Scores

বিশ্বকাপ ও মুস্তাফিজুর রহমান

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে উল্কার মত আবির্ভাব কাটার মাস্টার খ্যাত মুস্তাফিজুর রহমানের। ক্যারিয়ারের প্রথম বিশ্বকাপে মাত্র ০৮ ম্যাচে ২০ উইকেট নিয়ে নিজের অভিষেক আসরকে করে রেখেছেন স্মরণীয় ও ক্রিকেট বিশ্বকে দিয়ে রেখেছেন বার্তা।

বিশ্বকাপ ও মুস্তাফিজ

পাকিস্তানের অন্যতম সেরা সাবেক অলরাউন্ডার ও বুমবুম শাহিদ আফ্রিদিকে নিজের প্রথম শিকার বানিয়ে বিশ্বকে জানিয়ে দেন রাজত্ব করতেই এসেছেন তিনি। দিনটি ছিল শুক্রবার, ২৪ এপ্রিল, ২০১৫। সেদিন শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির মাধ্যমে পথচলা শুরু মুস্তাফিজুর রহমানের। অচেনা ছেলেটি ক্রিকেট পাড়ায় প্রথম ম্যাচেই ফেলে দেন হৈচৈ।

Also Read - সিপিএলে খেলছেন না তিন আফগান ক্রিকেটার


অভিষেক ম্যাচে শাহিদ আফ্রিদিকে শিকার বানানোর পর অভিজ্ঞ মোহাম্মাদ হাফিজকে শিকার বানিয়ে পাকিস্তানের ব্যাটিং মেরুদণ্ড ভেঙ্গে দেন তিনি। চার ওভারে মূল্যবান দুই উইকেটের পাশাপাশি রান দিয়েছিলেন মাত্র ২০। ঐ ম্যাচে সাত উইকেটের জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। এরপর মুস্তাফিজকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। চাপের মুহূর্তে অধিনায়কদের প্রথম পছন্দ তিনি। যদিও মাঝে মাঝে ইনজুরি ভুগিয়েছে তাকেঁ।

অভিষেকের পর একটি বিশ্বকাপ পেয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান। ০২ জুন, ২০১৯ এ সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের দ্য ওভালে বিশ্বকাপে অভিষেক হয় তাঁর। অচেনা কন্ডিশন ও বিরূপ পরিবেশ হলেও নিজের প্রথম ম্যাচকে রাঙ্গাতে ভুলেননি তিনি। সময়ের মারকুটে ব্যাটসম্যান ও বোলারদের আতঙ্ক ডেভিড মিলার, জে পি ডুমিনি ও ক্রিস মরিসের উইকেট তুলে নিয়ে বাংলাদেশের জয়ে রেখেছিলেন অবদান।

ইনজুরির সাথে লড়াই করে ফিরে আসাটা মোটেও সহজ ছিল না। তাও আবার ইংল্যান্ডের মত পরিবেশে তিন উইকেট নিয়ে মুস্তাফিজুর রহমান অসম্ভবকে সম্ভব করেছিলেন এক প্রকার বলা যায়।

দ্বিতীয় ম্যাচে কোনো উইকেট না পেলেও তৃতীয় ম্যাচে ২০১৯ বিশ্বকাপের নায়ক বেন স্টোকসকে ভয়ংকর হওয়ার আগেই মাশরাফির ক্যাচে পরিণত করেন মুস্তাফিজ। পরের ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষণা হ‌ওয়ায় কোনো বল করার সুযোগ পান নি তিনি।

১৭ জুন, পঞ্চম ম্যাচে তিন উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের দ্বিতীয় জয়ে রাখেন অবদান, নিজের বুদ্ধিদীপ্ত বোলিংয়ে তুলে নিয়েছিলেন মারকুটে ব্যাটসম্যান শিমরন হেটমায়ার, জ্বলে ওঠার আগেই বোলারদের আতঙ্ক আন্দ্রে রাসেল ও অল্পের জন্য সেঞ্চুরি মিস করা শাই হোপের উইকেট।

ষষ্ঠ ম্যাচে অন্যতম সেরা টেকনিক ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথকে এলবিডব্লিউ এর ফাঁদে ফেলেছিলেন। আফগানিস্তানের বিপক্ষে তুলে নিয়েছিলেন রশিদ খান ও দৌলত জাদরানের উইকেট।

ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজের রুদ্র মূর্তি দেখান মুস্তাফিজুর রহমান। যারা বলছিলেন মুস্তাফিজ হারিয়ে গিয়েছেন, তাদের মুখ বন্ধ করে দিয়ে সমালোচনার ইতি টানেন তিনি। এজবাস্টনে ইন্ডিয়ার বিপক্ষে নেন পাঁচ উইকেট। নিজের শিকারে পরিণত করেন সময়ের সেরা ব্যাটসম্যান ভিরাট কোহলি, হার্দিক পান্ডিয়া, সেরা ফিনিশার এমএস ধোনি, দিনেশ কার্তিক ও মোহাম্মাদ সামিকে।

লর্ডসে এই আসরে নিজের ও বাংলাদেশের শেষ ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষেও মুস্তাফিজ নেন পাঁচ উইকেট, রচনা করেন রূপকথা। লর্ডসে পাঁচ উইকেট যেকোনো বোলারের জন্য জীবনের অন্যতম লক্ষ্য থাকে আর এটা বোলারদের জন্য অনেক সম্মানের।

নিজের অভিষেক আসরে মোট ২০ উইকেট নিয়ে ২০১৯ বিশ্বকাপে আইসিসির রাইজিং স্টার হন মুস্তাফিজুর রহমান। আসছে ২০২৩ বিশ্বকাপে ইন্ডিয়ার মাটিতে চেনা কন্ডিশনে মুস্তাফিজুর রহমান নিজেকে করে তুলবেন আরও ভয়ঙ্কর, এই প্রত্যাশা বাংলাদেশের কোটি ক্রিকেট প্রেমীর।

লেখক : রাকিব মোনাসিব, শিক্ষার্থী, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস (বিইউপি)।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

বাংলাদেশকে সবাই ভয় পাবে, বিশ্বাস ম্যাকেঞ্জির

‘সাকিবই ছিল ২০১৯ বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড়’

সেদিন স্নায়ুচাপ সামলাতে ‘সিগারেট বিরতি’ নেন স্টোকস

বিশ্বকাপ সেরার পুরস্কার আশা করেছিলেন সাকিবও!

বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচেই অবসর নিতে চেয়েছিলেন মাশরাফি