অভিষেকেই আলিস ইসলামের বিশ্বরেকর্ড

বিপিএলের এবারের আসরের নবম ম্যাচে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে শ্বাসরুদ্দকর ম্যাচে ২ রানের নাটকীয় জয় পেয়েছে ঢাকা ডায়নামাইস। নাটকীয়তায় ভরা এ ম্যাচে সবকিছুকে ছাপিয়ে গেছেন ঢাকার অভিষিক্ত স্পিনার আলিস আল ইসলাম। পরপর দুবার একই ব্যাটসম্যানের ক্যাচ ছাড়ার পর তারই হাত ধরে জয় পেয়েছে সাবেক শিরোপা জয়ীরা।

অভিষেকে হ্যাট-ট্রিক করে রেকর্ড বইয়ে আলিস আলি খান।
অভিষেকে হ্যাট-ট্রিক করে রেকর্ড বইয়ে আলিস আলি খান।

 

মোহাম্মদ মিঠুনের সহজ ক্যাচ হাতছাড়া করে দলকে জয় পাওয়ার শঙ্কায় ফেলেছিলেন আলিস আলি। এরপর ইনিংসের ১৬তম ওভারে বল করতে এসে ৪ চার ও ৮ ছক্কায় ৮৩ রান করা রাইলি রুশোকে সোহানের হাতে স্টাম্পড করে খেলায় ফেরান তিনি।

ভয়ঙ্কর রুশোর ৪৪ বলের ৮৩ রানের ঝড়ের পর তাকি ফিরিয়ে দিয়ে নিজের পরবর্তী ওভারে এসে ইতিহাস রচনা করেন তিনি। ১৮তম ওভারের প্রথম তিন বলে তিন রান খরচার পরের তিন বলে একে একে তিন উইকেট তুলে নেন তিনি। ৪৯ রান করা মিঠুনের পর প্রতিপক্ষের কাপ্তান মাশরাফিকে গোল্ডেন ডাক উপহার দিয়ে তুলে নেন ফরহাদ রেজার উইকেটও। আর এতে পূর্ণ হয় তার হ্যাটট্রিক।

Also Read - রংপুরকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ঢাকা


যা কিনা বিপিএলের ইতিহাসে কেবল তৃতীয় হ্যাটট্রিকের ঘটনা। ২০১১-১২ মৌসুমে মোহাম্মদ সামি ও ২০১৫-১৬ বিপিএল আসরের আল-আমিন হোসেনের পর এ রেকর্ডে নাম লেখান তিনি।

রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষের ম্যাচটি টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচ ছিল তার। যার ফলে অভিষেকেই হ্যাটট্রিক অর্জনের বিরল রেকর্ডে নাম লেখাতে সক্ষম হলেন তিনি। অভিষিকে এর আগে কোনো বোলার এমন রেকর্ড গড়েছিল কিনা এমন তথ্য কোথাও খুঁজে পাওয়া যায়নি।

হ্যাটট্রিক অর্জনের পর নিজের ও ইনিংসের শেষ ওভারে আবারও তার হাতে বল তুলে দেন সাকিব আল হাসান। এ ওভারেও নাটকীয় অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হন তিনি। তার করা প্রথম দুই বল থেকে চার আদায় করে নিয়ে রংপুরের জয়ের আশা টিকিয়ে রাখলেও, পরবর্তী চার বলে মাত্র ৩ রান দিয়ে দলকে ২ রানের জয় এনে দেন তিনি।


আরও পড়ুনঃ হায়দরাবাদে যেমন ছিল ওয়ার্নার-মুস্তাফিজ সম্পর্ক

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন