Scores

সফরের আগে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণে পর্যবেক্ষক দল?

ক্রিকেট বিশ্বের বড় দলগুলো নিরাপত্তার বিষয়ে সফরের সময় বেশ আলোচনা তুললেও বাংলাদেশ এতদিন ছিল নীরব। তবে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খুব কাছেই জঙ্গি হামলার পর ঘুরেফিরে সামনে আসছে নিরাপত্তার বিষয়টি।

সফরের আগে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণে পর্যবেক্ষক দল
দেশের মাটিতে কড়া নিরাপত্তার মধ্যেও অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির শিকার হন ক্রিকেটাররা। বিদেশের মাটিতে লঘু নিরাপত্তায় তাই ঝুঁকি থাকে বেশি। ©ফাইল ছবি

অনেকেই মনে করেন, ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী দল হিসেবে বাংলাদেশেরও কড়া নিরাপত্তার চাহিদা থাকা উচিত। দল নিরাপদে দেশে ফিরে আসায় এখন সেই বিষয় নিয়ে হচ্ছে আলোচনা। সোমবার (১৮ মার্চ) সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানালেন, ভবিষ্যতে সফরে দলের সাথে বা দল দেশ ত্যাগের আগে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল দেখা যাবে কি না।

পাপন বলেন, ‘এ বিষয়ে আমরা এখনও চিন্তা-ভাবনা করিনি। এখন থেকে ক্রিকেট দল যে কোনো দেশে যাওয়ার আগে তাদের নিরাপত্তা পরিকল্পনা চাইবো। সেটা ঠিক মতো প্রয়োগ হচ্ছে কিনা তা দেখতে কাউকে পাঠানো হবে। তবে সিকিউরিটির লোকই যে পাঠানো হবে, তা নয়।’

Also Read - সৌম্য সরকারেরও দল পরিবর্তন হলো!


তবে দেশের বাইরে নিরাপত্তাব্যবস্থা যে বাংলাদেশের মতই হয় না সেটিও উল্লেখ করেছেন তিনি। বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘বিদেশে সাধারণত খেলার মাঠে আর হোটেল থেকে মাঠে যাওয়া-আসার সময় নিরাপত্তা দেওয়া হয়। এছাড়া বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকে না। তবে এখন থেকে কোনো সিরিজ বা টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই আয়োজকদের সঙ্গে কথা বলে কিছু করা যায় কিনা সেটা আমরা দেখবো।’

আমার কাছে ব্যক্তিগতভাবে মনে হয়েছে, আমরা যখন নিরাপত্তা নিয়ে কথা বলতে যাই, ওদের ধারণা আমাদের কেউ কিছু করবে না। আমাদের আবার মারবে কে, এরকম একটা ভাব ওদের থাকে।’– বলেন তিনি।

অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মত শান্তিপূর্ণ দেশ খ্যাত ভেন্যুর উদাহরণ টেনে নাজমুল হাসান আরও বলেন, আপনি যদি অস্ট্রেলিয়া যান, নিউজিল্যান্ড বা দক্ষিণ আফ্রিকা যান, ওদের একেক জায়গায় একেক রকম নিরাপত্তা ব্যবস্থা। লন্ডনে যে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ছিলো, সেখানেও নিরাপত্তা বলতে নাম মাত্র। সেখানে পুলিশ-বন্দুক-গাড়ি, এগুলো দেখাই যায় না। এটাই ওদের নিয়ম, এটাই ওদের সংস্কৃতি।’

তবে ভবিষ্যতে বিসিবি খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা নিয়ে সতর্ক অবস্থানে থাকবে- মিলেছে এমন আশ্বাস।

ক্রাইস্টচার্চের ঘটনা চোখ খুলে দিয়েছে। এতোদিন ওদের কথাই তো বিশ্বাস করতাম। কিন্তু ভবিষ্যতে না বুঝে না দেখে যাওয়া যাবে না।’– বলেন পাপন।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ক্রাইস্টচার্চের সেই মসজিদেই বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের নামাজ আদায়

“যখন স্বাভাবিক জীবনে ফেরার চেষ্টা করছি, তখনই অগ্নিকান্ড”

নিউজিল্যান্ডকে নিরাপদ ভাববে বাংলাদেশ, বিশ্বাস দেশটির ক্রীড়ামন্ত্রীর

“দল কিসের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, ভাষায় প্রকাশ করা কঠিন”

“স্বপ্নে দেখেছি, বাইকে করে ওরা গুলি করছে’