ভয় ঢুকেছে পাকিস্তান শিবিরে

এশিয়া কাপের অঘোষিত সেমি ফাইনাল হয়ে দাঁডিয়েছে বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচ। আগামীকাল (২৬ সেপ্টেম্বর) আবু ধাবিতে মাঠে নামবে দুই দল। যারা জয়ী হবে তারা ২৮ সেপ্টেম্বর ভারতের সাথে ফাইনালে লড়বে। এদিকে এই ম্যাচের আগে বাংলাদেশ দল ফুরফুরে মেজাজে থাকলেও উল্টো পরিস্থিতি পাকিস্তান শিবিরে। ভারতের কাছে বিশাল ব্যবধানে  হারের পর বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচের আগে নিজের দলের অবস্থা জানিয়েছেন পাকিস্তান কোচ মিকি আর্থার।

 

দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর দ্বৈরথে জিতল ভারত

এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় দিয়ে সূচনা করলেও টানা দুই ম্যাচ হেরে কোনঠাসায় ছিল বাংলাদেশ। তবে বাঁচা-মরার ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে শেষ ওভারে জয় টাইগারদের মানসিকভাবে শক্তিশালী করেছে। ফিরে পেয়েছে পুরনো আত্মবিশ্বাস। অন্যদিকে চলতি এশিয়া কাপে পাকিস্তানের স্মৃতি খুব ভালো নয়। গ্রুপ পর্বে হংকংয়ের বিপক্ষে জয় ও  সুপার ফোরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে কষ্টার্জিত জয় পেয়েছে সরফরাজরা। এর বাইরে ভারতের কাছে দুই ম্যাচেই বিশাল ব্যবধানে হেরেছে পাকিস্তান।

Also Read - ‘ভাই বলেছিল আজকে তুই জেতা’

সুপার ফোরে ভারতের বিপক্ষে দ্বিতীয়বারের দেখায় পরাজয় ৯ উইকেটের। ২৩৭ রান করেও ভারতের কাছে পাত্তাই পায় নি পাকিস্তান। বোলাররা ব্যর্থ। তাই, অঘোষিত সেমিফাইনালে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচের আগে দুশ্চিন্তায় তারা। এই প্রসঙ্গে দলের কোচ মিকি আর্থার বলেন, ‘এই মুহূর্তে দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের সংকট চলছে। ড্রেসিংরুমে ব্যর্থতার ভয় কিছুটা হলেও গ্রাস করেছে। ক্রিকেট দল হিসেবে আসলেই এখন আমরা কী অবস্থায় আছি, সেটাই আমরা এখন বুঝতে পারছি।’

এশিয়া কাপে ফখর জামানকে নিয়ে বড় স্বপ্ন দেখেছিল পাকিস্তান সমর্থকরা। কিন্তু সুপার ফ্লপ এই ক্রিকেটার। চলতি এশিয়া কাপে চার ম্যাচে করেছেন মাত্র ৫৫ রান। এর মাঝে ডাক দুইটি। অন্যদিকে ফর্মে নেই পেসার মোহাম্মদ আমিরও। টানা ৫ ম্যাচে উইকেটশূন্য এই বামহাতি পেসার।

ফখর জামানকে নিয়ে আর্থার বলেন, ‘ক্রিকেট হচ্ছে আত্মবিশ্বাসের খেলা। ফখর জামানকে দেখুন। আমরা জানি ও কতটা অবিশ্বাস্য খেলোয়াড়। পার্থক্য গড়ে দেওয়ার মতো খেলোয়াড় সে। আমরা প্রত্যাশা করি ও আমাদের ভালো শুরু এনে দেবে। কিন্তু এই মুহূর্তে নিজের খেলা নিয়ে ওর মধ্যে যেন দ্বিধাদ্বন্দ্ব চলছে।’

তবে সবভুলে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভালো ভাবে ঘুরে দাঁড়াতে চায় পাকিস্তান। এমনটিই প্রত্যাশা আর্থারের কন্ঠে, ‘তবে আমাদের এখানেই থেমে যাওয়ার তো উপায় নেই। এগিয়ে যেতে হবে। আমরা এর চেয়ে অনেক ভালো আর শক্তিশালী হয়ে ফিরে আসব।’

[আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানকে গেইলের সঙ্গে তুলনা মুস্তাফিজের]

 

Related Articles

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’

এক নয় মাশরাফির তিন ইনজুরি

‘বিশ্ব ক্রিকেটে সম্মানজনক জায়গা আদায় করেছে বাংলাদেশ’