Scores

আইসিসির নিয়মে অসন্তুষ্ট শচীন; পরিবর্তনের দাবি

ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস) নিয়ে আইসিসি সিদ্ধান্তের সাথে দ্বিমত পোষণ করে মুখ খুলেছেন শচীন টেন্ডুলকার। এই কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান মনে করেন প্রযুক্তির সাহায্য নেয়া সিদ্ধান্তগুলো একেবারে স্পষ্ট হওয়া উচিত।

আইসিসির নিয়মে শচীনের অসন্তোষ, পরিবর্তনের দাবি

 

Also Read - রবিবার করোনা পরীক্ষা করাবেন মাশরাফি


দীর্ঘ দিন পরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে ক্রিকেট মাঠে ফিরলেও রয়েছে নানান প্রতিবন্ধকতা। যেমন, গ্যালারীতে বসে খেলা দেখার সুযোগ পাচ্ছেন না দর্শকরা, বিদেশি কোনো আম্পায়ার যাচ্ছেন না তাই সব দেশি আম্পায়ার দিয়েই ম্যাচ পরিচালনা করতে হচ্ছে। সবাই দেশি আম্পায়ার হওয়ায় একটি ডিআরএস বৃদ্ধির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন শচীন।

এটা দুই দলের জন্যই মঙ্গলজনক মনে করেন তিনি, ‘আইসিসির তিনটি ডিআরএস নিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্তের সাথে আমি একমত। বাইরের দেশের আম্পায়াররা আসতে পারছেন না ভ্রমণ জটিলতার কারণে। তিনটি রিভিউয়ের সিদ্ধান্তকে আমি সঠিক মনে করছি। এটা দুই দলের জন্য ভালো হয়েছে।’

কিন্তু লেগ বিফোর উইকেটের (এলবিডব্লিউ) ডিআরএস সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে আইসিসির নিয়মকে সমর্থন করেন না শচীন।

তিনি বলেন, ‘একটা ব্যাপারে আমি আইসিসির সাথে একমত নই, ডিআরএসের বেশ কিছু নিয়ম সঠিক মনে হয় না। এই যে এলবিডব্লিউয়ের সময় বলের ৫০ শতাংশ স্ট্যাম্পে লাগতে হয় অনফিল্ড আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের জন্য; আম্পায়ার নট আউট দিলেই রিভিউয়ে ৫০ শতাংশের বেশি বল স্ট্যাম্পে না লাগলে সেটা আউট পাওয়া যাবে না। এটা পরিষ্কার মনে হয় না।’

শচীনের মতে মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে সন্তুষ্ট হওয়া যাচ্ছে না বলেই তো খেলোয়াড়রা প্রযুক্তির কাছে যান, এক্ষেত্রে সিদ্ধান্তটা পুরোপুরি প্রযুক্তির উপরে ছেড়ে দিলে পরিষ্কার হবে বলে তার মত। ক্রিকেটের বাইরে শচীনের প্রিয় খেলা টেনিস। টেনিসের উদাহরণ দিয়েই তিনি বলেন, স্ট্যাম্পে আঘাত করলেই আউট দিতে হবে আর একেবারে না লাগলে আউট হবে না- এই নিয়ম হওয়া উচিত।

মাস্টারব্লাস্টারের ভাষায়, ‘আমার মনে হয়, বোলার অথবা ব্যাটসম্যান একজন অনফিল্ড আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে হতাশ হয়ে টিভি আম্পায়ারের কাছে আবেদনে যায়। যখন সেখানেই যাওয়া হচ্ছে তাহলে এটা প্রযুক্তির হাতেই ছেড়ে দেওয়া উচিত। আউট হতে হলে হয় স্ট্যাম্পে লাগতে হবে অথবা একেবারেই লাগা যাবে না; এর মাঝে আর কিছু রাখা উচিত না, টেনিসের মতো।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আমি জানি, অনেক মানুষই বলবে প্রযুক্তি শতভাগ সঠিক না। মানুষও কিন্তু শতভাগ সঠিক নয়। যেহেতু প্রযুক্তি ব্যবহার করছেন তাই এটা পুরোটা ব্যবহার করুন। কারণ একজন ব্যাটসম্যানের শরীরে লেগে যখন বলটা থেমে যায় তখন আপনাকে বলের বাউন্স, দিক পরিবর্তন অনেক কিছুই ভাবতে হয়।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ক্রিকেটে নতুন আইন চালুর আর্জি অশ্বিনের

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় আইসিসি

বিশ্বকাপের জন্য সুপার লিগ চালু করল আইসিসি

সৌরভকেই আইসিসির চেয়ারম্যান হিসেবে চান সাঙ্গাকারা

সুজনের জন্মদিনে আইসিসির শুভেচ্ছা