ব্যর্থ ম্যাক্সওয়েলের আকাশচুম্বী পারিশ্রমিকে ত্যক্তবিরক্ত শেবাগ

অপরাজিত থাকা ছোট ছোট ইনিংস তিনটি বাদ দিলে এবারের আইপিএলে ম্যাক্সওয়েলের ইনিংসগুলো এমন- ১, ৫, ১১, ৭। মনে হবে মুঠোফোন নম্বরের ডিজিট বুঝি। অস্ট্রেলীয় অলরাউন্ডারের পারফরম্যান্স রীতিমত বিরক্তিকর ঠেকছে সবার কাছে। ব্যাট হাতে তার ম্লান পারফরম্যান্সের পর বীরেন্দর শেবাগ বুঝতেই পারছেন না, কেন তাকে এত দাম দিয়ে কেনা হয়। 

ম্যাক্সওয়েলের আকাশচুম্বী মূল্যে ত্যক্তবিরক্ত শেবাগ

Advertisment

আইপিএলের চলমান আসরে কিংস লেভেন পাঞ্জাবের হয়ে খেলছেন ম্যাক্সওয়েল। ১০ কোটি ভারতীয় রুপিতে তাকে দলভুক্ত করা হলেও পারফরম্যান্সে কোনো ছাপ নেই। ২০১৬ সালের পর আর অর্ধ-শতকের দেখাও পাননি। কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে অবিশ্বাস্য পরাজয়ের দিনে শেষ বলে চার হাঁকালেও দরদগে ক্ষত নিয়ে মাঠ ছেড়েছেন। শেবাগ অবশ্য তারও আগে কচুকাটা করেছেন ম্যাক্সওয়েলকে।

শেবাগের তীর সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে পাঞ্জাবের ম্যাচ ঘিরে। ঐ ম্যাচে ব্যাট হাতে পর্যাপ্ত সুযোগ পেয়েও দলকে সাফল্য এনে দিতে পারেননি দামি এই ক্রিকেটার। পাঞ্জাবের সাবেক খেলোয়াড় ও কোচ শেবাগের স্বভাবতই তা ভালো লাগেনি।

শেবাগ তাই প্রশ্ন তুলেছেন, ‘নিজেকে মেলে ধরতে ম্যাক্সওয়েলের আর কেমন প্লাটফর্ম লাগবে আমি জানি না। হায়দরাবাদের বিপক্ষে সে ক্রিজে এল দুই ব্যাটসম্যান দ্রুত সাজঘরে ফেরার পর। তখনো অনেক ওভার বাকি ছিল। এর আগে সে ডেথ ওভারের চাপও নিতে পারেনি। পারফর্ম না করেই আউট হচ্ছে।’ 

‘তার মানসিকতা আমি মোটেও বুঝতে পারছি না। প্রতি বছর একই ঘটনা। নিলামে চড়া মূল্যে দল পায় কিন্তু প্রতি বছরই একই পারফরম্যান্স। এরপরও ফ্র্যাঞ্চাইজিরা তার পেছনে ছোটে। এই ব্যাপারটা কেন হয় একদমই বুঝতে পারি না আমি।’

শেবাগ তাই মনে করছেন, ম্যাক্সওয়েলকে নিয়ে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের আগ্রহ আগামী দিনে কমে যাবে। তিনি বলেন, ‘আমার মনে আগামী নিলামে তার দাম ১০ কোটি থেকে ১-২ কোটিতে নেমে আসবে, যা অন্তত হওয়া উচিৎ। সে ২০১৬ সালের পর আইপিএলে আর হাফ-সেঞ্চুরি করেনি।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।