লিটনের শতকের পরও বাংলাদেশের অসহায় পরাজয়

0
2004

এবাদত হোসেনের উইকেট শিকার করে টেস্ট ক্যারিয়ারের ইতি টানলেন রস টেলর। নিউজিল্যান্ড পেল ইনিংসে ও ১১৭ রানের ব্যবধানে জয়। বড় হারের দিন বাংলাদেশের পক্ষে শতক হাঁকিয়েছেন লিটন দাস।

বোল্টের '৩০০'-এর দিনে চরম বিপর্যয়ে বাংলাদেশ
নিউজিল্যান্ড টেস্ট দল

ফলোঅনে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে সাদমান ইসলাম ও নাঈম শেখ যোগ করেন ২৭ রান। ৪৮ বলে ২১ রান করে কাইল জেমিসনের শিকার হন সাদমান। নাজমুল হোসেন শান্ত নেমেই ওয়ানডে মেজাজে ব্যাট করতে থাকেন। তবে বেশি দূর যেতে পারেননি। ৩৬ বলে ২৯ রান করে তিনি ফেরেন নেইল ওয়াগনারের বলে।

Advertisment

ধৈর্যের পরিচয় দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করেন নাঈম শেখ। মাটি কামড়ে ক্রিজে থাকার চেষ্টায় তিনিও ব্যর্থ হন। ৯৮ বলে ২৪ রান করা নাঈমকে সাজঘরের পথ দেখান টিম সাউদি। অধিনায়ক মুমিনুল হক ভালো শুরু পেলেও ইনিংস বড় করতে ব্যর্থ হন। তিনি ৬৩ বলে করেন ৩৭ রান। ওয়াগনারের বলে রস টেলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন মুমিনুল।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের পক্ষে একাই লড়াই করা ইয়াসির অবশ্য দ্বিতীয় ইনিংসে আর সফলতার দেখা পাননি। ৯ বলে ২ রান করে তিনিও ওয়াগনারের বলে উইকেট দিয়ে বিদায় নেন। ৫ উইকেটে ১৫২ রান নিয়ে চা বিরতিতে যান নুরুল হাসান সোহান ও লিটন দাস।

লিটনের শতকের পরও বাংলাদেশের অসহায় পরাজয় (3)
লিটন দাসের শতক উদযাপন

ম্যাচে বাংলাদেশের পক্ষে একমাত্র অর্ধশত ও পরবর্তীতে শতরানের জুটি আসে লিটন ও সোহানের জুটিতে। ষষ্ঠ উইকেটে তারা গড়েন ১০১ রানের জুটি। ড্যারিল মিচেলের বলে সোহান ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরের পথ ধরেন। সোহানের ব্যাট থেকে আসে ৫৪ বলে ৩৬ রান।

লিটন ধীরে সুস্থে ব্যাটিং শুরু করলেও ওয়ানডে মেজাজে শতক হাঁকান। বাউন্ডারির ফুলঝুরিতে লিটন খেলেন ১১৪ বলে ১০২ রানের ইনিংস। আম্পায়ার্স কলে দুর্ভাগ্যজনকভাবে এলবিডব্লিউ হওয়ার আগে তিনি হাঁকান ১৪টি চার ও একটি ছক্কা। জেমিসনের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

লিটনের শতকের পরও বাংলাদেশের অসহায় পরাজয় (3)
লিটনের সাথে শতরানের জুটিতে ৩৬ রান করেন নুরুল হাসান সোহান

লিটন ফেরার পর বাংলাদেশকে অলআউট করতে বেশি লাগেনি নিউজিল্যান্ডের। জেমিসনকে উড়িয়ে মারতে নিয়ে মিড অনে ক্যাচ দেন শরিফুল ইসলাম। এবাদতকে শিকার করে বাংলাদেশের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন জীবনের শেষ টেস্ট খেলতে নামা রস টেলর। বাংলাদেশ অলআউট হয়ে ২৭৮ রানে। নিউজিল্যান্ড জয় পায় ইনিংস ও ১১৭ রানের ব্যবধানে।

এই জয়ের ফলে ১-১ এ সিরিজ ড্র করল নিউজিল্যান্ড। ৮ উইকেটে প্রথম ম্যাচ জিতে আগেই সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

নিউজিল্যান্ড ৫২১/৬ ডিক্লেয়ার (১২৮.৫ ওভার)
ল্যাথাম ২৫২, কনওয়ে ১০৯, ব্লান্ডেল ৫৭*, ইয়ং ৫৪, টেলর ২৮;
এবাদত ২/১৪৩, শরিফুল ২/৭৯।

বাংলাদেশ ১২৬/১০ (৪১.২ ওভার)
ইয়াসির ৫৫, সোহান ৪১, লিটন ৮, সাদমান ৭, নাঈম ০, শান্ত ৪, মুমিনুল ০;
বোল্ট ৫/৪৩, সাউদি ৩/২৮, জেমিসন ২/৩২।

বাংলাদেশ ২৭৮/১০ (৭৯.৩ ওভার)
লিটন ১০২, মুমিনুল ৩৭, সোহান ৩৬, শান্ত ২৯, নাঈম ২৪, সাদমান ২১;
জেমিসন ৪/৮২, ওয়াগনার ৩/৭৭।

নিউজিল্যান্ড ইনিংস ও ১১৭ রানে জয়ী।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনের চ্যাটে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime Crickey সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

বিডিক্রিকটাইমের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি।