জয় দিয়ে শুরু তামিমের চিটাগং ভাইকিংসের

বৃষ্টির কারনে চার দিনের অনাকাঙ্ক্ষিত বিরতির পর আজ আবারো শুরু হলো বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)। আজ মঙ্গলবার দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস ও চিটাগং ভাইকিংস। এবারের প্রতিযোগিতার প্রথম ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসকে ২৯ রানে পরাজিত করে চিটাগং ভাইকিংস। আগে ব্যাট করে তামিমের ভাইকিংস ৩ উইকেট হারিয়ে ১৬১ রান করতে সমর্থ হয়। জবাবে ব্যাটসম্যানদের বাজে পারফর্মেন্সে ৮ উইকেটে মাত্র ১৩২ রান করতে পারে এবারের ডিফেনডিং চ্যাম্পিয়নরা।

Chittagong-Vikings-Player-Tamim-Iqbal-4-600x400

Advertisment

১৬১ রানের মাঝারী স্কোর তারা করতে নেমে মোটেই সুবিধা করতে পারেনি মাশরাফি বিন মরতুজার ব্যাটসম্যানরা। জাতীয় দলে ব্যাট হাতে সাম্প্রতিক সফল ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েস ৬ রানেই বিদায় নেন। তার বিদায়র পর বিদেশী মারলন স্যমুয়েলস ভালো শুরু করেন। মাত্র ১৮ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কার সাহায্যে ২৩ রান করার পর অভিজ্ঞ আব্দুর রাজ্জাকের স্পিনে কাটা পরেন তিনি।

তারপর থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থেকে কুমিল্লা। যেখান থেকে আর ঘুরে দাড়াতে পারেনি তারা। এদিকে চিটাগং ভাইকিংসের সকলেই অত্যন্ত নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেন ইনিংস জুড়ে। কুমিল্লার তরুন ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেন। লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যান আল আমিন কে নিয়ে ৭ম উইকেট জুটিতে ৩০ রান যোগ করেন তিনি।

তবে ১৪ রান করে আল আমিন বিদায় নিলে সব আশা শেষ হয়ে যায় কুমিল্লার। তবে তাদের হয়ে তরুন নাজমুল হোসেন সর্বাধিক রান করেন। নিজের অভিষেক ম্যাচেই ফিফটি করেন শান্ত। ৪৪ বল খেলে ৫৪ রান করে দলের মান রক্ষা করেন এই ব্যাটসম্যান।

ইনিংসের শুরুতে টস জিতে বল করার সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মরতুজা। ব্যাট করতে নেমে অধিনায়ক তামিমের ব্যাটে ভাল একতা ভিত্তি পায় চিটাগং ভাইকিংস। শেষ পর্যন্ত নিজেদের ২০ ওভারে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে ১৬১ রান করতে সমর্থ হয় বন্দরনগরীর এই দল।

অধিনায়ক তামিম ইকবাল দলীয় সর্বাধিক ৫৪ রান করেন। মাত্র ৩৮ বলে ৬ চার ও ২ ছক্কার সাহায্যে এই রান করেন তিনি। তার ওপেনিং পার্টনার ডুইয়েইন স্মিথ ৯ রান করে দ্রুত বিদায় নিলেও, আনামুল এসে যোগ দেন তামিমের সাথে। আনামুল হক বিজয় ২ চারের সাহায্যে ২২ রান করেন। পরে দুই জনই দুর্ভাগ্য জনক ভাবে রান আউটের শিকার হয়ে বিদায় নিলে হাল ধরেন সোয়েব মালিক ও জহুরুল ইসলাম।

পাকিস্তানি এই ব্যাটসম্যান মাত্র ২৮ বলে রান করে দলকে একটি জয় সূচক লক্ষ্য দাড় করাতে সাহায্য করেন। জহুরুল তাকে জজ্ঞ সঙ্গ দিয়ে ২৯ রান করে অপরাজিত থাকেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

চিটাগং ভাইকিংস ১৬১/৩ (২০ ওভার)

তামিম ইকবাল ৫৪, সোয়েব মালিক ৪২*, জহুরুল ইসলাম ২৯*

ইমাদ ওয়াসিম ১/২২

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস ১৩২/৮ (২০ ওভার)

মারলন স্যমুয়েলস ২৩, নাজমুল হোসেন ৫৪*

মোঃ নবী ৪/২৪

ফলঃ চিটাগং ভাইকিংস জয়ী ২৯ রানে।