মুমিনুলের মতে, অনুশীলনের চেয়ে বেশি কাজে দিবে বিসিএল

0
442

সপ্তাহ খানেক পরেই পাকিস্তানের মাটিতে স্বাগতিকদের বিপক্ষে সাদা পোশাকের লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ দল। তার আগে দেশে বা পাকিস্তানে খুব বেশি সেশনে অনুশীলন ক্যাম্প করার সুযোগ নেই বাংলাদেশ দলের। তবে জাতীয় দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক মনে করছেন, ক্যাম্পে অনুশীলন করার থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল) ম্যাচ খেলাটা বেশি ভালো হবে।

ট্রফি উন্মোচনে ওয়ালটন মধ্যাঞ্চলের অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত ও ইসলামি ব্যাংক পূর্বাঞ্চলের অধিনায়ক মুমিনুল হক।

 

Advertisment

দ্বিতীয় দফায় পাকিস্তান সফরে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যকার একমাত্র টেস্ট ম্যাচটি। সেখানে খেলার আগে ম্যাচ খেলার প্রস্তুতির প্রয়োজন ছিল এবং বিসিএল হওয়ায় সেটা পুষিয়ে দেবে বলে বলেন মুমিনুল,  ‘টেস্টের আগে একটা ভালো প্রস্তুতি নেয়ার দরকার ছিল, আমার মনে বিসিএল সেজন্য ভালোই হবে। অবশ্যই এটা কাজে দেবে। যেকোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার আগে একটা ভালো টুর্নামেন্ট খেললে সেটা সবসময়ই কাজে দেয়।’

বিসিএলের মুমিনুলে দলে ও প্রতিপক্ষ শিবিরে আছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা, যারা প্রায় সবাই খেলবেন প্রথম ম্যাচটি। এতে করে জাতীয় দলের স্কোয়াডটাকে দেখার সুযোগ হবে ইসলামি ব্যাংক পূর্বাঞ্চল ও বাংলাদেশ দলের টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুলের। অধিনায়ক হিসাবে দলের খেলোয়াড়দের ফর্ম যাচাই করার জন্য এটাকে ভালো সুযোগ হিসাবে দেখেছেন তিনি।

মুমিনুলের ভাষায়, ‘একজন অধিনায়ক হিসাবে জিনিসটা ভালোভাবে দেখতে পারব যে কে কীভাবে খেলছে। আমার জন্য এটা একটা ভালো সুযোগ। আমার কাছে মনে হয়, অনুশীলনের চেয়ে ম্যাচ খেলাটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ সারাবছর অনুশীলন করেও ম্যাচ খেলতে না পারলে কোনো লাভ নেই। যদি অনুশীলনের থেকে ম্যাচ খেলা হয়, সেটা অনেক বেশি কাজে দেয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখানে ফিল্ডিংটা বেশি কাজে দেয়। অনুশীলনে সারাদিন ফিল্ডিং নিয়ে কাজ করার চেয়ে টেস্ট ম্যাচে ৯০ ওভার ফিল্ডিং করাটা আপনার শারীরিক সক্ষমতারও একটা জানান দেয়। যারা বোলার তারা কেউ নতুন বা পুরানো, কেউবা ভেজা ঘাসে বোলিং করবে- এগুলো অবশ্যই কাজে লাগবে।’

বিসিএলের জন্য প্রস্তুত করা মিরপুরের উইকেট পরিদর্শন করে এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান বলেন, ‘উইকেট খুব ভালো। ঘাসও আছে। আমার মনে হচ্ছে, ব্যাটিংয়ের জন্য ভালো হবে। আপনারা খেলা দেখে মজা পাবেন, যদি আমরা ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি।’

টুর্নামেন্টটিতে নিজের দল নিয়েও সন্তুষ্টি জানিয়েছেন তিনি, ‘আমার কাছে মনে হয় দুই বিভাগই শক্তিশালি। তিন-চারজন করে টেস্ট বোলার ও ব্যাটসম্যান আছে। আমাদের দলটা ভারসাম্যপূর্ণ হয়েছে।’