SCORE

সর্বশেষ

সৌম্যর আক্ষেপ, সৌম্যর আফসোস

নিদাহাস ট্রফি গত হয়েছে কয়েকদিন হয়ে গেল। তবুও এখনও ঐ ম্যাচের দুঃস্মৃতি ভুলতে পারছেন না ম্যাচের ফাইনাল ওভারে বল করা সৌম্য সরকার।

সৌম্য সরকার

১৮ ফেব্রুয়ারি কলম্বোয় নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের শেষ ওভারে বল করেছিলেন সৌম্য। ঐ ওভারে ভারতের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ১২ রান। প্রথম ৫ বলে অতিরিক্ত রান সহ ভারত সংগ্রহ করে মাত্র ৭। শেষ বলে যখন পাঁচ রান দরকার, পুরো বাংলাদেশ তাকিয়ে ছিল সৌম্যর দিকে। যদিও ঐ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ভারতকে আনন্দে ভাসান দীনেশ কার্তিক।

Also Read - বৃষ্টিতে পুড়ল স্কটল্যান্ডের কপাল, বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

সৌম্য জানিয়েছেন, ঐ হারের স্মৃতির ক্ষত কীভাবে পুড়িয়েছে তাকে। বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল একাত্তর টিভিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘ড্রেসিংরুমের ভেতরে যখন কাঁদছিলাম তখন বেশি আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলাম। চিন্তা করার সময় ছিল, বেশি চিন্তা আসছিল মাথায়। যত সময় যাচ্ছিল চিন্তাটা আরও বাড়ছিল।’

শেষ বলে দেশকে কিংবা দলকে না জেতাতে পারার এই আফসোস সৌম্য বয়ে বেড়াবেন আজীবন। তিনি বলেন, ‘আফসোসটা থাকবেই সারাজীবন এই জিনিসটা নিয়ে, যখনই মনে পড়বে। আমি যদি ভালো বল করতাম অবশ্যই ১৬ কোটি মানুষ হাসত।’

সৌম্য মূলত বল হাতে নেন পার্ট টাইম বোলার হিসেবে। সেই বিবেচনায় এরকম গুরুত্ববহ মুহূর্তে এবারই তার প্রথম বল হাতে নেওয়া। ফলাফল পক্ষে না এলেও এদিন তিনি কুঁড়িয়ে নিয়েছেন সাহস, ‘আগে আমি বল করেছি কিন্তু এরকম ভাইটাল মোমেন্টে বল করিনি। এখন যে পরিস্থিতিতে বল করেছি, এটা থেকে বিশ্বাস এসেছে যে আমি যেকোনো সময় যেকোনো পরিস্থিতিতে বল করতে পারবো।’

সেই সাথে বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা টি-২০ ক্রিকেটের ছন্দ খুঁজে পেয়েছেন বলেন স্বস্তি তার। সৌম্য বলেন, ‘টি-২০ ক্রিকেট আমাদের ব্যাটসম্যান-বোলাররা ধরতে পেরেছে। আগে আমরা বড় ব্যবধানে হারতাম, ম্যাচ ক্লোজ হতো না। কিন্তু এখন আমরা ২০০ রান করছি, চেজ করছি… ক্রিকেট ধরার ব্যাপার আছে না, যেভাবে আমরা ওয়ানডে ক্রিকেট ধরেছি।’

আরও পড়ুনঃ ইনজুরির শিকার তামিম ইকবাল

1 of 1

Related Articles

রুবেল হোসেনের সমস্যা কোথায়?

নিদাহাস ট্রফি থেকে ৪৮২ শতাংশ লাভ!

অসুস্থ রুবেল, দোয়া চাইলেন সবার কাছে

যেখান থেকে শুরু ‘নাগিন ড্যান্স’ উদযাপনের

‘খারাপ করছি দেখেই বেশি চোখে পড়ছে’