হাথুরুর সঙ্গে ক্রিকেট নিয়ে কাজ করতে পারতাম : সুজন

0
1537

বাংলাদেশ দলের হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সঙ্গে যে রসায়নটা এখনো জমে উঠেনি সেটা বিসিবি পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজনের কথাতেই পরিস্কার। ডমিঙ্গো প্রসঙ্গে টাইগারদের সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকেও টানলেন খালেদ মাহমুদ।

Advertisment

এক সিরিজের পরই টিম লিডারের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন খালেদ মাহমুদ। শ্রীলঙ্কা ট্যুরে বাংলাদেশ দলের টিম লিডারের দায়িত্ব পেয়েছিলেন তিনি। বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনে জোর গুঞ্জন ছিল টাইগারদের হেড কোচ ডমিঙ্গোর সঙ্গে মতের অমিল হয়েছে সুজনের। এই দুই সম্পর্কে যে খুব একটা ভালো তেমনও নয়।

সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে এবং বর্তমান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর মধ্যে পার্থক্য দেখালেন বিসিবির এই পরিচালক। খালেদ মাহমুদ জানান, হাথুরুর সঙ্গে ক্রিকেট নিয়ে কাজ করতে পারতেন তিনি।

“প্রত্যেকটা কোচের আলাদা দর্শন থাকে। চন্ডিকার সঙ্গে যতদিন কাজ করেছি…. হ্যাঁ, প্রথম সিরিজে হয়তো ফাইট হয়েছে। তারপর আমরা নিজেদের বুঝতে পেরেছি। আমাদের জন্য কাজ করতে সুবিধা হয়েছে কারণ সে আমাকে ঐভাবে গুরুত্ব দিত। আমি যদিও টিম লিডার ছিলাম। সেই দায়িত্বে থাকার পরও ক্রিকেট নিয়ে চন্ডিকার সঙ্গে কাজ করতে পারতাম।”

তিনি আরও যোগ করেন, “সেক্ষেত্রে ডমিঙ্গো হয়তো এখনো বুঝে উঠতে পারেনি। এটা ওর দল, ওর কল- আমার সাজেশন দেওয়ার প্রয়োজন হলে সেটা দিই। নিবে কী নিবে না, সেটা তাঁর সিদ্ধান্ত। চন্ডিকার সঙ্গে আমার আলাপ হতো। প্রত্যেকটা সিরিজের আগে আমরা প্রতিপক্ষ নিয়ে আলোচনা করতাম। ও আমাকে বলত, সেটা আমি শুনতাম বা আমার কিছু বলার থাকলে সেটা বলতাম এবং ও সেটা শুনত। সেটা আসলে ডমিঙ্গোর সঙ্গে এখনো হয়নি আমার।”

শ্রীলঙ্কা সফরের পর পদত্যাগ না করলে হয়তো জিম্বাবুয়ে সফরেও টাইগারদের টিম লিডার হিসেবে যেতেন খালেদ মাহমুদ। হাথুরুর সঙ্গে দীর্ঘ সময় কাজ করলেও ডমিঙ্গোর সঙ্গে কাজ করার তেমন সুযোগ হয়নি তাঁর। ডমিঙ্গোর সঙ্গে যে নিজের জুটিটা গড়ে উঠেনি সেটিও অকপটে স্বীকার করেছেন খালেদ মাহমুদ।

“তারপর ও একটা জুটি গড়ে উঠতে সময় লাগে। সেই সময়টা হয়তো এই সিরিজে গেলে হতে পারত বা আরেকটু সময় লাগত। রাসেলের সঙ্গে আমার খুব একটা ভালো হয়েছে তা বলব না।”