পেসার হয়ে ক্রিকেটে এসেছিলেন ফজলে রাব্বি!

0
1918

১৪ বছর ঘরোয়া ক্রিকেটে মাঠ মাতানোর পর প্রথমবারের মত আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ডাক পেয়েছেন ক্রিকেটার ফজলে রাব্বি মাহমুদ। অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটারের সুযোগ পাওয়া নিয়ে চলছে আলোচনা। সাকিব আল হাসানের ইনজুরিই মূলত তার কপাল খুলে দিয়েছে। সাকিবের পরিবর্তে এই ব্যাটসম্যান ও বাঁহাতি স্পিনারকে দলভুক্ত করে নির্বাচকরাও ধরছেন বাজি।

পেসার হয়ে ক্রিকেটে এসেছিলেন ফজলে রাব্বি!

অবশ্য ফজলে রাব্বির ক্রিকেট আঙিনায় পোক্তভাবে শুরুটা হয়েছিল পেস বোলিং দিয়ে, স্পিন কিংবা ব্যাটিং কোনোটাই না! এমনটি জানিয়েছেন তিনি নিজেই।

Advertisment

সম্প্রতি দৈনিক যুগান্তরের সাথে আলাপকালে ফজলে রাব্বি জানান, বরিশাল বিভাগের হয়ে নেটে পেসার হিসেবে বল করেতে গিয়েই শুরু হয় তার ক্রিকেট ক্যারিয়ার। তিনি বলেন, ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে, নেট বোলার দরকার হয়, আমি তখন বরিশালের হয়ে নেটে বোলিং করতে গিয়েছিলামসম্ভবত ২০০৩ সালেনেটে ভালো বোলিং করার সুবাদে পরের বছর বরিশাল বিভাগের হয়ে খেলার সুযোগ পাইসেই হিসেবে বললে নেট বোলার হিসেবে আমার ক্রিকেট ক্যারিয়ার শুরু হয়।’

এখন বাঁহাতি স্পিনার হলেও তখন বাম হাতেই গতির ঝড় তুলতেন তিনি। যদিও ক্লান্তির কারণে একসময় ছেড়ে দেন পেস বোলিং। তার ভাষ্য, আমি ছিলাম বাঁহাতি পেস বোলারনেটে বোলিং করার পর ওরা বলাবলি করছিল ভালো বোলিং হচ্ছেযে কারণে তারা আমাকে দিয়ে লম্বা সময় ধরে বোলিং করিয়েছিলকিন্তু আমি খুব ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলামপরে বললাম যে, আর কখনো পেস বোলিং করব না।’

সেবার ছেড়ে দেওয়ার পর আর পেস বল করা হয়নি তার। ফজলে রাব্বি জানান, সেই যে ছেড়ে দিয়েছি আর কখনো পেস বোলিং করিনিনেটে ভালো বোলিং করার সুবাদে পরের বছর বরিশাল বিভাগের হয়ে খেলার সুযোগ পাই।’

দলে সুযোগ পেতে বড় ভূমিকা রেখেছে তার দুর্দান্ত ব্যাটিং। কোন পজিশনে ব্যাট করতে চান ফজলে রাব্বি? তার জবাব, ওপেনিং থেকে ছয় নম্বর পজিশন পর্যন্ত ব্যাট করতে অভ্যস্তদলের প্রয়োজনে যে কোনো জায়গায় ব্যাটিং করতে প্রস্তুত।’

আরও পড়ুন: “প্রথম শ্রেণিতে খেলা খেলোয়াড়ের জন্য বিনিয়োগ”