‘মাঝেমাঝে মনে হয় আমরা খাঁচায় বন্দী সার্কাসের প্রাণি’

0
415

গত প্রায় এক বছর ধরে নতুন নিয়মের বেড়াজালে বন্দী ক্রিকেটাররা। বিভিন্ন দেশের ক্রিকেটাররা বিভিন্ন সময়ে জানিয়েছেন জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকা কষ্টকর অনুভূতির কথা। দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার তাবরাইজ শামসি হতাশা প্রকাশ করতে জানালেন জৈব সুরক্ষা বলয়ে তার নিজেকে খাঁচায় বন্দী প্রাণি মনে হয়।

'মাঝেমাঝে মনে হয় আমরা খাঁচায় বন্দী সারকাসের প্রাণি'
তাবরাইজ শামসি

২০১৯ সালের জুন মাসে প্রথম দল হিসেবে ইংল্যান্ড সফরে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেই সিরিজ থেকে এখন পর্যন্ত ক্রিকেটের প্রতিটি সিরিজে খেলোয়াড়দের জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকতে হচ্ছে। এখনো কতদিন এইভাবে চলতে হবে তা কেউ জানে না। ইতোমধ্যে ক্রিকেটাররা হাঁপিয়ে উঠেছেন। জৈব সুরক্ষা বলয়ের পাশাপাশি তাদেরকে কোয়ারেন্টিনও করতে হচ্ছে। সবমিলিয়ে এই নতুন নিয়মে হাঁসফাঁস করছেন ক্রিকেটাররা।

Advertisment

আসন্ন ভারত ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার সিরিজকে সামনে রেখে জৈব সুরক্ষা বলয়ের কঠোরতা কমাতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) এই সিদ্ধান্তে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। তাছাড়া ভারতীয় ক্রিকেটার রিশাভ পান্ট ও দলের এক অফিসিয়াল করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় এই মুহূর্তে এই ধরনের সিদ্ধান্তকে অনেকেই সমর্থন করছেন না। তবে ক্রিকেটাররা সেটা সাদরে গ্রহণ করেছেন।

ইসিবির এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে নিজেদের হতাশার কথা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে তুলে ধরেছেন দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার শামসি। তিনি বলেন, জৈব সুরক্ষা বলয়ে তাদের হতাশা ও অসুবিধা কেউ বোঝেন না। বরং ওই সময়ে তার নিজেকে খাঁচায় বন্দী সার্কাসের প্রাণির মতো লাগে।

শামসি লিখেছেন, ‘আমার মনে হয় আমাদের ওপর এটি চাপিয়ে দেওয়ার প্রভাব অন্য কেউ বুঝতে পারে না, আমাদের পরিবার ও ক্রিকেটের বাইরে জীবন… মাঝেমাঝে মনে হয় যেন আমরা খাঁচায় বন্দী সার্কাসের প্রাণি যাদের বাইরে নেওয়া হয় শুধু সেই সময়ে যখন অনুশীলনের প্রয়োজন ও যখন ম্যাচ খেলে দর্শকদের আনন্দ দেওয়ার প্রয়োজন হয়।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।