Scores

চারে ব্যাটিং উপভোগ করেন মিঠুন

ঘরোয়া ক্রিকেটে চার নম্বর ব্যাটিং পজিশনে খেলে অভ্যস্ত তিনি। সাম্প্রতিক সময়ে জাতীয় দলের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান হয়ে উঠেছেন, সেখানেও ব্যাট করছেন চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে। জাতীয় দলের ক্রিকেটার মোহাম্মদ মিঠুন জানিয়েছে, চার নম্বর পজিশনে ব্যাট করতে সবসময়ই উপভোগ করেন তিনি।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সাথে মোহাম্মদ মিঠুন, নিজের অভিষেকটেস্টে। ছবি: বিডিক্রিকটাইম

মিঠুনের মতে, চার নম্বর পজিশন তার জন্য ‘খুব ভালো এক জায়গা’। তিনি বলেন, খুব ভালো একটা জায়গায় আমার সুযোগ হচ্ছেএটা অবশ্যই আমার জন্য বড় পাওয়া যে, আমি একটা ভালো জায়গায় ব্যাটিং করছি জায়গাটা পাকা করতে হলে অবশ্যই পারফরম্যান্স দিয়েই পাকা করতে হবে।’

পারফরম্যান্স দিয়ে জায়গা পোক্ত করতে হলে চাই উন্নতি করা। সেজন্য নিজের সর্বোচ্চটুকু ঢেলে দিয়ে চেষ্টা করে যাচ্ছেন মিঠুন, এমনটাই জানালেন সংবাদমাধ্যমকে, আমি চেষ্টা করছি ডে বাই ডে ইমপ্রুভ করার, নিজের সেরা চেষ্টা করারতারপরও সব ইনিংসে তো সফল হওয়া সম্ভব নাঅনেক সময় কন্ডিশনের জন্য, অনেক সময় নিজে ভুল করিএর মধ্যে থেকে ওভারকাম করার চেষ্টা করছিআমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাবো।’

মিঠুনের প্রিয় ব্যাটিং পজিশন চার। ঘরোয়া ক্রিকেটের পর এবার জাতীয় দলেও ব্যাট করছেন এই পজিশনে। মুশফিকুর রহিম টেস্টে আবারও উইকেটরক্ষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হওয়ায় তার ব্যাটিং পজিশন একধাপ পিছিয়েছে, এতে নিজের পছন্দের জায়গায় ব্যাট করতে পারছেন মিঠুন; যাকে এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান দেখছেন বড় অ্যাডভান্টেজ হিসেবে।

Also Read - ঘরের মাটিতেই হোয়াইটওয়াশ শ্রীলঙ্কা, অদম্য ইংল্যান্ড


তিনি বলেন, অবশ্যই আপনি যখন নিজের ফেভারিট পজিশনে ব্যাট করবেন তখন অবশ্যই একটা অ্যাডভানটেজ থাকেঅনেক দিন যেই জায়গায় ব্যাট করে অভ্যস্ত, সেই জায়গায় ব্যাট করলে জিনিসটা নতুন মনে হয় নাঅন্য জায়গায় ব্যাট করলে জিনিসটা অপরিচিত মনে হবেএখন ওরকম না।’

মিঠুন আরও বলেন, আমি যেখানে ব্যাট করে অভ্যস্ত, সে জাগায় ব্যাটিং পাচ্ছিনতুন কিছু মনে হয় নাআমি আগেও খেলেছি, আর জায়গাটা আমি অনেক উপভোগ করি।’

আরও পড়ুন: টি-২০ র‍্যাংকিং: প্রথমবারের মত শীর্ষ পাঁচে কূলদ্বীপ-জাম্পা

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

থাই নারীদের বিপক্ষে সালমাদের জয়

সরাসরি দেখা যাবে নারী দলের বিশ্বকাপ-বাছাই ম্যাচগুলো

রঙিন পোশাকের ক্রিকেটে ফিরতে চান মুমিনুল

“আল্লাহ আমাকে দ্বিতীয় জীবন দিয়েছেন”

‘যুদ্ধ’ জয়ের পর বল হাতে নিলেন মোশাররফ রুবেল