আম্পায়ারকে বোকা বানিয়ে উইকেট আদায় করেছিলেন বিজয়

২০১৪ এশিয়া কাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন এনামুল হক বিজয়। যদিও তার অভিষেক শতকের ম্যাচে বাংলাদেশ হেরে যায় ৩২৬ রান করেও। শহীদ আফ্রিদির ঝড়ো ব্যাটিংয়ে মিরপুরের সেই ম্যাচে ম্লান হয়ে গিয়েছিল বিজয়ের ১০০ রানের ইনিংস। 

জোর করে মাকসুদকে সাজঘরে পাঠিয়েছিলেন বিজয়!
ঐ ম্যাচে দুর্দান্ত এক শতক হাঁকান বিজয়। ফাইল ছবি

তবে ঐ ম্যাচজুড়ে বিজয় স্লেজিং করে গেছেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানদের। আঙুলের চোটের কারণে মুশফিকুর রহিম কিপিং করতে পারেননি। উইকেটের পেছনে ছিলেন বিজয়। শতক হাঁকানোর পর যখন গ্লাভস পরে মাঠে নামলেন, তখন ক্রমাগত স্লেজিং করছিলেন আফ্রিদি-হাফিজদের।

Advertisment





তবে ঐ ম্যাচেরই এক অপ্রকাশ্য তথ্য ফাঁস করেছেন বিজয়। বিডিক্রিকটাইম এর লাইভ আড্ডায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে এক ভক্তের প্রশ্নের জবাবে বিজয় জানান, সেই ম্যাচে জোর করে সোহাইব মাকসুদকে সাজঘরে পাঠিয়েছিলেন তিনি।

৫ রানের ব্যবধানে মোহাম্মদ হাফিজ ও মিসবাহ উল হককে হারানোর পর ক্রিজে আসেন মাকসুদ। ৪ বলে ২ রান করা মাকসুদ পঞ্চম বলে মুমিনুল হকের ডেলিভারিতে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন। যদিও বিজয়ের দাবি, উইকেটের পেছনে তিনি ক্যাচ ধরলেও বলটি ব্যাট ছুঁয়ে আসেনি, আম্পায়ার বিজয়ের জোরালো আবেদন বিবেচনা করে আউটের সংকেত দেন।






বিজয় বলেন, ‘পাকিস্তানের বিপক্ষে যে ম্যাচে আমি সেঞ্চুরি করলাম, ঐ ম্যাচে ফাটিয়ে স্লেজিং করেছি। যাকে পেয়েছি তাকেই স্লেজিং করেছি। সোহাইব মাকসুদের ব্যাটে এজ হয়নি, আমি চিৎকার করে আউট আদায় করে নিয়েছিলাম। ঐদিন হাফিজ থেকে শুরু করে পাকিস্তানের সবাইকে অনেক স্লেজিং করেছি। এখনই আউট হবে, আমাদের বল খেলতে হবে না, উইকেট ভালো না এসব বলে উত্যক্ত করছিলাম।’ 

এশিয়া কাপে ভারতের বিপক্ষেও স্লেজিং করেছিলেন বিজয়। যদিও তাকে স্লেজিং করলে তা খুব একটা কানে নেন না বলে দাবি এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের।

‘ঐ আসরেই ভারতের বিপক্ষে শিখর ধাওয়ানকে স্লেজিং করেছি। তবে ব্যাটিং করলে স্লেজিং শুনি না। বোঝারও চেষ্টা করি না, শুনিও না।’– বলেন তিনি।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।