হাসানের পারফরম্যান্সে অবাক হননি গিবসন

অভিষেকেই বাংলাদেশের হয়ে আলো ছড়িয়েছেন তরুণ পেসার হাসান মাহমুদ। এর আগে খেলেছেন একটিমাত্র টি-টোয়েন্টি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিক্ষে প্রথম ওয়ানডে দিয়ে সীমিত ওভারের দুই ফরম্যাটেই পা রাখলেন। হাসানের দারুণ পারফরম্যান্স দেখে অনেকে অবাক হলেও এমন পারফরম্যান্সই আশা করেছিলেন পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন।

হাসানের পারফরম্যান্সে অবাক হননি গিবসন

Advertisment

৪ ওভারে বিলি করেছিলেন ২৪ রান। চতুর্থ ওভার থেকেই শুরু হয় হাসানের জাদু। একে একে সাজঘরে ফেরান রভম্যান পাওয়েল, রেয়মন রেইফার ও আকিল হোসেনকে। পঞ্চম ও ষষ্ঠ ওভারে খরচ করেন মাত্র ৪ রান। সাকিব আল হাসান ব্যাটিং অর্ডারে ধস নামানোর পর হাতুরির শেষ আঘাত আসে হাসানের হাত ধরেই। ফলাফল, মাত্র ১২২ রানেই শেষ ক্যারিবীয়দের ইনিংস।

গিবসন জানালেন, ‘হাসানের এই পারফরম্যান্স একটুও অবাক করেনি তাকে। তিনি বলেন, ‘না, সে (হাসান) আমাকে একদমই অবাক করেনি। এজন্যই তাকে একাদশে রাখা হয়েছিল, কারণ আমরা তার উন্নতি দেখেছি।’

হাসান বাংলাদেশ দলের সাথে অনেকদিন ধরেই। ফলে ওটিস গিবসন তাকে কাছ থেকে দেখেছেন দীর্ঘদিন। গিবসনের ভাষ্য, ‘সে গত প্রায় ১২ মাস ধরেই আমাদের সাথে আছে। গত বছরের শুরুতে দলের সাথে পাকিস্তানে গিয়েছিল। সে আমাদের সাথে আছে বেশ কিছু দিন হয়েছে এবং আমরা ভালোভাবেই তার উন্নতি দেখছি। সে সুযোগ পেয়েছে এবং অভিষেকেই তিন উইকেট পেয়েছে- এটা তার পরিশ্রমের সুফল।’

দলের পারফরম্যান্সে হয়ত গিবসন শতভাগ সন্তুষ্ট হতে পারেননি। তবে দশ মাস পর মাঠে নেমেই জয়ের ধারায় ফিরে স্বস্তি ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক প্রধান কোচের কণ্ঠে। তিনি বলেন, ‘ভালো একটি দলীয় পারফরম্যান্স ছিল। কন্ডিশন আদর্শ ছিল না, পিচে টার্ন ছিল। কিন্তু আমাদের দল সব দিক দিয়েই পরিপূর্ণ ছিল। সাকিব এবং মেহেদীকে নিয়ে স্পিন আক্রমণ, সাথে অবশ্যই পেসাররা। ফিজ ও রুবেল শুরুতে খুবই ভালো বোলিং করেছে। এবং হাসান মাহমুদ দারুনভাবে অভিষিক্ত হল। সব কিছু মিলিয়ে আদর্শ পারফরম্যান্স হয়ত ছিল না, কিন্তু জয়টি সিরিজ শুরুর ভালো একটি উপায়।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।