কার্তিককে ব্যাটিং দিতে স্বেচ্ছায় আউট হতে চেয়েছিলেন ডু প্লেসি

ক্রিকেটে যেন ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে স্বেচ্ছায় আউট হওয়ার বিষয়টি। চলমান ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে রবিচন্দ্রন অশ্বিন স্বেচ্ছায় আউট হয়ে ড্রেসিংরুমে ফিরেছিলেন রাজস্থান রয়্যালসের ভারতীয় তারকা রবিচন্দ্রন অশ্বিন। সেই ঘটনা নিয়ে অনেক আলোচনা আর সমালোচনা হয়েছে। এবার একই পথ মাড়াতে চেয়েছিলেন রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি।

কার্তিককে ব্যাটিং দিতে স্বেচ্ছায় আউট হতে চেয়েছিলেন ডু প্লেসি
শেষপর্যন্ত দুজনই অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন।

শেষপর্যন্ত স্বেচ্ছায় আউট না হলেও প্রোটিয়া তারকা ম্যাচ শেষে জানিয়েছেন, কেন তিনি নিজ থেকেই মাঠ ছাড়তে চেয়েছিলেন।  সানরাইজার্স হায়দরাবাদের দিনে ৬৭ রানের রাজসিক জয়ের দিনে ৫০ বলে ৭৩ রান করে অপরাজিত ছিলেন ডু প্লেসি। তবে স্ট্রাইক রেট বিচারে নিজের ব্যাটিং নিয়ে পুরোপুরি সন্তুষ্ট ছিলেন না তিনি। অন্যদিকে দীনেশ কার্তিক তখন ক্রিজে নামার অপেক্ষায়, যিনি ব্যাট হাতে হয়ে উঠেছেন বোলারদের ত্রাস।

Advertisment

আর তাই নিজে উইকেটে সেট হওয়া সত্ত্বেও ডু প্লেসি স্বেচ্ছায় আউট হয়ে কার্তিককে ক্রিজে পাঠাতে চেয়েছিলেন। এজন্য তিনি আউট হওয়ারও চেষ্টা করেছেন, তা না পেরে রিটায়ার্ড আউট হওয়ার কথাও ভেবেছেন। ডু প্লেসি বলেন, ‘ও যেভাবে ছক্কা হাঁকাচ্ছে, তাতে আমরা সবাই চাই ও আরও আগে ব্যাট হাতে ক্রিজে নামুক এবং যতক্ষণ সম্ভব ব্যাট করুক। সত্যি বলতে আমি নিজেই একসময় আউট হওয়ার চেষ্টা করছিলাম। কারণ আমি খুব ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলাম এবং চাইছিলাম কার্তিক দ্রুত ব্যাট করতে নামুক। আমি তো রিটায়ার করার বিষয়েও ভাবছিলাম।’

 

সঞ্চালক হার্শা ভোগলে অবাক হয়ে ডু প্লেসির কাছে জানতে চান, তিনি কি অশ্বিনের মত রিটায়ার্ড আউট হওয়ার কথা ভাবছিলেন কি না। জবাবে ডু প্লেসি বলেন, ‘হ্যাঁ, রিটায়ার্ড আউট হতে চাইছিলাম। তবে আমরা তার পরপরই ম্যাক্সওয়েলের উইকেটটা হারিয়ে ফেলি।’

ম্যাক্সওয়েলের বিদায়ের পর মাত্র ৮ বল মোকাবেলা করে ৩০ রান করে ফেলেন কার্তিক, হাঁকান ১টি চার ও ৪টি ছক্কা। উইকেট যে ব্যাটারদের পক্ষে নয় তা বোঝাই যায়নি কার্তিকের ব্যাটিং দেখে। তার প্রচেষ্টায় দল জড়ো করে ১৯২ রানের পাহাড়। কার্তিকের প্রশংসা করে ডু প্লেসি বলেন, ‘কার্তিক দারুণ ফর্মে রয়েছে। পিচ বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল। প্রথম থেকে নেমেই মারতে পারা সহজ ছিল না। কার্তিক ছাড়া বাকি ব্যাটাররা সকলেই কিন্তু প্রথম দিকে বেশ কষ্টে পড়ছিল। ভাগ্যবশত ওর ক্যাচ ড্রপ হয় এবং তারপর প্রতিপক্ষকে ছিন্ন-ভিন্ন করে দেয়।’ 

এর আগে আসরের শুরুতে রাজস্থান রয়্যালস ও লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্টসের ম্যাচে প্রত্যাশা অনুযায়ী রান তুলতে না পারায় রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে ডাগ আউট থেকে বার্তা পাঠানো হয়, রিটায়ার্ড আউট হিসেবে তিনি যেন সাজঘরে চলে আসেন। ২৩ বলে ২৮ রানে অপরাজিত অশ্বিন দলের নির্দেশনা মেনে চলে আসেন মাঠের বাইরে। নতুন ব্যাটার হিসেবে তখন মাঠে নামেন রিয়ান পরাগ, যিনি ৪ বলে করেন ৮ রান।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।