Scores

কোয়ার্টারে বাংলাদেশের হারানোর কিছু ছিলনা, উপস্থাপকের হাস্যকর দাবি

অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সেমিফাইনালে লড়বে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সেমিতে জায়গা করে নেওয়া নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ১৯ দল যে রকম পারফরম্যান্স করেছে গত কয়েক বছরে তাতে বাংলাদেশের ভক্তদের আশা ছিল এই দল বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা সাফল্য নিয়ে আসবে অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে।

বাংলাদেশের হারানোর কিছু ছিলোনা কোয়ার্টারে, উপস্থাপকের হাস্যকর কথাবার্তা

বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালের আগে বাংলাদেশ দলের কোনো ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচার করা হয়নি। কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচটি এই আসরে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ছিল যেটি সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। তবে বাংলাদেশ দল নিয়ে বিভিন্ন ধারাভাষ্যকার ও উপস্থাপকের কথা শুনে মনে হয়েছিলো সরাসরি সম্প্রচারের আগে কেউই বাংলাদেশ দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স নিয়ে আলোচনা করেনি।

Also Read - তামিমের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস ছিল ‘আউটস্ট্যান্ডিং’


বাংলাদেশের এই দল ধারাবাহিক ভালো পারফরম্যান্স করে এসেছে গত একবছরে। যার শুরু গত বছর ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে সিরিজ জয়ের পর আগস্টে ইংল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে ইংল্যান্ডকে তাদের মাটিতেই ৩ বার ও ভারতকে ১ বার হারিয়ে ফাইনাল খেলে বাংলাদেশ দল। ফাইনালেও ভালোই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বাংলাদেশ দল।

পরবর্তীতে এশিয়া কাপের ফাইনালেও যায় বাংলাদেশ দল। ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে টানটান উত্তেজনার ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে শেষ সময়ে এসে হারতে হয় বাংলাদেশকে। তবে বাংলাদেশ দলের লড়াইয়ের মানসিকতা প্রশংসা কুড়ায় ভক্তদের। এরপর নিউজিল্যান্ডের মাটিতে নিউজিল্যান্ডকে ৪ -১ এ হারায় বাংলাদেশ দল। পরবর্তীতে ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও সিরিজ জিতে যুবারা। তাই বিশ্বকাপের আগের এক বছরের পারফরম্যান্স দেখে নিশ্চিত ভাবে বলা যায় এই বিশ্বকাপ জয়ের সেরা ২ দাবিদারের এক দাবিদার ছিল বাংলাদেশ।

অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকা অনূর্ধ্ব ১৯ দল নিজেদের সবচাইতে বাজে সময়ের মাঝে দিয়ে যাচ্ছিলো। ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৭ -০ তে হোয়াইটওয়াশ হয় বিশ্বকাপের আগেই। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেও হারে দক্ষিণ আফ্রিকার এই দল। কাগজে কলমে পরিষ্কার ফেভারিট ছিল বাংলাদেশ দল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। তবে খেলা শুরুর আগে উপস্থাপকের কথাবার্তায় তার ছিটেফাটাও ছিলনা।

দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যান জেপি ডুমিনি খেলার আগে আলোচনায় দক্ষিণ আফ্রিকাকে ফেভারিট বলেছিলেন। উপস্থাপক নবকৃষ্ণ তাকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন, “যেহেতু এই খেলায় বাংলাদেশের হারানোর কিছুই নেই। দক্ষিণ আফ্রিকা ফেভারিট, তারা চাপে থাকবে, তাহলে বাংলাদেশ ভয় ছাড়া খেলতে পারবে? “

উত্তরে ডুমিনি বলেন, ” এই খেলায় বাংলাদেশের হারানোর কিছু নেই, তারা আন্ডারডগ। দক্ষিণ আফ্রিকাই চাপে থাকবে “

উপস্থাপক ও ডুমিনির কথাবার্তা শুনে মনে বাংলাদেশের ভক্তরা বেশ অবাকই হয়েছিল। কারণ খেলার আগে দুই দলের সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান দেখলে পরিষ্কার যে কেউ বুঝতে পারতো এই খেলায় বাংলাদেশ ফেভারিট। এত শক্তিশালী দল নিয়েও যদি বাংলাদেশ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জিততে না পারতো তাহলে হয়তো সবকিছুই হারানোর ছিল। সেখানে বাংলাদেশের কিছু হারানোর নেই বলাতে বুঝাই যায় উপস্থাপক বা ধারাভাষ্যকার ডুমিনি কেউই খেলায় ধারাভাষ্য দেওয়ার আগে কেউই দল নিয়ে কোন গবেষণা করেননি।

বাংলাদেশ দলকে বারবার স্পিনের সমৃদ্ধ দল বলা হয়েছে। রকিবুল অসাধারণ একজন বোলার হওয়া সত্ত্বেও গত একবছরে বাংলাদেশের বেশিরভাগ সাফল্যের মূলে রকিবুল ছাড়াও ছিলেনতিন পেসার-সাকিব, শরিফুল ও মৃত্যুঞ্জয়। গ্রুপ পর্ব পর্যন্ত স্পেশালিস্ট স্পিনার হিসেবে শুধু রকিবুলকেই খেলিয়েছে বাংলাদেশ দল। এই নতুন বাংলাদেশের পেসাররাও যে দলকে ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকায় ম্যাচ জিতাতে পারে তার প্রমাণ বাংলাদেশের পেসাররা দিয়ে এসেছে লাগাতার। একমাত্র পমি এমবাংগওয়া ছাড়া কেউই সেই ব্যাপারটি তুলে ধরেননি।

বাংলাদেশের পেসাররা সেমিফাইনালে স্পিনারদের পাশাপাশি নিজেদের যোগ্যতা বিশ্ববাসীকে দেখাবে এটাই প্রত্যাশা সকলের। কারণ এর আগেও নিউজিল্যান্ডের মাটিতে নিউজিল্যান্ডকে উড়িয়ে দেওয়ায় বড় ভূমিকা ছিল তাদের।

 

Related Articles

বিশ্বকাপজয়ী অনূর্ধ্ব-১৯ দলের নতুন স্কোয়াড ঘোষণা

করোনায় যুবাদের ছন্দভঙ্গ, মৃত্যুঞ্জয়ের চোট-পুনর্বাসন বাড়িতেই

বিশ্বকাপজয়ী যুবাদের জন্য বিসিবির ২৫ লক্ষ টাকার পুরস্কার ঘোষণা

বিশ্বকাপজয়ী যুবাদের প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা দেওয়ার দিনক্ষণ চূড়ান্ত

আকবর-ইমনদের লাখ টাকা পুরষ্কার বিকেএসপির