Scores

ফরহাদের শতকে এগিয়ে দক্ষিণাঞ্চল

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল) ফাইনাল ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে দক্ষিণাঞ্চলের ফরহাদ রেজার শতকের বিপরীতে ব্যর্থ হয়েছেন প্রতিপক্ষ দলের ইমরুল কায়েস, মোহাম্মদ আশরাফুলরা। প্রথম ইনিংসে ৪৮৬ রান তোলার দক্ষিণাঞ্চল দ্বিতীয় দিনশেষে এগিয়ে আছে ৩৭৬ রান।

তিন পেসারের নৈপুণ্যে জিতল রাজশাহী

৬ উইকেটের বিনিময়ে ৩০৫ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু করে বিসিবি দক্ষিণাঞ্চল। শামসুর রহমান ৩৭ ও ফরহাদ ৮ রানে অপরাজিত ছিলেন। শামসুর শতকের আশা জাগিয়েও থামেন ৭৯ রানে। তবে তিন অঙ্ক স্পর্শ করে অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়েছেন ফরহাদ। তিনি খেলেছেন ১৮৬ বলে ১০৩ রানের ইনিংস। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ১০টি চার ও ৫টি ছয়ের মারে।

Also Read - টেস্টের মতো ওয়ানডেতেও সুযোগের অপেক্ষায় শান্ত


সঙ্গীর অভাবে দলের স্কোরকার্ড আর ভারি করতে পারেননি ফরহাদ। নবম উইকেটে অবশ্য পেসার শফিউল ইসলামের সাথে ৮৮ রানের জুটি গড়েন তিনি। যেখানে শফিউলের অবদান ছিল ৩০ রান। শেষ ব্যাটসম্যান হিসাবে নামা আল-আমিন হোসেন রানের খাতা খোলার আগেই আউট হয়ে গেলে শেষ হয় দক্ষিণাঞ্চলের ইনিংস।

প্রথম ইনিংসে ব্যাটসম্যানদের পারফর্মে ৪৮৬ রানের সংগ্রহ পেয়েছে দক্ষিণাঞ্চল। ইসলামি ব্যাংক পূর্বাঞ্চলের পক্ষে দুইটি করে উইকেট শিকার করেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল, সাকলাইন সজীব ও রুয়েল মিয়া।

 

দিনের শেষ সেশনে ব্যাটিং করে পূর্বাঞ্চল। দলটির অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান আশরাফুল, কায়েসরা অবশ্য ইতোমধ্যেই সাজঘরে ফিরেছেন। উদ্বোধনী জুটিতে ৬৩ রান তুলে ভালো সূচনা এনে দিয়েছিলেন পিনাক ঘোষ ও আশরাফুল। আব্দুর রাজ্জাকের জোড়া আঘাতে বিদায় নেন তারা দুইজন। আশরাফুল ২৮ ও পিনাক করেন ৩৮ রান।

শফিউলের শিকার হয়ে কায়েস ফিরেছেন ২২ রান করে। দ্বিতীয় দিনশেষে পূর্বাঞ্চলের সংগ্রহ ৩ উইকেটের বিনিময়ে ১১০ রান। এখনো ৩৭৬ রানে পিছিয়ে আছে তারা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর 

বিসিবি দক্ষিণাঞ্চল ৪৮৬/১০ (প্রথম ইনিংস)
ফরহাজ ১০৩*, ফজলে ৮৬, শামসুর ৭৯, বিজয় ৭৬;
আশরাফুল ২/১৩, সাকলাইন ২/৭৮, রুয়েল ২/৮৬।

ইসলামি ব্যাংক পূর্বাঞ্চল ১১০/৩ (প্রথম ইনিংস)
পিনাক ৩৮, আশরাফুল ২৮, কায়েস ২২, মাহমুদুল ২১*, আফিফ ০*;
রাজ্জাক ২/৩৪।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
Tweet 20
fb-share-icon20

Related Articles

শিরোপা ধরে রাখল দক্ষিণাঞ্চল

রাজ্জাকের ‘৭’ উইকেট; তামিমের সেঞ্চুরি মিসের আক্ষেপ

তামিমের রেকর্ডের পর নাঈমের ঘূর্ণিতে জিতল পূর্বাঞ্চল

তামিম ইকবালের ট্রিপল সেঞ্চুরি পূর্ণ

তামিমের ডাবল সেঞ্চুরির পর মুমিনুলের সেঞ্চুরি