দলের জন্য স্পন্সর চেয়ে শাস্তির মুখে বার্ল

খেলতে খেলতে ছিঁড়ে গিয়েছিল জুতা। আঠা দিয়ে সেই জুতা মেরামত করে আক্ষেপ করেছিলেন রায়ান বার্ল- যদি স্পন্সর থাকত তাহলে এভাবে জুতা সারাতে হত না। বার্লের সেই আক্ষেপ দেখে এগিয়ে আসে একটি ক্রীড়াভিত্তিক প্রতিষ্ঠান। তবে এ কারণে শাস্তির মুখে পড়তে হচ্ছে বার্লকে।

দলের জন্য স্পন্সর চেয়ে শাস্তির মুখে বার্ল

Advertisment

গত ২২ মে জিম্বাবুয়ের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান রায়ান বার্ল টুইটারে তার জুতা সারানোর একটি ছবি পোস্ট করেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘যদি আমরা স্পন্সর পেতাম, তাহলে প্রতি সিরিজের পর আঠা লাগিয়ে জুতা সারাতে হত না।’

এই টুইটের পর পিউমা বার্লের স্পন্সর হওয়ার ঘোষণা দেয় এবং বার্ল ও তার সতীর্থদের জন্য নতুন জুতাসহ ক্রীড়া সরঞ্জাম পাঠায়। তবে এই ঘটনা ভালোভাবে নেয়নি জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট (জেডসি)। এভাবে টুইট করে স্পন্সর খোঁজায় বোর্ডের রোষানলে পড়েছেন তিনি।

বার্লের এই আচরণে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট নিজেদের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে বলে মনে করছে। তাই বার্লের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে চাচ্ছেন বোর্ডের কর্তারা। যদিও জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের সাধারণ দর্শক-সমর্থকরা বোর্ডের এই অবস্থানের তীব্র সমালোচনা করছেন।

জিম্বাবুয়ের জনপ্রিয় এক সাংবাদিক জানান, ‘জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ডের কর্তারা জানিয়েছেন বার্লের এই স্পনসরশিপ আবেদনে তারা অত্যন্ত অখুশি। তাদের মতে বার্লের এই আবেদন ক্রিকেট সংস্থার ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে। জানানো হয়েছে বার্লের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ডের তরফে এটা খুবই খারাপ পদক্ষেপ হতে চলেছে।’

বার্লের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে কোনো ব্যবস্থা নেবে না জিম্বাবুয়ে- উঠেছে এমন গুঞ্জন। খুঁড়িয়ে চলা ক্রিকেটকে একটু আলো দেখাতে গিয়ে ২৭ বছর ক্রিকেটার হয়ত নীরবেই বরণ করে নেবেন কোনো শাস্তি। জিম্বাবুয়ের বোর্ডের বেহাল দশার কারণেই দলটি নানা সমস্যায় জর্জরিত। এবার বার্লের বিরুদ্ধে বোর্ডের ভূমিকাও হচ্ছে প্রশ্নবিদ্ধ।