১০০ বলের ফরম্যাটের প্রস্তুতি শুরু করেছে ইংল্যান্ড

0
973

ক্রিকেটে একটা সময় ওভার প্রতি বল হতো আটটি করে। সেই সময় অতীত হয়েছে বহু আগে। প্রতি ওভারে ছয় বল করেই এখন হিসেব হয় ভদ্রলোকের খেলায়। তবে বিবর্তনের স্রোতে এসেছে নতুন ফরম্যাট। টি-টোয়েন্টির পর আবির্ভাব ঘটেছে টি-টেনেরও। অর্থাৎ, টি-টোয়েন্টিতে ১২০ বলের ইনিংস এবং টি-টেনে ৬০ বলে।

১০০ বলের ফরম্যাটের প্রস্তুতি শুরু করেছে ইংল্যান্ড

Advertisment

তবে যদি এক ইনিংসে মাঠে গড়ায় মোট ১০০টি বল? অবাক হওয়ার কথা নিশ্চয়ই! ঠেকতে পারে অবিশ্বাস্যও! তবে সেই অবিশ্বাস্য বিষয়টিকেই এবার বাস্তব রূপ দিতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)।

কয়েকদিন আগে ক্রিকেটে ১০০ বলের নতুন ফরম্যাটের ম্যাচের প্রস্তাব করেছিল ইসিবি। গ্ল্যামারের লোভেই কিনা, সামান্য অজুহাত পেলেও ক্রিকেটাররা ইংলিশ কাউন্টি ছেড়ে ঝাঁপ দেন আইপিএলের দিকে। এতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে ইংলিশ কাউন্টি দলগুলোর উপর। যার কারণে কাউন্টিকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে এই প্রস্তাব দিয়েছিল ইসিবি। সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এবার কাজ শুরু করে দিয়েছে সংস্থাটি।

১০০ বলের ক্রিকেটের জন্য ইসিবি নিয়োগ দিয়েছে একজন পরামর্শককে। অস্ট্রেলিয়ান ফ্র্যাঞ্চাইজি দল মেলবোর্ন স্টার্স ও আইপিএল দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালোরের ব্যাটিং ও ফিল্ডিং কোচ ট্রেন্ট উডহিল। নিজের উদ্ভাবনী ও ক্রিকেটীয় জ্ঞান কাজে লাগিয়ে উডহিল কাজ করে যাবেন ১০০ বলের ক্রিকেট নিয়ে। ২০২০ সাল পর্যন্ত তিনি ইসিবির সাথে কাজ করবেন বলে জানা গেছে।

সম্প্রতি বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী ক্রিকেট বোর্ড ইসিবি জানায়, আগামী বিশ্বকাপের পরের বছরই ১০০ বলের ইনিংসের নতুন ফরম্যাটের এক টুর্নামেন্টের প্রচলন ঘটাবে তারা, যে ম্যাচের প্রতি ইনিংসে প্রথম ১৫ ওভার হবে স্বাভাবিক নিয়মেই, অর্থাৎ প্রত্যেক ওভারে ৬ বল করে। তবে ১৫ ওভার তথা ৯০ বল সম্পন্ন হওয়ার পর শেষ ১০ বল হবে একটি ওভারে। অর্থাৎ, ১০ বলে এক ওভার!

২০২০ সালে অনুষ্ঠিতব্য এই টুর্নামেন্ট মাঠে থাকবে পাঁচ সপ্তাহ ব্যাপী। সাউদাম্পটন, নটিংহ্যাম, বার্মিংহাম, লন্ডন, ম্যানচেস্টার, কার্ডিফ ও লিডস সহ মোট আটটি ভেন্যুতে আয়োজিত হবে এই বিচিত্র ক্রিকেট আসর।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের আগে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলবেন নারীরা