Scores

আবাহনীর স্বপ্নভঙ্গ, সেমিতে প্রাইম ব্যাংক

ডিপিএল টি-টোয়েন্টির চলমান আসরের গ্রুপ ‘এ’ এর ম্যাচে আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে দাপুটে জয় তুলে নিয়েছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। ৪৯ রানের দুর্দান্ত জয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে দলটির। আর তাদের কাছে হেরে সেমিতে যাওয়ার স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে আবাহনীর।

বড় জয়ে ডিপিএল টি-টোয়েন্টি শুরু প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের।

যে দল জিতবে তারাই যাবে সেমিফাইনালে, এমন সমীকরণ মাথায় রেখে টস জিতে প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় আবাহনী। ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ১৭৬ রানের পুঁজি পায় দলটি। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে আকাশী-নীলরা।

Also Read - রুবেল-বিজয়ে প্রাইম ব্যাংকের বড় সংগ্রহ


সাব্বির রহমান-মোসাদ্দেক হোসেনদের ব্যাটিং ব্যর্থতার দিন মুখ তুলে দাঁড়াতে পারেনি আর কোনো ব্যাটসম্যান। অলক কাপালি, আল-আমিন হোসেনদের বোলিং তোপে দলীয় ৬১ রানের মধ্যেই হারিয়ে বসে ৬ উইকেট। যার ফলে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় দলটি।

শেষ দিকে রুবেল হোসেন ব্যাট হাতে জ্বলে ওঠলেও পরাজয় এড়াতে পারেনি আবাহনী। রুবেলের.২৩ বলের ঝড়ো ৩৫ রানের ইনিংস শুধু পরাজয়ের ব্যবধান কমাতেই সাহায্য করেছে মোসাদ্দেকবাহিনীকে। ৩ চার ও ২ ছক্কায় ৩৫ রানের ইনিংসটি সাজান রুবেল।

তার ফিরে যাওয়ার পর শেষ পর্যন্ত আবাহনীর ইনিংস থামে ১২৭ রানে। এর ফলে জয়ের পাশাপাশি সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত হয় বিজয়দের।

প্রাইম ব্যাংকের বোলারদের মধ্যে তিনটি করে উইকেট লাভ করেন মোহর ও কাপালি। তাছাড়া দুটি উইকেট নেন আল-আমিন হোসেন।

টস হারের পর আবাহনীর আমন্ত্রণে প্রথমে ব্যাট করতে নামে প্রাইম ব্যাংক। দেখে-শুনে শুরু করলেও সময় বাড়ার সাথে সাথে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসতে থাকেন এনামুল হক বিজয় ও রুবেল মিয়া।

আক্রমণাত্বক ব্যাটিংয়ে বড় কিছু করার আভাস দেন বিজয়। তবে ইনিংসের নবম ওভারে সেই সম্ভাবনার মৃত্যু ঘটে জাকারিয়া ইসলামের বলে। ৪ ছক্কা ও ১ চারে ২২ বলে দ্রুতগতির ৩৭ করা বিজয়কে স্টাম্পড করে দলকে প্রথম সাফল্য এনে দেন তিনি।

বিজয় চলে গেলেও ছন্দ ঠিকই ধরে রাখেন রুবেল। এর মাঝে জাকির হাসান ১০ বলে ১৭ ও আল-আমিন ১৩ বলে ২০ রান করে আউট হলেও সাবলীল গতিতে বাড়িয়ে চলেন রানের খাতা। ৪ চার ও ২ ছক্কায় পূর্ণ করেন অর্ধশতক।

আবাহনীর বিপক্ষে প্রাইম ব্যাংককে বড় সংগ্রহ এনে দিয়েছেন বিজয়-রুবেল।
আবাহনীর বিপক্ষে রান পেয়েছেন প্রাইম ব্যাংকের দুই ওপেনারই।

 

ব্যক্তিগত অর্ধশতক পূর্ণের পর আরও আগ্রাসী ব্যাট চালাতে শুরু করেন তিনি। তার সাথে যুক্ত হন আরিফুল হকও। দুজনে মিলে পঞ্চম উইকেটে গড়েন ৪০ রানের জুটি।

মারকুটে ব্যাট করতে থাকা রুবেলকে ইনিংসের ১৯তম ওভারে থামান মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। নাজমুল হাসান শান্ত’র হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরার আগে তিনি করেন ৫৬ বলে ৭৬ রান। ৭ চার ও ৪ ছক্কায় এ রান করেন তিনি। এরপর আরও একবার দলকে বড় সংগ্রহ এনে দিতে লড়েন আরিফুল হক।

শেষ পর্যন্ত তার ১৫ বলের ২১ রানের সুবাদে ২০ ওভার শেষে স্কোরবোর্ডে ৬ উইকেটে ১৭৬ রান তুলতে সক্ষম হয় প্রাইম ব্যাংক। আবাহনীর বোলারদের মধ্যে একটি করে উইকেট নেন সাইফউদ্দিন, রুবেল, আরিফুল ও সাব্বির।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড-
প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব: (২০ ওভার)।
এনামুল ৩৭ (২২), রুবেল ৭৬ (৫৬), জাকির ১৭ (১০), আরিফুল.২১ (১৫), মিলন ১ (৩), মনির ১* (১) ; সাইফউদ্দিন ৪-০-২০-১।

আবাহনী লিমিটেড: ৯ উইকেটে ১২৭/৯ (২০ ওভার)।
রুবেল ৩৬ (২৩), মোসাদ্দেক ১৭ (১৪), সাইফউদ্দিন ১২ (১০); কাপালি ৪-০২২-৩, মোহর ৪-০-২৬-৩।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

‘লোভের বশে’, ‘লুকিয়ে’ ডিপিএল খেলেছেন সাইফউদ্দিন!

সৌম্যকে যেভাবে সাহায্য করেছেন জাফর

ওয়াসিম জাফরের পরামর্শ কাজে লাগানোর প্রত্যাশা

তাণ্ডবের আগে ‘নার্ভাস’ ছিলেন সৌম্য

গর্বিত ‘অধিনায়ক মোসাদ্দেক’, কৃতিত্ব মাশরাফিকে