শামিমের ঝড়ো অর্ধশতকে দোলেশ্বরের জয়, জমে উঠল শিরোপার লড়াই

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) সুপার লিগে দুই প্রাইমের লড়াইয়ে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব। এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ তিন দলের লড়াই আরও জমজমাট হয়ে উঠল। এই জয়ে দোলেশ্বরের পয়েন্ট বেড়ে হয়েছে ২১। সমান ১৫টি ম্যাচ খেলে আবাহনী ও প্রাইম ব্যাংকের পয়েন্ট ২২ করে। 

ফজলের ব্যাটে পঞ্চম জয় দোলেশ্বরের

Advertisment

‘হোম অব ক্রিকেট’ খ্যাত মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন প্রাইম ব্যাংকের অধিনায়ক এনামুল হক বিজয়। যদিও ব্যাট হাতে তিনি ব্যর্থ ছিলেন এদিনও।

দলীয় ৩৩ রানে রুবেল মিয়াকে হারায় প্রাইম ব্যাংক। ৪০ রানে বিজয় ও ৪৮ রানে মোহাম্মদ মিঠুনও ফেরেন সাজঘরে। উইকেটে থিতু হতে পারেননি রকিবুল হাসানও। রুবেল ৮, বিজয় ১, মিঠুন ১ ও রকিবুল ৬ রান করে সাজঘরে ফিরলেও প্রাইম ব্যাংক একেবারে খেই হারায়নি রনি তালুকদারের কারণে।

এক প্রান্ত আগলে রেখে প্রাইম দোলেশ্বরের বোলারদের ক্রমাগত শাসন করেছেন রনি। সাজঘরে ফেরার আগে ৪১ বলে করেন ৫৯ রান, হাঁকান ৮টি চার ও ১টি ছক্কা। তার বিদায়ের পর দলের রানের গতি শ্লথ হয়ে যায়। নাহিদুল ইসলামের ২৮ বলে ২৭ রানের ইনিংসে ১৯.৫ ওভারে অলআউট হওয়ার আগে মাত্র ১২৬ রান জড়ো করে প্রাইম ব্যাংক। রনি ও নাহিদুল ছাড়া কেউই পাননি দুই অঙ্কের রানের দেখা।

দোলেশ্বরের পক্ষে ৩.৫ ওভারে ৩৬ রান বিলি করলেও ৪ উইকেট শিকার করেন শফিউল ইসলাম। ৪ ওভার বল করে মাত্র ১০ রানের খরচায় ৩ উইকেট শিকার করেন কামরুল ইসলাম রাব্বি।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১২ রানের মধ্যে দুই ওপেনার ইমরান উজজামান ও তৌকির খানের উইকেট হারিয়ে ফেলে দোলেশ্বর। চাপ সামলাতে ধীরস্থির ব্যাটিং শুরু করেন সাইফ হাসান, এত বেশিই ধৈর্যশীল ছিলেন যে, নিজের প্রথম রানের দেখা পেয়েছেন ১২তম বল মোকাবেলার পর। তবে ফজলে মাহমুদ রানের চাকা সচল রাখার চেষ্টা করেন।

সাইফ ৩১ বলে ২৭ ও ফজলে ১২ বলে ২০ রান করে সাজঘরে ফিরলে আবারও চাপে পড়ে যায় দোলেশ্বর। মার্শাল আইয়ুব ও শামিম হোসেন পাটোয়ারিও ব্যাট করছিলেন ওয়ানডে মেজাজে। মার্শাল ২২ বলে ১৩ রান করে ফেরেন সাজঘরে। এরপর দায়িত্ব বর্তায় শামিমের কাঁধে।

নায়ক হওয়ার সুযোগ পেয়ে খোলস ছেড়ে বেড়িয়ে আসেন শামিম। শেষপর্যন্ত ৩০ বলে ৫২ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দলের জয় নিশ্চিত করেন ৭ বল ও ৫ উইকেট হাতে রেখেই। শরিফুল ইসলামের ওপর চড়াই হওয়া শামিম এদিন হাঁকিয়েছেন ৪টি চার ও ৩টি ছক্কা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর 

টস : প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব

প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব : ১২৬/১০ (১৯.৫ ওভার)
রনি ৫৯, নাহিদুল ২৭
শফিউল ৩৬/৪, রাব্বি ১০/৩

প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব : ১৩০/৫ (১৮.৫ ওভার)
শামিম ৫২* ,সাইফ ২৭
রুবেল ২২/২, অলক ১৮/১, শরিফুল ৪২/১

ফল : প্রাইম দোলেশ্বর ৫ উইকেটে জয়ী।