SCORE

সর্বশেষ

রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে সিরিজের প্রথম হার টাইগ্রেসদের

তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচের শেষ ওভারের শেষ বলে ভাগ্য নির্ধারিত হলো ম্যাচের। তবে এবারে মুদ্রার উল্টো পিঠ দেখলো টাইগ্রেসরা। শেষ বলে এসে ম্যাচ হারল বাংলাদেশ। ইসাবেলা জয়েসের ব্যাট থেকে আসা এক রানে সিরিজের প্রথম ম্যাচ জিতে নিল আইরিশরা। আগের দুই ম্যাচ জিতে বাংলাদেশ নিজেদের করে নিয়েছিল সিরিজ। হলো না বাংলাওয়াশ।

রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে সিরিজের প্রথম হার টাইগ্রেসদের
বাংলাদেশের বিপক্ষে ব্যাট করছেন আইরিশ ব্যাটার ছবিঃ টুইটার

আইরিশদের সম্মান রক্ষার শেষ ম্যাচে টস জিতে সফরকারীদের ব্যাটিং এর জন্য আমন্ত্রণ জানান স্বাগতিক কাপ্তান লরা ডিলানি। আগের দুই ম্যাচেই আগে ব্যাট করে হেরেছে আইরিশরা। ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরু করে বাংলাদেশের ব্যাটাররা। ৪৭ রানের উদ্বোধনী জুটি আসে দুই ওপেনারের কাছ থেকে মাত্র সাত ওভারে। ২৭ বলে পাঁচ চারে ৩০ রান করে স্টাম্পিং এর ফাঁদে পড়ে আউট হন উইকেটরক্ষক শামীমা। এরপর আয়েশা রহমানের সাথে ৩০ রানের জুটি গড়েন সর্বোচ্চ স্কোর করা ফারজানা। ২৬ বলে ২৭ করে রান আউটে কাটা পড়েন আয়েশা।

একপাশ আগলে রেখে ব্যাট চালাতে থাকেন ফারজানা হক। নিগার সুলতানার সাথে জমে নি জুটিটা। ১৩ বলে আট রান করে সাজঘরে ফেরেন নিগার। অন্যদিকে ঠিকই নিজের অর্ধশতক তুলে নেন মারকুটে ফারজানা। ৩৯ বলে ৫০ তুলে নেন এই ব্যাটার।

Also Read - 'এ' দলে ডাক পেলেন বিজয়-এবাদত

সানজিদা ইসলাম নেমেও ব্যাট চালান। সেই সাথে ব্যাট চালান ক্রিজে সেট হয়ে থাকা ফারজানাও। ৪৭ বলে দুই ছয় আর ছয় চারে ৬৬ রানে অপরাজিত থাকেন ফারজানা। সানজিদা করেন ৬ বলে নয় রান। শেষদিকে নেমে দুই বলে তিন করেন ফাহিমা খাতুন।

শেষ তিন ওভারে বাংলাদেশ তোলে রান ৩৬ রান। বাংলাদেশের স্কোর গিয়ে দাঁড়ায় তিন উইকেটে ১৫১ রান, যা এই সিরিজের সর্বোচ্চ।

আয়াল্যান্ডের হয়ে রিচার্ডসন ও মেটকাফ একটি করে উইকেট নেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ধীরে ধীরে শুরু করে আইরিশরা। ছয় নম্বর ওভারে ২৮ রানে প্রথম উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। পান্না ঘোষের বলে ২২ বলে ২১ রান করে আউট হন ওপেনার শিলিংটন। সপ্তম ওভারের শেষ বলে সিসিলিয়া জয়েস ফিরে গেলে বিপাকে পড়ে আয়ারল্যান্ড। ১৬ বলে সাত রান করে ফিরেন জয়েস।

এরপর জুটি বাঁধেন লুইস ও কাপ্তান ডিলানি। তাদের জুটিতে জয়ের স্বপ্ন দেখা শুরু করে আইরিশরা। দুইজন খেলতে থাকেন নিজেদের মত। এগিয়ে নিতে থাকেন সিরিজে দলকে একটি জয় দিতে। অর্ধশতক তুলে নেন লুইস। সাত চারের মাধ্যমে করেন ৫০ রান। ৩১ বল খেলে ৫০ রানেই রান আউটের ফাঁদে পড়ে বিদায় নেন লুইস।

তাদের ৯৩ রানের জুটিতে জয় যখন চোখের সামনে তখনই রান আউটে কাঁটা পড়েন লুইস। এরপর আইরিশদের জয় নিয়ে দেখা দেয় শঙ্কা। ডিলানি ভরসা হয়ে টিকে থাকেন শেষ ওভারের আগ পর্যন্ত।

শেষ ওভারে দেখা দেয় চরম নাটকীয়তা। প্রথম তিন বলে আসে তিন রান। জাহানারা আলমের করা চতুর্থ বলে আউট হন কাপ্তান ডিলানি। ওয়াইড বলে রান আউট হন ব্যাটার। যাওয়ার আগে ৩৮ বলে পাঁচ চারে ৪৬ রান করেন ডিলানি। শেষ তিন বলে দরকার হয় সাত রান। শেষ তিন বলে দুই রান, এক চার আর শেষ বলে এক রান নিয়ে ম্যাচ জিতে আইরিশরা। বাংলাদেশের মেয়েদের বিদেশের মাটিতে বাংলাওয়াশ করার স্বপ্ন সত্যি হলো না আর।

১৪ বলে ২২ রান করে অপরাজিত থাকেন ইসাবেল জয়েস। বাংলাদেশের হয়ে একটি করে উইকেট নেন নাহিদা আকতার ও পান্না ঘোষ।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশঃ  ১৫১/৩ ( ২০ ওভার )

ফারজানা হক ৬৬*, শামীমা সুলতানা ৩০, আয়েশা রহমান ২৭

এইমিয়ার রিচার্ডসন ১/৩১, সিয়েরা মেটকাফ ১/৩২

আয়ারল্যান্ডঃ ১৫২/৪ ( ২০ ওভার )

গ্যাবি লুইস ৫০, লরা ডিলানি ৪৬, ইসাবেল জয়েস ২২

নাহিদা আকতার ১/২০ , পান্না ঘোষ ২৯/১

আরও পড়ুনঃ ‘এ’ দলে ডাক পেলেন বিজয়-এবাদত

Related Articles

২০১৯ সালের আগস্টে হবে আগামী অ্যাশেজ

আইরিশদের হারিয়ে বাছাইপর্বের সেরা বাংলাদেশ

সালমাদের পারফরম্যান্সে মুগ্ধ অঞ্জু

আয়ারল্যান্ডে অভিভাবক-সান্নিধ্যে নারী দল

বাংলাওয়াশ করতে টাইগ্রেসদের সংগ্রহ ১৫১