দীর্ঘ বিরতি কাটিয়ে এনসিএল দিয়ে মাঠে ফিরছেন আল-আমিন

‘মেঘে মেঘে কেটে গেছে অনেক বেলা’র মত করে বলা যায়, চোটে চোটে কেটে গেছে আল-আমিন হোসেনের ৯ মাস। এই সময়ে কোনো ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি তিনি। অবশেষে জাতীয় দলের এই পেসারের অপেক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে জাতীয় লিগ দিয়ে।

আল-আমিন ও রুবেল বাদ পড়ার কারণ

Advertisment

আল-আমিন সর্বশেষ প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলেছেন ২০২০ সালের ডিসেম্বরে, বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে। এরপর থেকেই চোট ছিল নিত্যসঙ্গী হয়ে। তবে এই সময়ে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার পাশাপাশি প্রচুর অনুশীলন করেছেন।

আরও পড়ুন : ‘বায়োমেকানিক্যাল এসেসমেন্টে’র জন্য দেশের বাইরে যাচ্ছেন হাসান

তাই মাঠে ফেরার আগে তার ছন্দও আছে ভালো। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জানিয়েছেন, আল-আমিন আগের মতই বল করতে পারছেন। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আসন্ন জাতীয় লিগ তথা এনসিএল দিয়ে ম্যাচ খেলা শুরু করবেন তিনি।

দেবাশীষ বলেন, ‘আল-আমিনের পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শেষ পর্যায়ে। ও মোটামুটি শতভাগ এফোর্ট দিয়ে বোলিং করছে। এখন পর্যন্ত ওর অগ্রগতি যথেষ্ট সন্তোষজনক। আমরা আশা করি এনসিএলে ওর খেলার সম্ভাবনা আছে।’

অসুবিধা হলে দুই দলেরই হবে আল আমিন

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে পেসারদের বেশ ধকল সামলাতে হয়। আল-আমিনের এনসিএলে ফেরার প্রস্তুতিই বলে দিচ্ছে, এই মুহূর্তে তিনি খেলার জন্য পুরোপুরি ফিট। কয়েকদিন আগে গণমাধ্যমকে অবশ্য আল-আমিন জানিয়েছেন, তার দৃষ্টি ঘরোয়া ক্রিকেটের প্রত্যাবর্তন ছাপিয়ে জাতীয় দলে।

তিনি জানান, ‘একসময় জাতীয় দলে দাপটের সাথে খেলেছি। এখন দলের সাথে নেই। সামনে জাতীয় লিগ আছে। ফিটনেস টেস্টও আছে। ফিটনেস আরও ভালো করে কীভাবে জাতীয় লিগ দিয়ে জাতীয় দলে ফেরা যায় সেই চেষ্টা করছি।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।