Scores

ক্রিকইনফোর চোখে বিপিএলের সেরা একাদশ

ইএসপিএন ক্রিকইনফো পারফরম্যান্সের বিচারে তামিম ইকবালকে অধিনায়ক করে বিপিএলের সেরা একাদশ প্রকাশ করেছে। যেখানে রয়েছে ঢাকা ডায়নামাইটস ও রংপুর রাইডার্সের ক্রিকেটারদের আধিক্য। যেখানে রয়েছেন ৭ জন দেশি ক্রিকেটার ও ৪ জন বিদেশি ক্রিকেটার।

ইএসপিএন ক্রিকইনফো তাদের দলে ওপেনার হিসেবে রেখেছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ওপেনার তামিম ইকবাল ও ঢাকা ডায়নামাইটসের ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার সুনীল নারাইনকে। ব্যাটসম্যান হিসেবে আছেন এবি ডি ভিলিয়ার্স (রংপুর রাইডার্স), ইয়াসির আলী (চিটাগাং ভাইকিংস), রাইলি রুশো (রংপুর রাইডার্স)। উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে আছেন চিটাগাং ভাইকিংসের মুশফিকুর রহিম।

মিডল অর্ডারে আরো আছেন ঢাকা ডায়নামাইটসের সাকিব আল হাসান ও আন্দ্রে রাসেল। অলরাউন্ডার সাকিব ও নারাইন ছাড়া আর কোনো স্পেশালিষ্ট স্পিনার জায়গা পাই নি দলে। বোলারদের তিনজই হলেন দেশি পেসার। মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা (রংপুর রাইডার্স), তাসকিন আহমেদ (সিলেট সিক্সার্স) ও রুবেল হোসেন (ঢাকা ডায়নামাইটস)।

Also Read - বিপিএলে পুরুষের জগতে নারীর শক্তি


ব্যাটিং অর্ডার অনুসারে ইএসপিএন ক্রিকইনফোর একাদশটি:-

১. তামিম ইকবাল
১৪ ম্যাচে তামিমের সংগ্রহ টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৬৭ রান। এই আসরে এক ইনিংসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৪১ (অপরাজিত) রানের টর্নেডো ইনিংসটিও তাঁর। অধিনায়কের আর্মব্যান্ড দেয়া হয়েছে তামিমকে।

সেঞ্চুরির পর তামিম ইকবাল

২. সুনীল নারাইন
মূলত একজন বোলার থেকে ওপেনিং ব্যাটসম্যান বনে যাওয়া নারাইন এখন যেকোনো দলের জন্যই হুমকিস্বরূপ। ব্যাটে-বলে সমানতালে দলের জন্য অবদান রাখা নারাইন বিপিএলে ১৫ ম্যাচে করেছেন ২৭৯ রান ও শিকার করেছেন ১৮ উইকেট।

৩. এবি ডি ভিলিয়ার্স
রংপুর রাইডার্সের হয়ে মাত্র ৬ টি ম্যাচ খেলেছেন ডি ভিলিয়ার্স। ৬ ম্যাচেই এক সেঞ্চুরিতে করেছে ২৪৭ রান।

৪. ইয়াসির আলী
এবারের বিপিএলে বিশেষভাবে নজর কেড়েছেন ব্যাটসম্যান ইয়াসির আলী। ১১ ম্যাচে তাঁর সংগ্রহ ৩৯৭ রান।

৫. রাইলি রুশো
পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে চার-ছয়ে মাঠ মাতিয়েছেন রাইলি রুশো। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ ৫৫৮ রান তাঁর। খেলেছেন ১৪ টি ম্যাচ।

৬. মুশফিকুর রহিম।
যদিও বিপিএল জুড়ে উইকেটকিপিং করা হয়নি মুশফিকের তবে এই দলে একমাত্র উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে আছেন মুশফিকই। ১৩ ম্যাচে তাঁর সংগ্রহ ৪২৬ রান।

বিপিএলে সর্বাধিক রান সংগ্রাহক মুশফিকুর রহিম।

৭. সাকিব আল হাসান
টুর্নামেন্টের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে ছাড়া অসম্পূর্ণ থেকে যেতো সেরা একাদশ। ১৫ ম্যাচে সাকিবের ঝুলিতে ২৩ উইকেট ও ব্যাট হাতে ৩০১ রান।

৮. আন্দ্রে রাসেল
ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার রাসেলের সংগ্রহ ১৫ ম্যাচে ২৯৯ রান ও ১৪ উইকেট।

৯. মাশরাফি বিন মর্তুজা
মাশরাফির শিকার টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২২ টি উইকেট। তিনি ম্যাচ খেলেছেন ১৪ টি। সেরা বোলিং ১০ রানেত বিনিময়ে ৪ উইকেট।

১০. তাসকিন আহমেদ
১২ ম্যাচেই তাসকিনের সংগ্রহ মাশরাফির সমান ২২ টি উইকেট। শেষ ম্যাচে ইনজুরিতে পড়ে বোলিং কোটা সম্পূর্ণ করতে পারেননি তিনি।

১১. রুবেল হোসেন
১৫ টি ম্যাচে রুবেলেরও সংগ্রহ মাশরাফি-তাসকিনের সমান ২২ টি উইকেট।

 

[আরও পড়ুনঃ সেরা বোলারদের তালিকায় দেশীদের জয়জয়কার]

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

‘সাবেক ফ্র্যাঞ্চাইজিদের’ অন্য উপায় বলে দিলেন পাপন

যেভাবে বেড়ে যায় বিদেশি ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক!

তোমাদের বিপিএলে এখনো পেশাদারিত্ব আসেনি: রশিদ খান

কাঁদলেন নাফিসা, অংশ হতে চান বঙ্গবন্ধু বিপিএলের

এ বছর বিপিএল হওয়ার সুযোগ নেই: লোটাস কামাল