মাহমুদউল্লাহর ১০০০ রান

এবারের বিপিএলটা দুর্দান্ত কাটছে দেশীয় ক্রিকেটারদের। সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ও সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক তালিকা দুই জায়গাতেই স্থানীয় ক্রিকেটারদের দাপট। তারই প্রভাব পড়ছে রেকর্ড বোর্ডে। এবারের আসরেই প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে বিপিএলে এক হাজার রান সংগ্রহের কৃতী গড়েছেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। মুশফিকের পর দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে কাল হাজারী ক্লাবে ঢুকে পড়লেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।
riad (1)
হাজারি ক্লাবে নাম লেখাতে মাহমুদুল্লাহর দরকার ছিল মাত্র ২৯ রান। কাল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে ৪০ রানে অপরাজিত ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। এই ইনিংসটিই হাজারী ক্লাবে নিয়ে গেছে রিয়াদকে। ৪৮ ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর রান ১০১১। ৪৮ ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর কোনো সেঞ্চুরি নেই। হাফসেঞ্চুরি ৪টি। সর্বোচ্চ ৬২।
এছাড়া চার হাঁকিয়েছেন ৭৮টি এবং ছক্কা রয়েছে ৩১টি। বরিশাল বুলসের অধিনায়ক মুশফিকের রান ৪৫ ম্যাচে ১১৭১। এরপর রয়েছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের পাকিস্তানি ক্রিকেটার আহমেদ শেহজাদ। তার রান ৯৩৭
৬৯২ রান নিয়ে এ আসর শুরু করা খুলনা টাইটান্সের অধিনায়ক একাই দলের হাল ধরে রেখেছেন ব্যাট হাতে। দলের বিপর্যয়ে যেমন ঝলসেছে তার ব্যাট, তেমনি বল হাতেও দুর্দান্ত। এবারের বিপিএলটা দুর্দান্ত কাটছে মাহমুদউল্লার। এগারো ম্যাচ খেলে ৩৫.৬৬ গড়ে ৩১৯ রান করে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় তিন নম্বরে রয়েছেন।
রান সংখ্যাটা আরো বাড়িয়ে নিতে পারেন বাংলাদেশি অলরাউন্ডার। কারণ এখনো অন্তত একটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাচ্ছেন মাহমুদউল্লাহ। আর খুলনা সেমি ফাইনালে উঠলে তিনটি ম্যাচও খেলার সম্ভাবনা আছে তার।

বিপিএল’র চার আসরে সর্বাধিক রান
ক্রিকেটার    ইনি.       সময়     রান    গড়    ৫০/১০০
মুশফিকুর রহীম    ৪৪    ২০১২-২০১৬    ১১৭১    ৩৭.৭৭    ৭/০
মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ   ৪৪   ২০১২-২০১৬    ১০১১   ২৭.৩২    ৪/০
তামিম ইকবাল খান ৩১  ২০১২-২০১৬    ৯৭৫    ৩৩.৩৭    ১১/০
আহমেদ শেহজাদ    ২৭   ২০১২-২০১৬    ৯৩৭    ৪০.৩৭    ৭/০
সাকিব আল হাসান    ৪৪  ২০১২-২০১৬    ৯৩০    ২৮.১৮    ৩/০
এনামুল হক বিজয়    ৪২   ২০১২-২০১৬    ৯০৫    ২৫.১৩    ৪/০

 

Advertisment

মাকসুদুল হক , বিডিক্রিকটিম।