Scores

হ্যাটট্রিক করলেন বোল্ট

আবু ধাবিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে হ্যাটট্রিক করেছেন নিউজিল্যান্ডের পেসার ট্রেন্ট বোল্ট। ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই হ্যাটট্রিক করেন এ বাঁহাতি পেসার।

হ্যাটট্রিক করলেন বোল্ট
হ্যাটট্রিক করলেন বোল্ট

নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় বোলার হিসেবে আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে হ্যাটট্রিক করার কীর্তি গড়েছেন ট্রেন্ট বোল্ট। এর আগে নিউজিল্যান্ডের হয়ে হ্যাটট্রিক করেছেন ড্যানি মরিসন এবং শেন বন্ড। আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে এটি ৪৬ তম হ্যাটট্রিক।

Also Read - সিলেট টেস্ট: প্রথম ইনিংসেই বেশি ভুল দেখছেন রোডস


দীর্ঘ ১১ বছর পর হ্যাটট্রিক করেছেন কোনো নিউজিল্যান্ডের বোলার। ১৯৯৪ সালে ভারতের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের হয়ে প্রথম হ্যাটট্রিক করেছিলেন ড্যানি মরিসন। এরপর ২০০৭ সালে হোবার্টে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় কিউই বোলার হিসেবে হ্যাটট্রিক করেন শেন বন্ড।

ইনিংসের তৃতীয় ওভারে দ্বিতীয় ওভারে পাকিস্তানের ওপেনার ফখর জামানকে বোল্ড করেন ট্রেন্ট বোল্ট। ৫ বলে ১ রান করে সাজঘরে ফিরে যান ফখর জামান। পরের বল ছিল ওয়াইড ইয়র্কার। ঐ বলে স্লিপে ক্যাচ তুলে দেন বাবর আজম। দারুণ এক ক্যাচ নেন রস টেলর। টেলরের হাতে বল জমা পড়ার আগে মাটিতে স্পর্শ করেছে কিনা তা যাচাইয়ের জন্য টিভি আম্পায়ারের দ্বারস্থ হলে সেখান থেকে আউট ঘোষণা করা হয়।

পরের বলে বোল্ট ফিরিয়ে দেন মোহাম্মদ হাফিজকে। পূর্ণ করেন হ্যাটট্রিক। দারুণ এক ডেলিভারিতে পরাস্ত হন হাফিজ। বল আঘাত হানে তার প্যাডেও। রিভিউ নিলেও বাঁচেননি তিনি।

এ সফরে এসে এটিই প্রথম ম্যাচ ট্রেন্ট বোল্টের। সূচনাটাও করলেন দারুণভাবে। তার এ হ্যাটট্রিকে পাকিস্তানের টপ অর্ডারে ধস নেমেছে। মাত্র ৮ রানেই তিন উইকেট হারিয়েছে পাকিস্তান।

এর আগে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে নয় উইকেটে ২৬৬ রান করেছে নিউজিল্যান্ড। ৫ চারে ১১২ বলে ৮০ রানের ইনিংস খেলেছেন রস টেলর। ৬৪ বলে ৬৮ রান করেছেন টম লাথাম। পাকিস্তানের হয়ে ৪ টি করে উইকেট নেন শাহিন শাহ আফ্রিদি ও শাদাব খান।


আরো পড়ুনঃ  অভিষেকে বাংলাদেশের তিক্ত রেকর্ড


 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

পাকিস্তানের ২০ বছরের রেকর্ড ভেঙে ইংল্যান্ডের রোমাঞ্চকর জয়

ইংল্যান্ড স্কোয়াডে যুক্ত হলেন আরও এক পেসার

সতীর্থদের পর এবার বোর্ডের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ কানেরিয়ার

‘ব্রাভো-নারাইনদের অর্থনৈতিক ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করেছে আইপিএল’

হরভজন-যুবরাজ ছোট ভাইয়ের মতো, মারার প্রশ্নই নেই: শোয়েব