Scores

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে পারবেন সাকিব, তবে…

আইসিসির সিদ্ধান্তে আজ ২ বছরের জন্য নিষেধাজ্ঞার শাস্তি পেলেন বাংলাদেশের টেস্ট ও টি টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এই ২ বছরের মাঝে ১ বছর সকল প্রকার ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ থাকবেন সাকিব আল হাসান। এর পরের ১ বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেললেও নজরদারিতে থাকবেন সাকিব আল হাসান।

২০১৮ সালে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পাওয়ার পরও আইসিসিকে না জানানোর ছোট অপরাধের ফলের এই শাস্তি পেতে হচ্ছে সাকিব আল হাসানকে। আইসিসির আইন অনুযায়ী যে কোনো ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব আসলে তা আইসিসিকে জানাতে হবে সময়মত। না জানালে এর জন্য সর্বনিম্ন ৬ মাস থেকে সর্বোচ্চ ৫ বছর পর্যন্ত ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হতে পারেন একজন ক্রিকেটার।

Also Read - সাকিবের নিষেধাজ্ঞা আরো বাড়ানো উচিত: ভন


সাকিব আল হাসানের এই শাস্তির পর দেশের ভক্তদের মাঝেও প্রশ্ন উঠেছে সাকিবকে ছাড়া কেমন করবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল? বিশেষ করে আগামী বছরের বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সাকিবকে ছাড়া কেমন করবে বাংলাদেশ দল? সাকিব কি আদৌ খেলতে পারবে আগামী বিশ্বকাপে?

আইসিসি তাদের প্রেস রিলিজে জানিয়েছে ২৯ অক্টোবর, ২০২০ সাল থেকে সাকিব আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে পারবেন। টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হবে আগামী বছরের ১৮ই অক্টোবর। বাংলাদেশ রয়েছে বিশ্বকাপের প্রথম পর্বের বি গ্রুপে। সহযোগী দেশগুলোর বিপক্ষে বাংলাদেশ যদি কাঙ্খিত জয় পেয়ে বিশ্বকাপের সুপার ১২ এ যেতে পারে তাহলে বাংলাদেশের থাকবে আরো ৫টি খেলা। সাকিবের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার পর মাঠে ফিরতে পারবেন ২৯ অক্টোবর।

তার পর সুপার ১২ এ বাংলাদেশের আরো ৩টি খেলা থাকবে। তাই নিয়ম অনুযায়ী বিশ্বকাপের সুপার ১২ এ কোয়ালিফাই করতে পারলে সুপার ১২ এ শেষ ৩টি খেলা খেলতে কোন বাধা থাকবেনা সাকিবের। তবে নিয়ম এইও বলে কোন বিশ্বকাপের মাঝপথে ইনজুরি বা যথার্থ কারন ছাড়া কোন খেলোয়াড়কে স্কোয়াড থেকে বাদ দিয়ে অন্য কোন খেলোয়াড় স্কোয়াডে নেওয়া যাবেনা। সেই ক্ষেত্রে বিসিবি কি পারবে একজন নিষিদ্ধ খেলোয়াড়কে বিশ্বকাপের স্কোয়াডে অস্ট্রেলিয়া নিয়ে যেতে এই আশায় যে বিশ্বকাপের মাঝপথে নিষেধাজ্ঞা শেষ হলে তাকে দলে নেওয়া হবে? এই অনুমতি কি বিসিবিকে আইসিসি দিবে? প্রশ্ন এটাও রয়ে যায় বিসিবি কি আইসিসিকে অনুরোধ করে এই নিষেধাজ্ঞা বিশ্বকাপের আগে শেষ করতে পারবে কিনা?

গত বছর ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ১ বছরের নিষেধাজ্ঞার পর স্বরূপে বিশ্বকাপ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেন ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভ স্মিথ। সাকিব কি পারবেন স্মিথ ও ওয়ার্নারের মতো বিশ্বকাপ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে? নাকি সাকিবকে পুনরায় মাঠে দেখতে বিশ্বকাপ শেষ হওয়া পর্যন্তই অপেক্ষা করতে হবে? এই ব্যাপারে বিসিবি কি উদ্দ্যোগ নেয় তার দিকে নজর থাকবে ক্রিকেট ভক্তদের।

 

Related Articles

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুই ক্রিকেটার নিষিদ্ধ

জয়ের ম্যাচেও শাস্তি পেল ইংলিশরা

আইসিসির বড় চেয়ারটা ‘বিগ থ্রি’ মুক্ত চান মানি

আইসিসির চেয়ারম্যান পদে ‘বিগ থ্রি’র কাউকে ভোট দেবে না পাকিস্তান

আইসিসির হল অব ফেমে জ্যাক ক্যালিস