টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে স্পিন সহায়ক উইকেট

0
758

ভারতে করোনা ভাইরাস ভয়াবহ রূপ ধারণ করায় আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। ওমানে প্রথমবারের মতো আইসিসির বড় কোনো আসর বসতে যাচ্ছে। গোটা দেশে একটিও পূর্নাঙ্গ ক্রিকেট স্টেডিয়াম নেই, তবে বিশ্বকাপকে ঘিরে নতুন করে সবকিছু ঢেলে সাজাচ্ছে ওমান ক্রিকেট বোর্ড।

১৭ অক্টোবর শুরু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, মূল পর্ব আরব আমিরাতে

Advertisment

আগামী ১৭ অক্টোবর থেকে নভেম্বরের ১৪ তারিখ পর্যন্ত মাঠে গড়াবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এই টুর্নামেন্টের সূচি এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, প্রথম পর্বের ম্যাচগুলো ওমানে এবং সুপার টুয়েলভসহ আসরের বাকি ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে তিন স্টেডিয়াম- দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম, শেখ জায়েদ ক্রিকেট স্টেডিয়াম ও শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তবে ওমানে নেই কোনো পূর্নাঙ্গ ক্রিকেট স্টেডিয়াম। সেখানাকার দুইটি মাঠে গড়াবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডের সবগুলো ম্যাচ।

ওমান ক্রিকেটের সেক্রেটারি মাধু জেসরানি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি সম্পর্কে বলেন, “আমাদের কোনো স্টেডিয়াম নেই, দুইটি মাঠ রয়েছে। একটি মাঠে দুইটি ড্রেসিংরুম রয়েছে, অপরটিতে এখনও নির্মাণ কাজ চলছে। এছাড়া দুইটি মাঠের ফ্লাডলাইট তেমন ভালো মানের নয়। লাইটিংয়ে আমাদের উন্নতির ব্যবস্থা নিতে হবে।”

“এছাড়া স্কোরবোর্ডও বেশ ছোট। সেটিও বদলাতে হবে। এবং সেখানে লাইভ টিভি স্ক্রিনও যুক্ত থাকবে। আমাদের প্রস্তুতি পর্যবেক্ষণ করতে আগামী সপ্তাহে বিসিসিআই ও আইসিসির প্রতিনিধি দল এখানে আসবে।”

ওমানে প্রথম পর্বের ম্যাচগুলোতে স্বাগতিক ওমানসহ অংশ নিবে মোট ৮টি দল। বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, আয়ারল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, স্কটল্যান্ড, নামিবিয়া, ওমান ও পাপুয়া নিউগিনি প্রথম পর্বের ১২টি ম্যাচ খেলবে ওমানের ঐ দুইটি মাঠে।

সাধারণত আইসিসির ইভেন্টগুলোতে ব্যাটিং সহায়ক উইকেট তৈরি করা হয়ে থাকে। তবে ওমানের ঐ দুই মাঠের উইকেট স্পিনবান্ধব হবে বলে জানিয়েছেন ওমান ক্রিকেটের সেক্রেটারি।

মাধু জেসরানি বলেন, “এখানকার উইকেট উপমহাদেশের উইকেটের মতোই হবে। বলতে পারেন, উইকেট অবশ্যই স্পিনারদের সহায়তা করবে।”

এছাড়া ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি আয়োজন ফুটবলের তুমুল জনপ্রিয়তার ওমানে ক্রিকেট আরও এগিয়ে যাবে বলে মনে করছেন জেসরানি।

তিনি জানান, “ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। এখানকার স্কুল-কলেজগুলোতে ফুটবলের পরেই ক্রিকেট এখন দ্বিতীয় জনপ্রিয় খেলা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন এবং ওমানের অংশগ্রহন এখানকার ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।”

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।