সাকিবের বিতর্কিত আউটে কান্নায় ভাঙ্গে শিরোপার স্বপ্ন

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে আগামী রবিবার ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। সেমিফাইনালে ভারত পাকিস্তানকে দশ উইকেটে হারিয়ে ও বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ডকে ৬ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালে কোয়ালিফাই করে। ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব দলের ফাইনাল এই প্রথম নয়। বিশ্বকাপে না হলেও ভারতের বর্তমান অনূর্ধ্ব ১৯ দলের বিপক্ষে এর আগে আগস্টে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল ও পরবর্তীতে অনূর্ধ্ব ১৯ এশিয়া কাপের ফাইনালেও মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ ।

সাকিবের বিতর্কিত আউটে কান্নায় ভাঙ্গে শিরোপার স্বপ্ন
আউটের পর বাকরুদ্ধ সাকিব

ভারতের সেই ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে লড়াই করেও হার মানতে হয় বাংলাদেশকে। বাংলাদেশ প্রথমে ব্যাট করে ৫০ ওভারে ২৬০ রান করে। সেমিফাইনালের মত সেইদিন ও শতক করেন মাহমুদুল হাসান জয়। তবে তা যথেষ্ট ছিলোনা জয়ের জন্য। ফলে ৪৯তম ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ভারত জিতে যায় শেষ পর্যন্ত।

Advertisment

এশিয়া কাপের ফাইনালটা ছিলো আরো শ্বাসরুদ্ধকর। ফেভারিট হওয়া সত্ত্বেও শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় হার মানতে বাধ্য হয়। বাংলাদেশ আগে বোলিং করে শরিফুল, মৃত্যুঞ্জয় ও সাকিবদের বোলিং তোপে ভারত ১০৬ রানেই গুটিয়ে যায়। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারাতে থাকে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ১৯ দল। ৭৮ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে যখন হারের শঙ্কায় ছিল বাংলাদেশ দল তখন জুটি গড়েন সাকিব ও রাকিবুল। দুইজনের জুটিতে তখন মাত্র জয়ের থেকে ৬ রান দূরে ছিলো বাংলাদেশ।

তবে এমন সময় আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে আউট হয়ে যান তানজিম হাসান সাকিব। ব্যাটে লাগা সত্ত্বেও সাকিবকে লেগ বিফোর আউট দিয়ে দেন আম্পায়ার। ধারাভাষ্যকাররাও অবাক হয়ে যান এই রকমের সিদ্ধান্তে। এরপর রাকিবুলও একই ওভারে আউট হলে ১০১ রানে ৮ উইকেট থেকে ১০১ রানে অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ দল। ফাইনালে জয়ের দ্বারপ্রান্ত থেকে ৫ রানের হার নিয়ে ফিরে যেতে হয়।শুধু সাকিব না শুরুতে তামিমের লেগ বিফোর আউটের সিদ্ধান্তও ছিলো প্রশ্নবিদ্ধ।

সেই ফাইনালের দুঃস্বপ্ন ভুলে আবারো এক ফাইনালের সামনে বাংলাদেশ দল। শিরোপার এতো কাছে আসার পরও ভুল সিদ্ধান্তে তা হাত থেকে ফসকে যাওয়ার স্মৃতি অবশ্যই ভুলে যেতে চাইবে সেই সময় ক্রিজে থাকা তানজিম হাসান সাকিব, রাকিবুল হাসান সহ পুরো বাংলাদেশ দল। সেই ফাইনালের কষ্ট ভুলে বিশ্বকাপের ফাইনালে নিজেদের সেরাটা দিবে বাংলাদেশ দল এটাই প্রত্যাশা সকলের। ১০৬ রান তাড়া করতে না পারার দায়বদ্ধতা অনেকটা ব্যাটসম্যানদের উপরও যায়। ব্যাটসম্যানদের কাছেও দেশবাসীর আশা থাকবে ফলাফল যাই হোক না কেনো নিজেদের সেরাটা মাঠে দিয়ে আসবে বাংলাদেশের যুবারা।