টি-টেন লিগেও জাত চেনালেন সাকিব

ফুটবলের মতো ৯০ মিনিট স্থায়িত্বের দশ ওভারের ক্রিকেট প্রতিযোগিতা ‘টি-১০ ক্রিকেট লিগ’ এর পর্দা ওঠেছে বৃহস্পতিবার। ক্রিকেটের নতুন এই সংস্করণের প্রথম ম্যাচে জয় পেয়েছে ইয়ন মরগান, সাকিব আল হাসানদের দল কেরালা কিংস। দলের জয়ের দিন ক্রিকেটের ছোট্ট এই সংস্করণের প্রথম ম্যাচেই নিজের জাত চিনিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

টি-টেন প্রতিযোগিতার প্রথম ম্যাচে টস জিতে বেঙ্গল টাইগার্সকে প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় সাকিবদের দল কেরালা কিংস। আগে ব্যাট করা বেঙ্গল টাইগার্স ১ উইকেট হারিয়ে ৮৬ রানের পুঁজি পায়। ৮৭ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে পল স্টার্লিংয়ের বিধ্বংসী ২৭ বলের ৬২ রানের পাশাপাশি মরগান ও পোলার্ডের অপরাজিত ১১ রানে ভর করে ১২ বল হাতে থাকতেই জয়ের দেখা পায় কেরালা কিংস।

Also Read - ২০ ডিসেম্বর জাতীয় লিগের ৬ষ্ঠ রাউন্ড শুরু


এর আগে বল করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর শুরু থেকেই বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে প্রতিপক্ষকে চেপে ধরে রাখতে সক্ষম হয় মরগানের নেতৃত্বাধীন কেরালা। যদিও ম্যাচের সময় বাড়ার সাথে পাল্লা দিয়ে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে এসে রানের চাকা সচল রাখে বেঙ্গল টাইগার্সের দুই ওপেনার আন্দ্রে ফ্লেচার ও জনসন চার্লস।

ইনিংসের অষ্টম ওভারে ২৭ বলে ৩৩ রান করা চার্লসকে ফিরিয়ে দিয়ে এই সংস্করণের প্রথম উইকেট শিকারি হিসেবে রেকর্ড বইয়ে জায়গা করে নেন পাকিস্তানি পেসার ওয়াহাব রিয়াজ। এরপর আর কোন উইকেট না হারালে নির্ধারিত ১০ ওভার শেষে ১ উইকেট হারিয়ে ৮৬ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় বেঙ্গল টাইগার্স।

ম্যাচে কোন উইকেট না পেলেও সাকিব আল হাসান ছিলেন মিতব্যায়ী। এক ওভার বল করার সুযোগ পেয়ে বাঁহাতি এই স্পিনার রান দেন মাত্র ৫। চার রান দিয়ে ইনিংস শুরু করলেও টানা তিন ডট সহ মোট চারটি ডট বল দিয়ে বেশ প্রশংসা পান ধারাভাষ্যকারদের। অসাধারণ বোলিংয়ের পর ফিল্ডিংয়ে দক্ষতার সাথে বেশ কিছু রান বাঁচানোর ফল হিসেবে ম্যাচ শেষে সেরা ফিল্ডারের পুরস্কারও জিতে নেন তিনি।

উল্লেখ্য প্রতিযোগিতামূলক টি-টেন ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম জয়ের স্বাদ পাওয়ার দিন একই সাথে এই সংস্করণে প্রথম উইকেট শিকারের পর (ওয়াহার রিয়াজ) ও প্রথম অর্ধশতক (পল স্টারলিং) করার গৌরব অর্জন করেছে সাকিবদের কেরালা কিংসের ক্রিকেটাররা।


আরও পড়ুনঃ ত্রিদেশীয় সিরিজের সময়সূচি চূড়ান্ত

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন