনালে আঙুলে চোট পান সাকিব। এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ আর টি-টোয়েন্টি সিরিজ থেকেও সরে দাঁড়াতে হয় তাকে। চোটের কারণে দীর্ঘদিন ভুগতে হয়েছে তাকে। প্রথমে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দেখাতে থাইল্যান্ডে যান। সেখান থেকে ঢাকায় ফিরে কলম্বো আসেন। কলম্বো থেকে পরে যান অস্ট্রেলিয়ায়। উন্নত চিকিৎসার জন্য থাইল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া হয়ে ফিরেছেন তিনি। তারপর মিরপুরে পুরোদমে অনুশীলন। আঙুলে চোট পেয়ে চিকিৎসাধীন সাকিব আশা করেছিলেন চলতি সিরিজেই ফিরবেন তিনি। নিদাহাস ট্রফির আগে বিসিবির সিদ্ধান্ত ছিল, সাকিব দলের সঙ্গে কলম্বোয় থাকবেন। কিন্তু, বিধি বাম। তাকে ছাড়াই শ্রীলঙ্কায় ভারতের বিপক্ষে হার দিয়ে শুরু করে বাংলাদেশ। পরের ম্যাচে মুশফিকের অতিমানবীয় ব্যাটিং অতি কঠিন সমীকরণ জয় করতে সাহায্য করে। কিন্তু তারপর গত ম্যাচে আবারো ভারতের বিপক্ষেই হারের জ্বালায় পুড়েছে টাইগাররা। ফলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পরের ম্যাচটি অঘোষিত সেমি-ফাইনালে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশের জন্য। এমন অবস্থায় সাকিবের ফিরে আসা দলের জন্য দারুণ সুসংবাদ বৈ কি!

Also Read - তাসকিনের ঘাটতি কোথায়? জানিয়েছেন ব্রেট লি

টসের সময় দু'দলের অধিনায়ক।

ভারতের বিপক্ষে গত ম্যাচে ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং আর অধিনায়কত্ব সব কিছুতেই পিছিয়ে পড়েছিলো বাংলাদেশ। বোলিংয়ে রান দেওয়ার প্রবণতা এই ম্যাচেও জারি ছিল। আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩ উইকেটে ১৭৬ রানের স্কোর গড়ে ভারত। বাংলাদেশি বোলাররা মোটামুটি নিয়ন্ত্রিত বোলিং করলেও শুরুতে উইকেট ফেলতে না পারার খেসারত দিয়েছে এদিন। দুই ওপেনার রোহিত শর্মা আর শেখর ধাওয়ান মিলে ৯.৪ ওভারের উদ্বোধনী জুটিতে তুলে ফেলেন ৭০ রান। রুবেল হোসেন দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে শেখর ধাওয়ানের স্ট্যাম্প উড়িয়ে দিলেও রোহিত শর্মা ৬১ বলে ৮৯ রানের ইনিংস খেলে দলকে বড় স্কোর এনে দেন। পেসার তাসকিন আহমেদের বদলে আবু হায়দার রনিকে নিয়েও রান বন্যা আটকানো যায়নি। নাজমুল ইসলাম আর রুবেল হোসেন ছাড়া বাকিরা রানের চাকা আটকাতে ব্যর্থ। মুস্তাফিজ আর আগের মতো নেই, তাসকিনের বদলি হয়ে একই পথের পথিক রনি। আর মিরাজকে দেখে মনে হলো এখনো অনেকদূর যেতে হবে তাকে। সেক্ষত্রে সাকিবের মতো দুর্দান্ত স্পিনার ফিরে আসলে স্পিনে অপূর্ণতা ঢেকে যাবে। একইদিনে ভারতীয় স্পিনারদের বল ফেলার দক্ষতা দেখে সাকিবের প্রয়োজনীয়তা স্পষ্টতই বুঝা গেছে।

আর ব্যাটিংটা শুধুই মুশফিকময়। আগের ম্যাচে ম্যাচ জিতিয়ে যে আশা তিনি দেখিয়েছিলেন এই ম্যাচেও সেই একই মুশফিক। পার্থক্য শুধু সেদিন তামিম-লিটন ছিলেন পার্শ্বনায়কের ভূমিকায়, কাল কেউ ছিলেন না। এদিনও বীরের মতো লড়ে অপরাজিত ৭২ রানের ইনিংস খেলেও পরাজিতের দলে মুশফিক। বাংলাদেশ মূলত ডুবেছে ওয়াশিংটন সুন্দরের স্পিনারের কাছে। আগের ম্যাচের দুই ইনফর্ম ব্যাটসম্যান তামিম-লিটনকে ফিরিয়ে ছন্দের খোঁজে থাকা সৌম্যকেও এই স্পিনার হার মানিয়েছেন। স্পিনে ঝলক দেখিয়েছেন যুজবেন্দ্র চাহালও। মাহমুদউল্লাহকে বাজে একটা বল উপহার দিয়েও উইকেট তুলে নিয়েছেন তিনি। আর সেখানেই আশার অনেকটা সমাপ্তি। তবু আশা হয়ে ছিলেন মুশফিক। আর সাব্বির কাল যেন মুশফিকের জন্য বাড়তি চাপ হয়ে মাঠে ছিলেন। নিজে রান তুলতে পারছিলেন না, মুশফিকের উপর যা আরও বেশী চাপ তুলে দিচ্ছিলো। মুশফিক তবু লড়াই করে গেছেন। একসময় সাব্বির দলকে আবারো বিপদে রেখে ফিরে গেলেন, রেখে গেলেন মুশফিকের উপর আকাশসমান চাপ। এদিন আর পারলেন না মুশফিক। পরে মিরাজ নামলেও যে ধরনের ব্যাটিং সেসময় করতে হয় তা তিনি করতে পারেন নি কিংবা পারেন না। ফলে আরও একজন ব্যাটসম্যানের অভাবও কাল ছিলই। সাকিব আসায় সে অভাবও পূর্ণ হলো।

 

সাকিবকে নিয়ে আশাবাদী কোচ

বাকি রইলো অধিনায়কত্ব। মাঠে বুদ্ধিদীপ্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে মাহমুদউল্লাহ কিছুটা পিছিয়েই ছিলেন। সেটা তার অনভ্যস্ততার কারণেও হতে পারে। আত্মবিশ্বাসী মাহমুদউল্লাহ চেষ্টা কম করেন নি, কিন্তু দলের সবার অবদানেই আসলে সাফল্য আসে। আর সাকিবের মতো খেলোয়াড় অনুপস্থিত থাকলে বড় ম্যাচ জেতা কঠিনই। টি-টোয়েন্টিতে ফিয়ারলেস ক্রিকেট খেলতে হয়, আর সাকিব সেই ফিয়ারলেস খেলোয়াড়দের অন্যতম উদাহরণ। তাকে পাওয়ায় উজ্জীবিত হবে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার ওপরই এবার বাড়বে চাপ। অঘোষিত সেমিতে এবার পূর্ণশক্তির বাংলাদেশ, এবার খেলা হবে।

– মোয়াজ্জেম হোসেন মানিক

আরও পড়ুনঃ তাসকিনের ঘাটতি কোথায়? জানিয়েছেন ব্রেট লি

1 of 1

Related Articles

রুবেল হোসেনের সমস্যা কোথায়?

নিদাহাস ট্রফি থেকে ৪৮২ শতাংশ লাভ!

অসুস্থ রুবেল, দোয়া চাইলেন সবার কাছে

যেখান থেকে শুরু ‘নাগিন ড্যান্স’ উদযাপনের

‘খারাপ করছি দেখেই বেশি চোখে পড়ছে’