Scores

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ স্মৃতি: সাকিবের কাছে চ্যাম্পিয়নদের একমাত্র হার

অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে টানা ২ ম্যাচে সহজ জয় তুলে নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে প্রায় এক পা দিয়ে রেখেছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে ৯ উইকেটে জিম্বাবুয়েকে ও ২য় ম্যাচে ৭ উইকেটে স্কটল্যান্ডকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে ২৪ তারিখ পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। পাকিস্তানের বিপক্ষে এর আগে অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে ৩ বারের দেখায় ২ বার জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে গ্রুপ পর্বে ২ বারের দেখায় বাংলাদেশের জয় একবার। শেষ যেইবার বাংলাদেশ দল অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের দেখায় পাকিস্তানের বিপক্ষে জয় পায় তা ছিলো ২০০৬ সালে। কাকতালীয়ভাবে সেইবার পাকিস্তান চ্যাম্পিয়ন হয় অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে।

 

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ স্মৃতি: সাকিবের কাছে চ্যাম্পিয়নদের একমাত্র হার
ছবি : অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ পুরস্কার জয়ের পর সাকিব, ক্রিকইনফো / এন্ড্রু ম্যাগলানান

২০০৬ সালের অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে পাকিস্তান ভারতকে ফাইনালে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়। পুরো আসরে মাত্র একটি ম্যাচই হারে পাকিস্তান, যা ছিলো বাংলাদেশের বিপক্ষে। ২০০৬ সালের বিশ্বকাপের সেই ম্যাচটিতে পাকিস্তানকে হারানোর যেই নায়ক ছিলেন তিনি আর কেউ নয়, বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান।

Also Read - পাকিস্তান-বাংলাদেশ সিরিজ পরিচালনায় থাকছেন যারা


কলম্বোতে পাকিস্তান গ্রুপ পর্বের ম্যাচটিতে প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান। তবে পাকিস্তান মাত্র ১৭০ রানেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের বোলিং তোপে। বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ উইকেট নেন তরুন স্পিনার সাকিব আল হাসান। সাকিব আল হাসানের বোলিং তোপে দাড়াতেই পারেনি পাকিস্তানের টপ অর্ডার। পাকিস্তানের টপ অর্ডারের ৪ উইকেটের ৪টিই সাকিব আল হাসান নিজের ঝুলিতে সংগ্রহ করেন। ১০ ওভারের স্পেলে ৩৪ রান দিয়ে ৪ উইকেট পান সাকিব আল হাসান।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের ছুড়ে দেওয়া লক্ষ্যে পৌছে যায় বাংলাদেশ দল। সেই দিনও বাংলাদেশের বর্তমান ওয়ানডে ব্যাটিং অর্ডারের মতো তামিম ওপেনিংয়ে ও সাকিব আল হাসান ৩ নং পজিশনে ব্যাটিং করেন। ব্যাট হাতেও দুরন্ত সূচনা করেন সাকিব। লো স্কোরিং ম্যাচে ৩ নং পজিশনে নেমে ২৩ বলে ২৫ রান করেন সাকিব যার মাঝে ছিলো ৫টি বাউন্ডারি। তামিম ইকবাল করেন ১৮ রান। তবে মুশফিকের রহিমের দায়িত্বশীল ৪৬ রানে সহজেই জয়ের বন্দরে পৌছায় বাংলাদেশ দল।

অলরাউন্ড নৈপুণ্যের জন্য সেই ম্যাচ ম্যান অফ দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন সাকিব আল হাসান। অসাধারণ পারফরম্যান্সের পরও অল্পের জন্য ৫ম হয়েই শেষ হয় বাংলাদেশের সেই বিশ্বকাপ ক্যাম্পেইন।

পাকিস্তানের বিপক্ষে অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের বাংলাদেশের একমাত্র সেই জয়ের নায়ক তরুন সাকিব আজ বিশ্বের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় এই যুগের। অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে যেই শুরু তার প্রতিফলন মূল বিশ্বকাপে ২০১৯ সালেও দেখিয়েছেন সাকিব। শুক্রবার গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে পাকিস্তানের বিপক্ষে সাকিবের অনুজরা। জিততে পারলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে পরবর্তী রাউন্ডে সহজ প্রতিপক্ষ পাওয়ার সুযোগ থাকবে বাংলাদেশ দলের জন্য। এখন দেখার অপেক্ষা বাংলাদেশের যুবারা সাকিবদের সেই নৈপুণ্যের স্মৃতি ফিরিয়ে আনতে পারেন কিনা।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
Tweet 20
fb-share-icon20

Related Articles

বিশ্বকাপজয়ী যুবাদের প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা দেওয়ার দিনক্ষণ চূড়ান্ত

আকবর-ইমনদের লাখ টাকা পুরষ্কার বিকেএসপির

বাংলাদেশ ও ভারতের যুবাদের প্রতি শচীনের বার্তা

ক্রিকইনফোর বিশ্বসেরা একাদশেও নেতৃত্বে আকবর

যুবদলকে মুশফিকের ‘স্যালুট’